ওরা কি মানুষ? | বিশ্ব | DW | 26.04.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বাংলাদেশ

ওরা কি মানুষ?

অকাল বন্যায় সব ফসল নষ্ট হওয়ায় হাওর অঞ্চলের মানুষ বিপর্যস্ত৷ অথচ এ সময়েই বাংলাদেশ হাওর ও জলাভূমি উন্নয়ন অধিদপ্তরের পাঁচ শীর্ষ কর্মকর্তার চারজনই দেশের বাইরে৷ বিষয়টি নিয়ে আলোচনা চলছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে৷

এপ্রিলের শুরুতে টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে সিলেট, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ ও নেত্রকোণার হাওরের বোরো ধানের খেত তলিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কয়েক লাখ পরিবার৷ ধান নষ্ট হওয়ার পর বিষক্রিয়ায় মারা গেছে হাওরের মাছ, হাঁস৷ সব হারিয়ে নিঃস্ব হাওর অঞ্চলের মানুষ৷ এর মধ্যে টাঙ্গুয়ার হাওরে বন্যার পানিতে মাছ, ব্যাঙ ও হাঁসের মৃত্যুর ঘটনায় সেখানকার জনমনে বেশ আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছিল৷ তবে আজ বাংলাদেশ পারমাণবিক শক্তি কমিশন জানিয়েছে, ঐ পানিতে তেজষ্ক্রিয়ার মাত্রা অনেক কম৷ তাই হাকালুকি হাওর থেকে মাছ ধরার নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়েছে৷

বাংলাদেশের সীমান্ত থেকে মাত্র তিন কিলোমিটার দূরে ভারতের মেঘালয় রাজ্যে রয়েছে ওপেনপিট ইউরেনিয়াম খনি৷ বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা ইউরেনিয়ামের বিষক্রিয়ায় বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে টাঙ্গুয়ার হাওরের পানিতে জলজপ্রাণীর এমন অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘটতে পারে৷

হাওর পরিস্থিতি দেখতে রোববার সুনামগঞ্জের হাওর এলাকায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী৷

এদিকে, হাওর অঞ্চলের মানুষের দুর্গতির মধ্যে বাংলাদেশ হাওর ও জলাভূমি উন্নয়ন অধিদপ্তরের পাঁচ শীর্ষ কর্মকর্তার মধ্যে মহাপরিচালকসহ চারজনই দেশের বাইরে অবস্থান করছেন৷ সরকারি একটি কর্মসূচিতে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে এই কর্মকর্তারা ক্যানাডায় অবস্থান করছেন৷ এ নিয়ে ফেসবুকে কঠোর সমালোচনা চলছে৷

তুষার তুষকি ফেসবুক পাতায় লিখেছেন, ‘‘এই আমাদের সোনার বাংলা৷ দেশের সাধারণ কৃষক মরলে কোনো ক্ষতি নাই৷ কিন্তু জনগণের টাকায় বিদেশ সফর বাদ দিলে অনেক ক্ষতি হবে৷ সত্যিই সেলুকাস কি বিচিত্র এই সিস্টেম, এসব দেখার কেউ নাই!’’

ডা. ইমরান এইচ সরকার ফেসবুকে সংবাদটি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘‘আমি জানি, এরপরও দেশে আসার পর এদের কোনো শাস্তি হবে না৷ এমনকি প্রোমোশনও হতে পারে! কারণ এটা উল্টো রাজার উল্টো দেশ৷’’

কামরুল হাসান একই প্রসঙ্গে লিখেছেন, ‘‘হাওর অধিদপ্তরের সকল উচ্চ পদস্থ কর্মকতা এখন ক্যানাডায় ভ্রমণে গেছেন৷ গত ১৮ তারিখে তারা আকাশে উড়েছেন ক্যানাডার পথে যখন হাওরের কান্নার সারা দেশ কাঁদছে৷'' তিনি প্রশ্ন রেখেছেন, ‘‘ওরা কি মানুষ? ভাবতে কষ্ট হয়! এই অপরাধের সাজা হবে ভেবে পাচ্ছি না৷’’

মনজুরুল আলম পান্না লিখেছেন, ‘‘উজান থেকে আসা ঢলে ভেসে গেছে বিস্তীর্ণ হাওর এলাকার ফসল৷ রাতারাতি সেখানকার মানুষ নিঃস্ব হয়ে গেছে৷ হঠাৎ বিপদে পড়া এই মানুষদের পাশে আমরা দাঁড়াতে চাই৷’’ অন্যদেরও এই নিঃস্ব মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন তিনি৷

ফারজানা শারমীন মৌসুমী লিখেছেন, ‘‘হাওর এলাকায় সরকারের ত্রাণ কার্যক্রম তদারকি জোরদার ও গণমাধ্যমে তা প্রচারের ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷’’

মাহমুদুল হাসান হাওর এলাকার পরিস্থিতি বর্ণনা করতে গিয়ে প্রথম আলোর একটি বিশেষ প্রতিবেদন শেয়ার করে লিখেছেন, ‘‘আজ সুনামগঞ্জের পাকনার হাওর ডুবে যাওয়ায় ১৪২টি হাওরের সবগুলো এখন পানির নিচে৷ এই মুহূর্তে হাওর অঞ্চলের সবগুলো জেলাই অনেক ক্ষতিগ্রস্ত৷ দূর্গত এলাকা ঘোষণায় আর কি কি হারানো দরকার আমার বোধগম্য না! সরকার কিছু বরাদ্দ করেছে বটে তবে সেটা বিপুল সংখ্যক আক্রান্ত মানুষের তুলনায় খুবই নগন্য৷’’

তারেক মাহমুদুর রহমান উকিল আলী নামের এক বৃদ্ধের ছবি শেয়ার করে লিখেছেন, ‘‘৭০বছর বয়সি উকিল আলী, সুনামগ‌ঞ্জের দেখার হাওরের কৃষক৷ টানা বর্ষণ ও পাহা‌ড়ি ঢ‌লে তার বো‌রো জ‌মির ফসল পা‌নি‌তে ত‌লি‌য়ে গে‌ছে৷ বৃহস্প‌তিবার দুপু‌রে ঘ‌রে ভাত না থাকায় না‌তি-নাত‌নি‌তের বিস্কুট খাওয়ানোর বিষয়‌টি সাংবা‌দিক‌দের কা‌ছে বল‌ছি‌লেন তিনি৷ সুনামগ‌ঞ্জের শত হাওরের হাজা‌রো কৃষকের অবস্থা একই৷’’

দেশের বেশিরভাগ দুর্যোগের সময়ই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এগিয়ে আসেন৷ এবারও তারা ত্রাণ সংগ্রহ ও বিতরণের উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন৷ সেই উদ্যোগের কথা জানিয়ে ফেসবুকে এফ এম শাহীন লিখেছেন, ‘‘ হাওর বাঁচাও৷ দুর্গত হাওরবাসীর পাশে দাঁড়াতে আমরা আজ টিএসসি তে মিলিত হয়েছিলাম৷ আগামীকাল থেকে টিএসসি অফিসে ত্রাণ সংগ্রহের কাজ শুরু হচ্ছে৷ সকলের কাছে আহ্বান হাওরবাসীর পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে আসুন৷’’

সংকলন: অমৃতা পারভেজ

সম্পাদনা: আশীষ চক্রবর্ত্তী

প্রিয় পাঠক, আপনি কিছু বলতে চাইলে লিখুন নীচে মন্তব্যের ঘরে...

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন