করোনা আপডেট: আক্রান্ত বাড়ছে বিশ্বজুড়ে | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 09.03.2020

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

করোনা ভাইরাস

করোনা আপডেট: আক্রান্ত বাড়ছে বিশ্বজুড়ে

বিশ্বে নতুন নতুন দেশ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছে৷ ভারতে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা৷ ইটালি, ইরানের পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি৷

রবিবার বাংলাদেশে প্রথম করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ মিলেছে৷ এখনও পর্যন্ত ৩ জনের শরীরে এই জীবাণু মিলেছে বলে জানিয়েছে সরকার৷ অন্যদিকে, রবিবার ভারতে আরও পাঁচ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস মিলেছে৷ যার জেরে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৯ এ পৌঁছে গেছে৷

করোনার এই সংক্রমণের কারণে আগামী ১৭ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বাংলাদেশ সফরও বাতিল হয়েছে৷ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তাঁর যোগ দেওয়ার কথা ছিল৷ কিন্তু করোনার কারণে সেই অনুষ্ঠান স্থগিত করা হয়েছে বলে বাংলাদেশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে৷ অন্যদিকে, এই প্রথম বাতিল হল শান্তিনিকেতনের বসন্ত উৎসব৷ গোটা আশ্রম প্রাঙ্গন ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে ফেলা হয়েছে৷ পর্যটকদের আশ্রমের ভিতরে ঢুকতেই দেওয়া হচ্ছে না৷

ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে ইটালিতে মৃত্যুর সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে৷ গত ২৪ ঘণ্টায় সেখানে মারা গিয়েছেন ১৩৩ জন৷ সব মিলিয়ে শুধু ইটালিতেই এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ৩৬৬ জন৷ আক্রান্ত সাত হাজার ৩৭৫ জন৷

সৌদি আরব দেশটির পূর্ব প্রান্তের কাতিফ অঞ্চল অবরুদ্ধ করে দিয়েছে৷ সেখান থেকেই দেশের অন্যপ্রান্তে ভাইরাস দ্রুত ছড়াচ্ছিল বলে সে দেশের প্রশাসন জানিয়েছে৷ কাতারও দেশের সমস্ত স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে৷ ১৪ টি দেশের নাগরিককে আপাতত সে দেশে ঢুকতে দেওয়া হবে না বলেও কাতারের প্রশাসন নোটিস জারি করেছে৷ যার মধ্যে ভারত, বাংলাদেশ এবং পাকিস্তানও আছে৷ ইরানে গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু হয়েছে আরও ৪৯ জনের৷ সে দেশে এখন পর্যন্ত মোট মৃত্যুর সংখ্যা ১৯৪৷ এরই মধ্যে রবিবার বাগদাদে জড়ো হন প্রতিবাদকারীরা৷ তাঁদের বক্তব্য, করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় দেশের সাধারণ মানুষের জন্য ঠিকভাবে ব্যবস্থা নিচ্ছে না ইরান সরকার৷ দেওয়া হচ্ছে না যথেষ্ট মাস্ক এবং গ্লাভস৷

ইটালি, ইরান, দক্ষিণ কোরিয়ার পাশাপাশি করোনায় নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ফ্রান্স এবং সুইজারল্যান্ডে৷ রবিবার ফ্রান্সে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে৷ মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ জনে৷ দেশটিতে মোট আক্রান্ত হয়েছেন এক হাজার ১২৬ জন৷ সুইজারল্যান্ডেও দুই জনের মৃত্যু হয়েছে, আক্রান্ত ২৮১৷ জার্মানি নির্দেশ দিয়েছে এক হাজার লোকের বেশি কোনও জমায়েত আপাতত করা যাবে না৷ এখনও পর্যন্ত জার্মানিতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৮৪৭৷

এ দিকে করোনার প্রভাব পড়তে শুরু করেছে অর্থনীতিতেও৷ সোমবার জাপানের শেয়ার বাজারে পতন হয়েছে৷ বাজার খোলার পরই সূচক ৬ শতাংশ কমে যায়৷ ভারতের শেয়ার বাজারেও পতন চলছে গত কয়েক দিন ধরে৷ তবে তার জন্য করোনা ভাইরাস কতটা দায়ী, তা নিয়ে অর্থনীতিবিদদের মধ্যে বিতর্ক আছে৷

এসজি/জিএইচ (রয়টার্স, এপি, পিটিআই) 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়