করোনায় কম্পিত নয় কলকাতা | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 09.03.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

করোনায় কম্পিত নয় কলকাতা

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ভারতজুড়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠান বাতিল হয়ে যাচ্ছে৷ কলকাতা সেখানে ব্যতিক্রম৷ সোমবার, দোল উৎসবের দিন শহর যথারীতি মাতল উৎসবে৷

দোলযাত্রা কিংবা বসন্ত উৎসব, যে নামেই ডাকা হোক, এবছর তা পালিত হয়নি শান্তিনিকেতনের বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে৷ কারণ, করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ভয়৷ এই বসন্তে বাংলায় এই নজিরবিহীন অঘটনই সবথেকে বড় খবর৷

ওদিকে করোনা আতঙ্কে এ বছরের হোলি উৎসবে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ৷ বাতিল হয়ে যাচ্ছে এক একটি সরকারি অনুষ্ঠান৷ এই আতঙ্কের আবহে কলকাতাতেও দোলপূর্ণিমার চিরাচরিত রং খেলা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হবে না, এরকম একটা সম্ভাবনা দেখা দিয়েছিল৷ অন্তত শহরের বিভিন্ন বাজারে রঙের দোকানে অন্যান্যবারের তুলনায় যথেষ্ট কম ভিড় এবার কারণ হয়েছিল উদ্বেগের৷ কিন্তু শেষ পর্যন্ত রং বা রঙিন আবীর খেলা প্রতীকি স্তরে থাকলেও কলকাতার বিভিন্ন এলাকায় হল প্রভাত ফেরী, নাচ, গান এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান৷ করোনা ভাইরাসের ভ্রুকুটি অগ্রাহ্য করেই রীতিমত ভিড় হল সেই সব অনুষ্ঠানে৷

দক্ষিণ কলকাতায় শহরের মেয়র এবং রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম এদিন আত্মীয়, বন্ধুদের সঙ্গে প্রতিবারের মতো রংও খেলেন৷ রাজ্যের আরেক মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য আয়োজন করেন এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার৷ এলাকার নারীরা সেই পদযাত্রায় সামিল হয়েছিলেন৷ তাঁদের মধ্যে ছিলেন সঞ্চারী চক্রবর্তী৷ সঙ্গীতশিল্পী সঞ্চারি তাঁর দুই মেয়েকে নিয়ে এই শোভাযাত্রায় গান গাইতে গাইতে হেঁটেছেন৷ ভয় করেনি৷ ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন সঞ্চারী৷ করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে প্রাথমিক যে সাবধানতা নেওয়া দরকার, সেটা তিনি বা তাঁর মেয়েরা নিয়েছেন৷ যেমন অন্য কারও সঙ্গে খুব ঘনিষ্ঠ না হওয়া, হাতে–মুখে রং না মাখানো৷ কিন্তু তা বাদ দিয়ে এই সমবেত উদযাপনে তাঁর পরিবারের কোনও দ্বিধা ছিল না৷

ওদিকে এই প্রথম শান্তিনিকেতন বিশ্বভারতীতে বন্ধ থাকল বসন্ত উৎসব৷ প্রতিবছরই এই উৎসব দেখতে বহু মানুষ আসেন, এবারও এসেছিলেন৷ কিন্তু তাঁদের বিশ্বভারতী চত্বরে ঢুকতে পর্যন্ত দেওয়া হয়নি৷ ব্যারিকেড দিয়ে কার্যত অবরুদ্ধই রাখা হয়েছিল ছাতিমতলা, আম্রকুঞ্জ৷ করোনাই কি বাঁচিয়ে দিল? 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন