একান্নবর্তী পরিবারের পরিবেশবান্ধব বাড়ি | অন্বেষণ | DW | 03.08.2016
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

একান্নবর্তী পরিবারের পরিবেশবান্ধব বাড়ি

একই ছাদের নীচে একান্নবর্তী পরিবারের বসবাস ক্রমশঃ বিরল হয়ে উঠছে৷ কিন্তু আধুনিক স্থাপত্যরীতিতে তৈরি পরিবেশবান্ধব ও টেকসই একটি বাড়ি তৈরি করে এমনই এক স্বপ্ন পূরণ করেছেন এক স্থপতি৷

ইটালির সাউথ টিরোল প্রদেশের ফিচ এলাকায় পিশলার পরিবারের নতুন বাড়ি শোভা পাচ্ছে৷ ২০০৯ সাল থেকে তারা তথাকথিত ‘প্যাসিভ হাউস'-এ বসবাস করছে৷ অর্থাৎ বাড়ির ১৮০ বর্গ মিটার জুড়ে কোনো হিটিং ব্যবস্থা নেই৷ সৌরশক্তি সঞ্চয় করে বাড়ি স্বাধীনভাবে গরম রাখা হয়৷

স্থপতি আর্টুর পিশলার বাবা-মা সহ নিজস্ব পরিবারের জন্য বাড়িটি তৈরি করেছেন৷ নীচের দুই তলায় তিনি স্ত্রী ও তিন ছেলে-মেয়ে নিয়ে থাকেন৷ খোলা রান্নাঘর সহ বসার ঘরটিই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ৷ স্ত্রী ক্রিস্টিনে বলেন, ‘‘আমরা খোলামেলা ঘরের কথা ভেবেছিলাম৷ অর্থাৎ একটি ছাদের নীচে একটি ঘরেই পারিবারিক জীবন সাজানো হবে৷ তাই এখানে শোবার ঘর ও বাথরুম ছাড়া কোথাও কোনো দরজা নেই৷ বাকিটা সব একই জায়গায় রয়ছে৷''

বসার ঘরের সিলিং-এর উচ্চতা ৫ মিটার ৬০ সেন্টিমিটার৷ জানালা মেঝে পর্যন্ত বিস্তৃত৷ ফলে ঘরে অনেক আলো ঢোকে৷ একই সঙ্গে সাউথ টিরোল-এর মনোরম দৃশ্যও উপভোগ করা যায়৷ কাঠের থামগুলি সত্যি দেখার মতো, সেগুলির উপযোগিতাও রয়েছে৷

আর্টুর পিশলার বলেন, ‘‘এই সব থাম এই মুহূর্তে বাড়ি তৈরির উপকরণ মাত্র৷ তবে এর সুবিধা হলো, ভবিষ্যতে পরিবারের সদস্যসংখ্যা বাড়লে আরও ঘর যোগ করা সম্ভব হবে৷ এর জন্য বাড়ির থার্মাল খোলস বা বাইরের স্তরে পরিবর্তন করতে হবে না৷'

বাড়ির অনেক কিছুই কাঠ দিয়ে তৈরি৷ যেমন ভেতরের বারান্দা৷ আর্টুর পিশলার বলেন, ‘‘সিঁড়ির উপরের ঘরটি তেমন ব্যবহার হয় না৷ তাই সেটিকে আমরা আমাদের নিজস্ব যোগাযোগের জন্য গড়ে তুলতে চেয়েছিলাম৷ প্রথমে নিজের জন্য সুন্দর করে সাজাতে চেয়েছিলাম৷ শেষ পর্যন্ত সেটি বাচ্চাদের খেলার জায়গা হয়ে উঠলো৷ এখান থেকে সরাসরি রান্নাঘর আর বসার ঘর দেখা যায়৷''

গরম পানির জন্য একটি ছোট চুলা ছাড়া বাড়িতে অন্য কোনো হিটিং ব্যবস্থা নেই৷ সৌরশক্তি দিয়েই বাড়িটি গরম রাখা হয়৷ ভালো ইনসুলেশনের কারণে উত্তাপ পালাতে পারে না৷ বাড়িটি একেবারে এয়ার টাইট৷ তবে বাসিন্দারা যাতে যথেষ্ট অক্সিজেন পায়, তার জন্য একটি তাজা বাতাসের প্লান্ট রয়েছে৷ পিশলার বলেন, ‘‘এই স্ট্যারৎসিং শহরেও গ্রীষ্মে তাপমাত্রা ৩০ ডিগ্রি ছুঁতে পারে৷ ভুললে চলবে না, যে হিট ইনসুলেশন শীতে কাজে লাগে, গ্রীষ্মেও সেটি ঘর ঠান্ডা রাখে৷

দোতলায় বাবা-মার শোবার ঘর, বাথরুম ও শিশুদের ঘর৷ আর্টুর পিশলার-এর বাবা-মা তিন তলায় থাকেন৷ তাঁদের বারান্দা সহ ৭০ বর্গমিটার ফ্ল্যাটের আলাদা প্রবেশপথ রয়েছে৷ আর্টুর পিশলার বলেন, ‘‘সৌরশক্তি পেতে দক্ষিণ দিকে মুখ করে বাড়িটি বানানো খুব জরুরি ছিল৷ আমাদের এই ‘প্যাসিভ হাউস'-এর জ্যামিতির মধ্যে শান্তির আমেজ রয়েছে৷ চারিপাশের নিসর্গের সঙ্গে সেটা বেশ খাপ খেয়ে যায়৷''

এই স্থপতি একাধিক প্রজন্মের জন্য একটি বাড়ি তৈরি করতে সফল হয়েছেন, যে একই সঙ্গে টেকসই ও আধুনিক স্থাপত্যের মেলবন্ধন ঘটিয়েছে৷

''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক