একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড | বিশ্ব | DW | 22.11.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বাংলাদেশ

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড

একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধ চলার সময় গাইবান্ধায় মানবতাবিরোধী গুরুতর অপরাধের দায়ে জামায়াত নেতা, সাবেক সাংসদ আবু সালেহ মুহাম্মদ আব্দুল আজিজ মিয়াসহ ছয় জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল৷

প্রসিকিউটর সায়েদুল হক সুমন

রায়ের পর প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন প্রসিকিউটর সায়েদুল হক সুমন

বুধবার বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল বুধবার এ রায় ঘোষণা করে৷ আসামীদের বিরুদ্ধে আনা অপহরণ, নির্যাতন ও হত্যার অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে বলে রায়ে উল্লেখ করা হয়৷

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামীরা হলেন আব্দুল আজিজ মিয়া, মো. রুহুল আমিন ওরফে মঞ্জু, আবু মুসলিম মোহাম্মদ আলী,  মো. নাজমুল হুদা ও মো. আব্দুর রহিম মিঞা এবং আব্দুল লতিফ৷ তবে রায় ঘোষণার সময় শুধু আব্দুল লতিফ কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন৷ বাকিরা এখন পলাতক৷ ট্রাইব্যুনালের রায়ে পলাতক আসামিদের গ্রেপ্তার করে সাজা কার্যকর করার জন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পুলিশের আইজিকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার কথাও বলা হয়েছে৷

নিয়ম অনুযায়ী রায় ঘোষণার এক মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ আদালতে রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা যাবে৷

আদালতে উপস্থিত একমাত্র আসামি আব্দুল লতিফের আইনজীবী সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, তিনি আপিল করবেন৷ পলাতক পাঁচ আসামিকে আপিল করতে হলে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আত্মসমর্পণ করতে হবে৷

আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালে এ পর্যন্ত ২৯টি মামলার রায় হয়েছে৷ মামলাগুলোর ৬২ জন আসামির মধ্যে তিন জন বিচারাধীন অবস্থায় মারা যান৷ বাকি ৫৯ জনের সাজা হলেও ৩৬ জন যুদ্ধাপরাধীকে সর্বোচ্চ সাজা, অর্থাৎ মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছে৷

এসিবি/ডিজি (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন