এখনও উত্তাল উত্তর-পূর্ব ভারত, প্রতিবাদ ছড়াচ্ছে | বিশ্ব | DW | 13.12.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

এখনও উত্তাল উত্তর-পূর্ব ভারত, প্রতিবাদ ছড়াচ্ছে

আন্দোলনে উত্তাল আসামে পুলিশের গুলিতে দুজনের মৃত্যু হল৷ তারপরেও আন্দোলন থামেনি৷ বরং আসাম থেকে তা দেশের অন্য রাজ্যে ছড়াচ্ছে৷ বৃহস্পতিবার থেকে কার্ফু জারি হয়েছে মেঘালয়েও৷

নাগরিকত্ব বিলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে উত্তাল গুয়াহাটিতে শুক্রবার সকাল থেকে শুরু হয়েছে দশ ঘণ্টার অনশন৷ পরিস্থিতি খারাপ দেখে দশ জেলায় মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা শনিবার পর্যন্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ তবে গুয়াহাটি ও ডিব্রুগড়ে কার্ফু দুপুর একটা পর্যন্ত শিথিল করা হয়েছে৷ গুয়াহাটি, তিনসুকিয়া, ডিব্রুগড়ে সেনা মোতায়েন করা হয়েছে৷ এই পরিস্থিতিতে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে তাঁর ভারত সফর বাতিল করেছেন৷ কারণ, মোদীর সঙ্গে তাঁর শীর্ষ বৈঠক আসামেই হওয়ার কথা ছিল৷ অসম প্রতিদিনের প্রবীণ সাংবাদিক আশিস গুপ্ত ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন, ''শুক্রবার সকালেও গুয়াহাটিতে বেশ কিছু জায়গায় টায়ার পোড়ানো হয়েছে৷ আসামের ছাত্র দল আসুর ডাকে দশ ঘন্টার অনশন শুরু হয়ে গিয়েছে৷ বুদ্ধিজীবীরাও অনশনে যোগ দিয়েছেন৷ তবে তাঁরা সকলেই শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ জানানোর জন্য আবেদন জানিয়েছেন৷ বিক্ষোভকারীদের অভিযোগ, তাঁদের বদনাম করার জন্য কিছু লোক উদ্দেশ্যমূলকভাবে হিংসার আশ্রয় নিয়েছে৷''   

অডিও শুনুন 02:02

‘গুয়াহাটিতে গাড়ি যাচ্ছে না’

আসামসহ উত্তর পূর্বের বিভিন্ন রাজ্যে প্রচুর পর্যটক আটকে পড়েছেন৷ যার মধ্যে বড় অংশ পশ্চিমবঙ্গ থেকে গিয়েছেন৷ কাজিরাঙ্গায় আটকে পড়া এমনই এক পর্যটক সুজন পাঠক ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন, ''শুক্রবার সন্ধ্যায় আমার কলকাতায় ফেরার বিমান ছিল গুয়াহাটি থেকে৷ কিন্তু কাজিরাঙ্গা থেকে একটা গাড়িও গুয়াহাটি যাচ্ছে না৷ আমরা পুরোপুরি আটকে পড়েছি৷ সরকার কিছুই করছে না৷ এর আগে মেঘালয়ে ছিলাম৷ সেখানে যাওয়ার একদিন পরেই বনধ শুরু হয়ে যায়৷ সব দোকান বন্ধ ছিল৷ কিছু হোটেলে ঝাঁপ ফেলে খেতে দিয়েছিল বলে অভুক্ত থাকতে হয়নি৷''

নাগরিকত্ব বিল নিয়ে প্রতিবাদ শুধু উত্তর-পূর্বে হচ্ছে তা নয়, বরং তা দেশের অনেক রাজ্যেই ছড়িয়েছে৷ পশ্চিমবঙ্গ, উত্তর প্রদেশ, দিল্লির পর শুক্রবার তামিলনাড়ুতে ডিএমকে কর্মীরা নাগরিকত্ব বিলের প্রতিবাদে পথে নেমেছেন৷ পশ্চিমবঙ্গ, পাঞ্জাব এবং কেরালা সরকার নাগরিকত্বসংশোধনী আইন চালু করবে না, এমন বার্তা দিয়ে রেখেছে৷ রাজ্যসভায় বিতর্কের জবাব দিতে গিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ অবশ্য বলেছিলেন, সারা দেশে নতুন আইন চালু হবে৷ কোনও রাজ্য তা চালু করবে না, এটা হতে পারে না৷

জিএইচ/এসজি(এনডিটিভি, নিউজ ১৮)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

বিজ্ঞাপন