উষ্ণতম গ্রীষ্ম ইউরোপ, চিন্তিত পরিবেশবিদরা | বিশ্ব | DW | 08.09.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

উষ্ণতম গ্রীষ্ম ইউরোপ, চিন্তিত পরিবেশবিদরা

জলবায়ু পরিবর্তনের ফল হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে ইউরোপ। একটা উষ্ণতম গ্রীষ্ম কাটাবার পর।

স্পেনের মতো দেশগুলিতে তাপমাত্রা ছিল যথেষ্ট বেশি।

স্পেনের মতো দেশগুলিতে তাপমাত্রা ছিল যথেষ্ট বেশি।

ইউরোপের মধ্যে ইটালি, গ্রিস, স্পেনের অবস্থা ছিল সব চেয়ে খারাপ। প্রচণ্ড গরমের সঙ্গী ছিল কম আর্দ্রতা ও  জোরে হাওয়া। এই তিনটি দেশ তো বটেই, সেই সঙ্গে তুরস্ক সহ একাধিক দেশ ভয়াবহ দাবানলের শিকার। সেই দাবানল দিনের পর দিন জ্বলেছে। অতি কষ্টে সেই দাবানলের মোকাবিলা করা গেছে।

মঙ্গলবার ইইউ কোপারনিকাস ক্লাইমেট সার্ভিস ঘোষণা করেছে, উষ্ণতম গরমকাল কাটিয়েছে ইউরোপ। এরপর পরিবেশ বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, সময় দ্রুত চলে যাচ্ছে। এখনই পরিবেশ বাঁচানোর জন্য ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। না হলে অনেক দেরি হয়ে যাবে।

কী বলছে কোপারনিকাস ক্লাইমেট সার্ভিস

কোপারনিকাস জানিয়েছে, ইউরোপে ১৯৯১ থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত গড় তাপমাত্রার থেকে এবারের তাপমাত্রা এক ডিগ্রি বেশি ছিল। ১৯৫০ সাল থেকে আবহাওয়ার তথ্য বিশ্লেষণ করে সংস্থা জানিয়েছে, এবারের গরমকাল ছিল ইউরোপে সব চেয়ে তীব্র ও ভয়ংকর।

ইটালি, গ্রিস ও স্পেনে তাপমাত্রা ছিল সব চেয়ে বেশি। ইটালির সিসিলিতে তাপমাত্রা উঠেছিল ৪৮ দশমিক আট ডিগ্রি সেলসিয়াস।

চরম আবহাওয়া

ইউরোপে এবার চরম আবহাওয়া ছিল। দাবানল যেমন হয়েছে। তেমনই হয়েছে ভয়ংকর বন্যা। জার্মানি, তুরস্ক সহ একাধিক দেশে বন্যা হয়েছে। বন্যায় ২৪২ জন মারা গেছেন। বাড়িঘর ভেঙেছে। রাস্তাঘাট ভেসে গেছে।

পরিবেশ বিজ্ঞানীরা বলছেন, উষ্ণায়নের জন্য এরকম হচ্ছে। গ্লেসিয়ার নিয়ে সাম্প্রতিক রিপোর্ট বলছে, আগামী কয়েক দশকে গ্লেশিয়ার গলে যাওয়ার হার বাড়বে। তাতে ইউরোপ ভয়ংকরভাবে প্রভাবিত হবে।

আগামী ৩১ অক্টোবর থেকে ১২ নভেম্বর স্কটল্যান্ডে জাতিসংঘের উদ্যোগে ক্লাইমেট চেঞ্জ কনফারেন্স হবে। সেখানে বিশ্বনেতারা পরিবেশ বাঁচানোর পথ নিয়ে আলোচনা করবেন।

জিএইচ/এসজি(এপি, এএফপি, রয়টার্স)

সংশ্লিষ্ট বিষয়