‘এসএমএস’ প্রজন্মের জন্য বলিউডে হবে ছবি | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 14.03.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

‘এসএমএস’ প্রজন্মের জন্য বলিউডে হবে ছবি

ভারতের নতুন প্রজন্মটাকে বলা হচ্ছে ‘এসএমএস’ প্রজন্ম৷ বলিউডের সিনেমা ব্যবসায়ীদের এবারের টার্গেট এই নতুন তরুণ প্রজন্ম৷ আর এই বয়সি দর্শকদের সিনেমা হলে আনতে তাই চলছে নানা আয়োজন, চেষ্টা৷

Bollywood, actor, Aamir, Khan, Sharman, Joshi, Madhavan, media, movie, Mumbai, India, শাহরুখ, আমির, সালমান, ছবি, নতুন, প্রজন্ম, চলচ্চিত্র

শাহরুখ, আমির, সালমানরা নাকি এখন বুড়িয়ে গেছেন, তাই এবার নতুনদের নিয়ে ছবি (ফাইল ছবি)

১৮ থেকে ২৫ বছর বয়সটা যেন অন্যরকম৷ হাতে সময় নেই৷ তাই সব কাজ দ্রুত সেরে ফেলতে চান তারা৷ আর এখন তো এই প্রজন্মের সব কিছুই আধুনিক৷ আধুনিক চিন্তা ভাবনা, আধুনিক প্রযুক্তি নিয়ে তারা এগিয়ে যাচ্ছেন৷ এই প্রজন্মকে সিনেমা হলে আনতে, মানে এক কথায় সিনেমার ব্যবসায় অর্থকড়ি যোগ করতে নতুন নতুন পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে বলিউডের ব্যবসায়ীরা৷ বলে রাখা দরকার, বলিউডের ছবির দর্শকদের অন্তত ষাট শতাংশ দর্শক কিন্তু ঐ বয়সেরই৷

দেখতে দেখতে অনেক সময় চলে গেছে৷ শাহরুখ খান, আমির খান এবং সলমান খানের বয়স দেখতে দেখতে অনেক হয়ে গেছে৷ তাদের সকলের বয়স মধ্য চল্লিশের কোটায়৷ এই বয়সেও তাঁরা অভিনয় করছেন৷ এবং তাও আবার তরুণ নায়কের চরিত্রে৷ ফলে এদের প্রতি নাকি তরুণ দর্শকরা তেমন একটা আগ্রহ দেখাচ্ছেন না৷ যদিও তরুণ প্রজন্মের পোশাক পরিচ্ছেদ, এমন কী তাদের আচার-আচরণও নকল করছেন তারা৷ কিন্তু বয়স বলে তো একটি বিষয় আছে৷ মেকআপ দিলেই কী আর সব হয়!

কিন্তু এভাবে তো আর চলতে পারা যায় না৷ তাই ইয়শরাজ ফিল্মস এবং বিক্রম১৮ মোশন পিকচার্স নামের বলিউডের বড় ফিল্ম কোম্পানি তরুণদের দিয়ে এবং তাদের নিয়ে ছবি বানাবার উদ্যোগ নিয়েছে৷ পুরানো নয়, একেবারে নতুন নায়ক নায়িকা থাকবে তাদের ছবিতে৷ অভিনেতা অভিনেত্রীদের বয়স হবে ১৮ থেকে ২৫৷ আর ছবির পরিচালকের বয়স ৩০ এর বেশি নয়৷ কাহিনীতে থাকবে গতি, প্রযুক্তি আর প্রেম-রোমাঞ্চ তো আছেই৷ খুব শিগগির শুরু হচ্ছে এই সব নতুন তরুণ মুখের সন্ধান৷

প্রতিবেদন: সাগর সরওয়ার

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

বিজ্ঞাপন