কড়া নিরাপত্তায় ভবানীপুরে ভোট শুরু | বিশ্ব | DW | 30.09.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

কড়া নিরাপত্তায় ভবানীপুরে ভোট শুরু

ভবানীপুর উপনির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু। সকাল আটটা থেকেই ভোট শুরু হয়েছে কড়া নিরাপত্তার মধ্যে। 

ভবানীপুর উপনির্বাচনে নিরাপত্তার যথেষ্ট কড়াকড়ি আছে।

ভবানীপুর উপনির্বাচনে নিরাপত্তার যথেষ্ট কড়াকড়ি আছে।

ভবানীপুর খুব একটা বড় বিধানসভা কেন্দ্র নয়। কিন্তু যেহেতু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এখানে প্রার্থী এবং গোটা রাজ্যের নজর এই কেন্দ্রের উপর, তাই নির্বাচন কমিশন কোনো ঝুঁকি নেয়নি। সাড়ে তিন হাজার কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ান মোতায়েন করা হয়েছে। সঙ্গে আছে কলকাতা পুলিশ। প্রতিটি বুথে রয়েছে সিসিটিভি ক্যামেরা। আছেন প্রচুর ভোট পর্যবেক্ষক।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সকালে ভোট দিতে বেরোননি। তিনি পরের দিকে ভোট দেবেন বলে সূত্র জানাচ্ছে। সাধারণত, নিজের কেন্দ্রে ভোট হলে মমতা বাড়িতেই থাকেন। এদিনও এখনো পর্যন্ত তিনি বাড়িতেই আছেন। যার উপরে ভোটের দায়িত্ব দিয়েছেন মমতা, সেই রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম চেতলা অফিসে বসে সবকিছুর উপর নজর রাখছেন। বুথে ঘুরছেন তৃণমূলের কোঅর্ডিনেটররা।

Indien I Wahlbezirk Bhawanipur in Kolkata

সকাল থেকে বুথে ঘুরছেন বিজেপি প্রার্থী প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়াল।

কিন্তু বাকি দুই প্রতিদ্বন্দ্বী বিজেপি-র প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়াল এবং সিপিএমের শ্রীজীব বিশ্বাস সকাল থেকে ঘুরছেন। প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়াল মিত্র ইনস্টিটিউশনের বুথ থেকে বেরিয়ে অভিযোগ করেছেন, ১২৬ নম্বর বুথে ইভিএমে কারচুপি হয়েছে। এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে নির্বাচন কমিশন। তারা জানিয়েছে, মক পোলের জন্য বুথে ভোট শুরু করতে কিছুটা দেরি হয়েছে।

Indien I Wahlbezirk Bhawanipur in Kolkata

প্রতিটি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী ও পুলিশ কর্মীরা সজাগ প্রহরার কাজে।

প্রিয়ঙ্কা আপত্তি জানিয়েছেন, বুথের কাছে দোকান খুলে রাখা নিয়েও। তার দাবি, ১৪৪ ধারা জারি আছে। সেখানে দোকান কী করে খোলা থাকে? তবে শ্রীজীব বলেছেন, এটা মানুষের রুটি-রুজির প্রশ্ন। তাই দোকান খোলা থাকলে তাদের আপত্তি নেই।

সকাল থেকে ভোটপর্ব চললেও এখনো বুথে লাইন নেই। মানুষ আসছেন, ভোট দিয়ে চলে যাচ্ছেন। লম্বা লাইনের গল্প এখনো নেই, তবেবেলার দিকে সেটা হতে পারে।