করোনায় চরম দারিদ্র্য ৬০ শতাংশ বেড়েছে | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 10.04.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

করোনায় চরম দারিদ্র্য ৬০ শতাংশ বেড়েছে

করোনার প্রভাবে বাংলাদেশের নিম্নবিত্তের আয় ৭৫ ভাগ কমেছে, চরম দারিদ্র্যের হার বেড়েছে৷ বাংলাদেশের এনজিও ব্র্যাকের এক জরিপে এমন তথ্য উঠে এসেছে৷

নিম্নআয়ের মানুষের উপর করোনা ভাইরাসের প্রভাব কতটা পড়েছে তা জানতে দুই হাজার ৬৭৫ জনের উপর একটি জরিপ চালিয়েছে ব্র্যাক৷ করোনার প্রকোপ শুরুর আগে জরিপে অংশ নেয়াদের গড় পারিবারিক আয় ছিল ১৪ হাজার ৫৯৯ টাকা৷ মার্চে তা নেমে এসেছে তিন হাজার ৭৪২ টাকায়৷ অর্থাৎ, তাদের গড় আয় ৭৫ ভাগ কমে গেছে৷

আয়ের ভিত্তিতে জরিপে অংশগ্রহণকারীদের ৮৯ ভাগই চরম বা হতদরিদ্র্যের স্তরে নেমে গেছেন৷ এ কারণে আগের তুলনায় চরম দারিদ্র্যের সংখ্যা ৬০ ভাগ বৃদ্ধি পেয়েছে৷

করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে বাংলাদেশের সরকার প্রথম দফায় ২৬ মার্চ থেকে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে৷ তা এখন ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে৷ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে যান চলাচল৷ বিভিন্ন এলাকাকে লকডাউনের আওতায়ও আনা হয়৷ এসব কারণে দিনমজুর, শ্রমিক থেকে শুরু করে নিম্নবিত্তরা আর্থিকভাবে চরম সংকটে পড়েছেন৷ 

৬৪ টি জেলায় চালানো ব্র্যাকের জরিপ অনুযায়ী, তাদের ৭২ শতাংশের কাজ কমে গেছে, নয়তো তারা আয়ের সুযোগ হারিয়েছেন৷ আট ভাগের কাজ থাকলেও মজুরি থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন৷

ব্র্যাকের জরিপ চলাকালীন ১৪ ভাগ মানুষের ঘরে কোনো খাবার ছিল না৷ ২৯ ভাগের ঘরে ছিল এক থেকে তিন দিনের খাবার৷ সরকারের জরুরি ত্রান পৌঁছেছে মাত্র চার শতাংশ মানুষের কাছে৷

এমন অবস্থায় যারা গ্রামে ফিরে গেছেন, তাদের কাছে দ্রুত খাদ্য পৌছানোর সুপারিশ করেছে ব্র্যাক৷ সেই সঙ্গে কৃষক যাতে ফসলের সঠিক দাম পায় সেজন্য আগাম ধান ক্রয় অভিযানের পরামর্শ দিয়েছে সংস্থাটি৷

এফএস/এসিবি

২০ মার্চের ছবিঘর দেখুন...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন