‘একদিন সবারই বিচার হবে′ | বিশ্ব | DW | 07.08.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

‘একদিন সবারই বিচার হবে'

অনেকেই দলের ও প্রধানমন্ত্রীর পরিচয় কাজে লাগিয়ে দুর্নীতি এবং অত্যাচার করছেন বলে মনে করেন ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য নিক্সন চোধুরী৷ ফরিদপুরের সাংবাদিক প্রবীর শিকদারও মনে করেন, এখনও ‘গডফাদারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়নি৷

ডয়চে ভেলের ইউটিউবভিত্তিক সাপ্তাহিক টক শো ‘খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়'-এর এবারের পর্ব ছিল- ফরিদপুরে কী হচ্ছে?

ফরিদপুরের দুর্নীতি নিয়ে কথা বলতে ডয়চে ভেলে বাংলা বিভাগের প্রধান খালেদ মহিউদ্দীনের সঙ্গে অতিথি হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন সংসদ সদস্য নিক্সন চোধুরী৷ নিক্সন বলেন, ‘‘ফরিদপুরে টেন্ডারবাজি পুরোটাই ফরিদপুর শহর থেকে হয়৷ আমাদের উপজেলা পর্যায়ে এ ধরনের দুর্নীতি হয় না৷''

এক প্রশ্নের জবাবে নিক্সন বলেন, ‘‘আমার আগে যারা এখানে রাজনীতি করেছেন, তারা দুর্নীতি করেছেন, দল না করে বাহিনী চালিয়েছেন৷'' তৃণমূলের মানুষ সবসময়ই ফরিদপুর জেলার কাছে জিম্মি বলেও মনে করেন তিনি৷

আলোচনায় উঠে আসে বরকত ও রুবেল দুই ভাইয়ের দুর্নীতির বিষয়৷ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আত্মীয় খন্দকার মোশাররফের ছত্রছায়ায় তারা দুর্নীতি করে বলেও অভিযোগ রয়েছে৷ নিক্সন বলেন, ‘‘দুর্নীতির প্রশ্রয় ও টেন্ডারবাজি নিয়ন্ত্রণ করা হয় জেলা থেকে৷ ফরিদপুর শহর থেকেও টেন্ডারবাজি হয়৷ খন্দকার মোশাররফ যখন মন্ত্রী ছিলেন তখন থেকে এরা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে৷''

তবে রাষ্ট্রেরও এসব ক্ষেত্রে দায় আছে বলে মনে করেন নিক্সন চৌধুরী৷ কিন্তু দীর্ঘদিন এ নিয়ে লেখালেখি এবং প্রতিবাদের পর সরকার সে বিষয়ে ব্যবস্থা নিচ্ছে বলেও মন্তব্য তার৷

শুধু খন্দকার মোশাররফ নন, বরকত-রুবেলের মতো দুর্নীতিবাজদের ক্ষমতা পাওয়ার ক্ষেত্রে ফরিদপুর জেলা ও শহরের আওয়ামী লীগ নেতাদেরও দায় আছে বলে মনে করেন নিক্সন৷ তিনি অভিযোগ করেন, সরকার দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য হওয়ার ক্ষমতা কাজে লাগিয়ে কাজী জাফরুল্লাহ ফরিদপুরে অনেক দুর্নীতি করছেন৷ তবে সে  দুর্নীতিরও একদিন বিচার হবে বলে মনে করেন নিক্সন৷

সাংবাদিক প্রবীর শিকদার বলেন, শেখ হাসিনার প্রতিনিধি হিসেবে খন্দকার মোশাররফ হোসেনকে জনগণ বরণ করে নিয়েছিল, কিন্তু তিনি সে মর্যাদা রাখতে পারেননি৷

খন্দকার মোশাররফ হোসেন ও তার ভাই খন্দকার বাবর ফরিদপুরে লুটেরা রাজনীতির জনক বলে মন্তব্য করেন প্রবীর শিকদার৷ তিনি বলেন, ‘‘উনারা ভয়াবহ অপকর্ম করেছেন৷ আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার আসামীকে তার কর্মীরা কুপিয়েছেন৷ এই অপকর্মের দায় দুই ভাইকেই নিতে হবে৷''

বিভিন্ন সময় রাষ্ট্র বা পুলিশ কারো কাছ থেকে খন্দকার মোশাররফ ও তার ভাইয়ের অন্যায়-অত্যাচারের প্রতিকার চেয়েও পাননি বলে দাবি করেন তিনি৷

এডিকে/এসিবি

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন