1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
ছবি: Getty Images/AFP/S. Sukumar

করোনার জন্য পিছিয়ে গেল আইপিএল

১৩ মার্চ ২০২০

অত্যন্ত জনপ্রিয় টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট আইপিএল আপাতত ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত পিছিয়ে দেওয়া হলো৷ করোনা যেভাবে ছড়াচ্ছে, তার পরিপ্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)৷

https://p.dw.com/p/3ZLoJ

বিসিসিআই সিদ্ধান্ত নিয়েছে, ২৯ মার্চের পরিবর্তে আইপিএল শুরু হবে ১৫ এপ্রিল থেকে৷ দিল্লি সরকার অবশ্য ইতিমধ্যেই ঘোষণা করে দিয়েছে,  রাজধানীতে আইপিএলের কোনো ম্যাচ হবে না৷ দিল্লির উপ মুখ্যমন্ত্রী মনীষ সিসোদিয়া জানিয়েছেন, শুধু আইপিএলই নয়, রাজধানীতে এখন কোনো ক্রীড়ানুষ্ঠান করা যাবে না৷ করোনাকে রুখতে গেলে জনসমাগম বন্ধ করতে হবে৷ দিল্লি সরকার বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়ে দিয়েছে, খুব বেশি হলে ২০০ লোকের জমায়েত হতে পারবে৷ তার বেশি লোক নিয়ে কোনো সেমিনার, বৈঠকও হতে পারবে না৷

আইপিএলের ভবিষ্যৎ নিয়ে শনিবার আনুষ্ঠানিকভাবে বৈঠকে বসছে বিসিসিআই৷ তার আগেই আইপিএল পিছিয়ে দেওয়ার কথা জানিয়ে দেওয়া হলো৷ 

আইপিএল নিয়ে মূলত দুটি বিকল্প ছিল বিসিসিআই-এর সামনে৷ আইপিএল পিছিয়ে দেওয়া বা দর্শকশূণ্য স্টেডিয়ামে ম্যাচ করা৷ দর্শক না থাকলে আইপিএলের অর্ধেক মজা নষ্ট৷ ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো টিকিট বিক্রির টাকা পাবে না৷ সেক্ষেত্রে টিভিতেও দর্শকদের দেখানো সম্ভব হতো না, তাঁদের উচ্ছ্বাস, ম্যাচ দেখতে আসা বলিউড তারকাদের মুখ দেখানো সম্ভব হবে না৷ টিভিতে ম্যাচ দেখার মজাও কম হয়ে যেতো৷ আইপিএল মানে তো শুধু ক্রিকেট নয়, বিনোদনের পুরো প্যাকেজ৷ তার ওপর দিল্লি সরকার কোনো ঝুঁকি না নি়য়ে সব ম্যাচ বাতিল করে দিয়েছে৷ সে ক্ষেত্রে দিল্লির ম্যাচ অন্যত্র করতে হতো৷  আইপিএল ম্যাচ মানে দুই টিম, আম্পায়ার, গ্রাউন্ড স্টাফ, কর্মকর্তা, পুলিশ, টিভি ক্যামেরাম্যানের বিশাল দল স্টেডিয়ামে থাকবে৷ ফলে দর্শক না থাকলেও প্রচুর লোক স্টেডিয়ামে থাকতো৷

আরেকটা সমস্যাও ছিল৷ ৩১ মার্চের আগে বিদেশি ক্রিকেটাররা ভারতে আসতে পারবেন না৷ কারণ, ৩১ মার্চ পর্যন্ত সব ভিসা বাতিল করা হয়েছে৷ সেই সময়সীমা যে আরো বাড়বে না, তার কোনো নিশ্চয়তা নেই৷ বরং তা আরো বাড়ার যথেষ্ট আশঙ্কা আছে৷ কারণ, ইউরোপীয় দেশগুলিতে ও অ্যামেরিকায় আগামী দিনে পরিস্থিতি আরো খারাপ হতে পারে বলে বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন৷ প্রশ্ন হলো, এই অবস্থায় কতটা ঝুঁকি নিতে পারবে বিসিসিআই? সে জন্যই আপাতত আইপিএল পিছিয়ে দেওয়া হলো৷

১৫ তারিখের পরেও কি আইপিএল হতে পারবে? ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের সাংবাদিক অবন্তিকা ঘোষ ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন, ‘‘আইপিএল তখন হতে পারবে কিনা, তা বিশ্ব পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে৷ বিশ্বের অন্য দেশের পরিস্থিতি খারাপ হলে ভিসা নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়বে৷''  

জিএইচ/এসিবি (পিটিআই, এএনআই)

স্কিপ নেক্সট সেকশন সম্পর্কিত বিষয়
স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

Bangladesch |  Chaos am Flughafen Dhaka

মালয়েশিয়ায় চাকরি: ৭৯ হাজার টাকার খরচ বেড়ে পাঁচ লাখ

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ
প্রথম পাতায় যান