করোনার বিস্তার রোধে সিলেট-৩-এর উপ-নির্বাচন স্থগিত | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 26.07.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

করোনার বিস্তার রোধে সিলেট-৩-এর উপ-নির্বাচন স্থগিত

সিলেট-৩ আসনের বুধবার অনুষ্ঠেয় উপ-নির্বাচন আগামী ৫ অগাস্ট পর্যন্ত স্থগিত করেছে হাইকোর্ট৷ করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে আইনজীবী এবং ওই আসনের ভোটারদের পক্ষ থেকে করা আবেদনের ভিত্তিতে এই সিদ্ধান্ত দিয়েছে হাইকোর্ট৷

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জানায়, সুপ্রিম কোর্টের ছয় আইনজীবী এবং ওই আসনের সাত ভোটার নির্বাচন স্থগিত চেয়ে রিট আবেদন করেন৷ আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের ভার্চুয়াল একক বেঞ্চ এ স্থগিতাদেশ দেয়৷

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. শিশির মনির৷ রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার৷ নির্বাচন স্থগিত চেয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদাকে উকিল নোটিস পাঠানোর পর সোমবার সকালে হাই কোর্টে রিট আবেদনটি করা হয়৷

নির্বাচন কমিশন সচিব হুমায়ুন কবীর খোন্দকার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, "আমরা আদালতের একটি আাদেশ পেয়েছি৷ সিলেট-৩ আসনের উপ নির্বাচন ৫ আগস্ট পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে৷'' মহামারির কারণে নির্বাচনের তারিখ কয়েক দফা পিছিয়ে ২৮ জুলাই দিয়েছিল নির্বাচন কমিশন, সেই তারিখও এখন পিছিয়ে গেল৷

গত ১১ মার্চ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর মৃত্যুতে সিলেট-৩ আসনটি শূন্য ঘোষণা করা হয়৷ সংবিধানের ১২৩ অনুচ্ছেদের শর্ত ৪ অনুযায়ী শূন্য পদ নব্বই দিনের মধ্যে পূরণ করা বাধ্যবাধকতামূলক৷ তবে দৈব-দূর্বিপাকের কারণে নব্বই দিনের মধ্যে নির্বাচন করা না হলে পরবর্তী নব্বই দিনের মধ্যে নির্বাচন করার কথা বলা আছে৷ সে অনুযায়ী ১০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সময় পাচ্ছে নির্বাচন কমিশন৷

রিটকারীর পক্ষের আইনজীবী শিশির মনির বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, "সিলেটে কোভিড পরিস্থিতি ব্যাপক আকার ধারণ করেছে৷ আমাদের যুক্তি বিবেচনায় নিয়ে উপ-নির্বাচনটি স্থগিত করেছে হাইকোর্ট৷''

এনএস/এসিবি (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম) 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়