‘‘একজন মুক্তিযোদ্ধা চিরকাল মুক্তিযোদ্ধা নহে′′ | বিশ্ব | DW | 19.06.2015
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘‘একজন মুক্তিযোদ্ধা চিরকাল মুক্তিযোদ্ধা নহে''

আদালত অবমাননার শাস্তি হিসেবে কাঠগড়ায় এক ঘণ্টা দাঁড়িয়ে ছিলেন৷ কিন্তু জরিমানা না দেয়ায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক জাফরুল্লাহ চৌধুরীকে গ্রেপ্তারে পরোয়ানা জারি করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল৷

গত ১০ জুন দেয়া এক রায়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে এই রায় দিয়েছিল ট্রাইব্যুনাল৷ ঐদিন জাফরুল্লাহ সহ ২৩ জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগে দায়ের করা মামলার রায় দেয়া হয়৷ রায়ে বাকি ২২ জনকে ক্ষমা করে দেয়া হয়৷ কারণ হিসেবে বলা হয় তাঁরা এ ধরণের কাজ প্রথম করেছেন৷ কিন্তু জাফরুল্লাহ আগেও এরকম করায় তাঁর বিরুদ্ধে কাঠগড়ায় এক ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকা এবং আরও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা দেয়ার রায় ঘোষণা করা হয়৷ উল্লেখ্য, ব্লগে ‘দায়িত্বজ্ঞানহীন' লেখার মাধ্যমে বিচারাধীন বিষয়ে বিভ্রান্তি ছড়ানোর দায়ে সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যানকে গতবছরের ২রা ডিসেম্বর সাজা দেয় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল৷ এতে উদ্বেগ প্রকাশ করে ৫০ জন নাগরিকের একটি বিবৃতি একটি সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়৷ ঐ ৫০ জনের মধ্যে জাফরুল্লাহও ছিলেন৷

এদিকে, এক ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থাকার সাজা ভোগের পর আদালতের বাইরে বেরিয়ে জাফরুল্লাহ তাঁর বিরুদ্ধে দেয়া রায়কে ট্রাইব্যুনালের তিন বিচারপতির ‘মানসিক অসুস্থতার ফল' বলে মন্তব্য করেছিলেন৷

বিচারকদের নিয়ে এমন মন্তব্য করার পরও জাফরুল্লাহ কীভাবে বাইরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তা নিয়ে সেসময় ফেসবুকে প্রশ্ন তুলেছিলেন সৈকত ভৌমিক৷

Symbolbild Gefangene der Liebe gefangen Band Verbindung

‘‘একজন রাজাকার চিরকাল রাজাকার, কিন্তু একজন মুক্তিযোদ্ধা চিরকাল মুক্তিযোদ্ধা নহে''

তিনি তাঁর স্ট্যাটাসে জাফরুল্লাহকে ‘বাংলাদেশ-বিরোধী রাজাকার গোষ্ঠীর পক্ষের বলিষ্ঠ কণ্ঠস্বর' বলে আখ্যায়িত করেন৷ ইতিহাস বিকৃতকারীদের শাস্তি কেনো শুধুমাত্র ৫,০০০ টাকা বা সামান্য কটা দিনের কারাবাস সেটা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তিনি৷

সৈকত ভৌমিকের এই স্ট্যাটাসের নীচে মন্তব্যের ঘরে জানে আলম জাফরুল্লাহকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে উল্লেখ করেন৷ তবে এর প্রতিক্রিয়ায় সৈকত ভৌমিক বলেন, ‘‘একজন রাজাকার চিরকাল রাজাকার, কিন্তু একজন মুক্তিযোদ্ধা চিরকাল মুক্তিযোদ্ধা নহে৷''

এদিকে, জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করায় সরকারের সমালোচনা করেছেন কেউ কেউ৷ ফেসবুকে শেয়ার হওয়া এ সংক্রান্ত একটি খবরের নীচে মুস্তাফিজ পারভেজ লিখেছেন, ‘‘জালিম যখন রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকে তখন সম্মানী লোকদের অসম্মান করে, এটা তারই এক নমুনা৷'' সাজিন মাহমুদের প্রশ্ন, এটাই কি মুক্তিযোদ্ধার প্রাপ্য সম্মান? কাজি মারুফ লিখেছেন, ‘‘পুরা বাংলাদেশটাই তো এখন কারাগার৷ তাই জাফরুল্লাহ স্যার ঠিক পথেই আছেন৷ আসুন আমরা সবাই তাঁর মতো সত্য কথাটা বলি৷''

সংকলন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন