এক নজরে ২০১০-এর ঘটনাবহুল বিশ্ব ক্রিকেট | খেলাধুলা | DW | 22.12.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

এক নজরে ২০১০-এর ঘটনাবহুল বিশ্ব ক্রিকেট

মোহাম্মদ আমিরের বোলিংসহ কিছু বিতর্কিত বিষয় ছাড়াও বিশ্ব ক্রিকেটে ২০১০ সালে বেশ কিছু ঘটনা ঘটেছে৷ জুলাই মাসে পাকিস্তানের এই ক্রিকেটারের বাঁ-হাতি সুইং বোলিং’এর দুর্দান্ত চাপে কুপোকাত হয় অস্ট্রেলিয়া মাত্র ৮৮ রানে৷

default

পাকিস্তানের ক্রিকেট তারকা মোহাম্মদ আমির

এই সাফল্যের জের শেষ হতে না হতেই পাকিস্তানের বোলার মোহাম্মদ আমির, মোহাম্মদ আসিফ এবং ক্যাপটেন সালমান বাটের বিরুদ্ধে স্পট-ফিক্সিং-এর অভিযোগ ওঠে৷ আদালতে যার শুনানি অনুষ্ঠিত হবে খুব শিগগিরি৷ বিষয়টি নিয়ে কাতারের রাজধানী দোহাতে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল, আইসিসি-র শুনানি অনুষ্ঠিত হবে জানুয়ারি মাসেই৷ সেখানেই নির্ধারিত হবে তাদের ভাগ্য৷

Australien Cricket Meisterschaft Neuseeland

অস্ট্রেলিয়া টেস্ট ক্রিকেটের সেরা দল

অস্ট্রেলিয়া সফরের সময়ে একটি খেলাতেও জয়লাভ করতে না পারার জন্যে, বছরের প্রথম দিকে পাকিস্তান দল তাদের তিনজন সাবেক ক্যাপটেনকে নিষিদ্ধ করে৷ তারা হলেন, ইউনুস খান, মোহাম্মদ ইউসুফ এবং শোয়েব মালিক৷ এছাড়া পার্থে শহিদ আফ্রিদিকে বল বাইটিং ঘটনার জন্যে জরিমানা করা হয়৷ নভেম্বরে পাকিস্তান দলের উইকেট রক্ষক জুলকারনাইন হায়দার দুবাই থেকে পালিয়ে লন্ডনে চলে যান৷ দুবাইয়ে সেই সময়ে পাকিস্তান দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে খেলছিল৷ লন্ডনে পৌঁছে জুলকারনাইন বলেন, বেটিং করায় যারা, তারা তাকে হত্যার হুমকি দিয়েছে৷

ক্যারিবিয় দ্বীপপুঞ্জে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে ওয়ার্ল্ড টুয়েন্টি টুয়েন্টি টুর্নামেন্টে একদিনের টাইটেল জিতে নেয় ইংল্যান্ড৷ অস্ট্রেলিয়া টেস্ট ক্রিকেটের সেরা দল হলেও, ২০১০-এ আইসিসি-র ব়্যাংকিং-এ চতুর্থ স্থানে নেমে এসেছে৷

Cricket Bangladesh gegen Neuseeland

নিউজিল্যান্ডকে হারিয়ে চমক দেখিয়েছে বাংলাদেশ

ভারতের শচিন টেন্ডুলকার এই বছরেই একদিনের আন্তর্জাতিকে এই পর্যন্ত সর্বোচ্চ ২০০ স্কোর করে নতুন ব্যাটিং রেকর্ড গড়েছেন৷ প্রথম ৫০টি টেস্ট সেঞ্চুরি করার রেকর্ডও তাঁর এই বিদায়ী বছরেই৷

২০১০'এর অক্টোবরে একদিনের সিরিজে বাংলাদেশের কাছে নিউজিল্যান্ড ৪-০তে লজ্জাজনকভাবে পরাজিত হয়৷

২০১০ সালের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য অবসর গ্রহণ ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার মাখায়া এনটিনির৷ নিজের দেশের প্রতিনিধিত্বকারী তিনিই হলেন প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ আফ্রিকান৷ ১৩ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে এই ফাস্ট বোলার সুপরিচিত ছিলেন প্রচণ্ড শক্তি ও দৃঢ়তার কারণে৷

প্রতিবেদন:ফাহমিদা সুলতানা

সম্পাদনা:আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়