করোনা টিকার মেধাসত্ত্ব প্রত্যাহারের বিপক্ষে জার্মানি | বিশ্ব | DW | 07.05.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

করোনা টিকার মেধাসত্ত্ব প্রত্যাহারের বিপক্ষে জার্মানি

গোটা বিশ্বে দ্রত করোনা টিকা সরবরাহে সম্মতি জানালেও টিকা কোম্পানিগুলির মেধাসত্ত্ব প্রত্যাহারের বিরোধিতা করেছে জার্মানি৷ ইইউ নেতারা সপ্তাহান্তে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করছেন৷

ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার নেতৃত্বে করোনা টিকার মেধাসত্ত্ব সাময়িক বাতিল করার উদ্যোগে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইতিবাচক সাড়া দিলেও জার্মানি বিরোধিতা করছে৷ বিশেষ করে উন্নয়নশীল ও দরিদ্র দেশে করোনা টিকার অভাব মেটাতে মেধাসত্ত্ব মোটেই অন্তরায় নয় বলে যুক্তি দেখিয়েছে আঙ্গেলা ম্যার্কেলের সরকার৷ জার্মান সরকারের এক মুখপাত্র বলেন, করোনা টিকার উপর মেধাসত্ত্ব তুলে নিলে সার্বিকভাবে টিকা উৎপাদনের উপর কোনো গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব পড়বে না৷ তার মতে, উৎপাদন ক্ষমতা এবং উচ্চ মানদণ্ডই আপাতত প্রধান সমস্যা৷ টিকা কোম্পানিগুলি অনেক দিন থেকেই বিভিন্ন দেশে সহযোগীদের সঙ্গে উৎপাদন বাড়ানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে৷ মডার্না কোম্পানি গত অক্টোবর মাসেই করোনা টিকার মেধাসত্ত্বের উপর দাবি শিথিল করলেও কোনও কোম্পানি নিজস্ব উদ্যোগে সেই টিকা তৈরি করতে পারেনি৷

জার্মান স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইয়েন্স স্পান মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বৃহত্তর উদ্যোগের প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন৷ অর্থাৎ তিনিও মনে করেন, যে একমাত্র গোটা বিশ্বে টিকা সরবরাহ করেই করোনা মহামারি থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব৷ স্পান বলেন, সেই লক্ষ্যে করোনা টিকা রপ্তানির পথে বাধা তুলে নেওয়া উচিত৷ মার্কিন প্রশাসন যেভাবে টিকা এবং টিকা উৎপাদনের রপ্তানির পথে বাধা সৃষ্টি করে এসেছে, স্পান পরোক্ষভাবে

উল্লেখ্য, জার্মানির বায়োনটেক কোম্পানি অ্যামেরিকার ফাইজার কোম্পানির সঙ্গে সহযোগিতার মাধ্যমে করোনা টিকা তৈরি করেছে৷ কিউরভ্যাক নামের আর একটি জার্মান কোম্পানিও  আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অনুমোদনের জন্য আবেদন করতে পারে৷ জার্মানির সরকার এমন কোম্পানির মেধাসত্ত্ব বাতিল করতে চায় না৷

ইউরোপীয় ইউনিয়নের শীর্ষ নেতারাও বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করবেন বলে জানিয়েছেন৷ ইইউ কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন অবশ্য ব্যক্তিগতভাবে অ্যামেরিকার প্রস্তাবের বিরোধিতা করেছেন৷ তিনিও টিকা রপ্তানির উপর নিয়ন্ত্রণ তুলে নেবার পক্ষে সওয়াল করেছেন৷ তবে বর্তমান সংকট সমাধানের লক্ষ্যে ইইউ যে কোনো কার্যকর ও বাস্তবসম্মত প্রস্তাব বিবেচনা করতে প্রস্তুত৷ পর্তুগালের পোর্টো শহরে শুক্র ও শনিবার ইইউ শীর্ষ সম্মেলনে বিষয়টি উঠে আসবে৷ ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ মেধাসত্ত্ব বাতিলের প্রস্তাবের প্রতি সম্পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছেন৷

বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার সদস্যদের মধ্যেও এই প্রস্তাব নিয়ে জোরালো তর্কবিতর্ক চলেছে৷ কমপক্ষে ১৬০টিরও দেশের সমর্থন ছাড়া মেধাসত্ত্ব বাতিলের প্রস্তাব অনুমোদন পেতে পারে৷ এমন সিদ্ধান্ত কার্যকর হলেও টিকা কোম্পানির সক্রিয় সহযোগিতা ছাড়া অন্য কোনো কোম্পানির পক্ষে করোনা টিকা উৎপাদন করা কার্যত অসম্ভব বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন৷

এসবি/এসিবি (ডিপিএ, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়