উন্নয়নশীল দেশে অসহায় প্রতিবন্ধী শিশুরা | বিশ্ব | DW | 03.06.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

উন্নয়নশীল দেশে অসহায় প্রতিবন্ধী শিশুরা

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রতিবন্ধী শিশুদের বৈষম্যের শিকার হতে হয়৷ ইউনিসেফ-এর সাম্প্রতিক রিপোর্টে পরিস্থিতির ভয়াবহ চিত্র উঠে এসেছে৷

UNICEF-Engagement für behinderte Kinder in Vietnam Foto: UNICEF Vietnam/Dominic Blewett Eingestellt: 28.5.2013

UNICEF-Engagement für behinderte Kinder

ভিয়েতনামের সান্দং শহরে থাকে উইয়েন৷ বয়স ৯৷ মানসিকভাবে প্রতিবন্ধী সে৷ বহুদিন সে দাদা-দাদির বাসায় থাকতো৷ স্কুল বা শিক্ষার অন্য কোনো পথও তার জন্য খোলা ছিল না৷ তারপর সমাজকর্মীদের কথায় দাদি তার নাতনিকে প্রতিবন্ধী শিশুদের বিশেষ শিক্ষাকেন্দ্রে ভর্তি করলেন৷ ইউনিসেফ-এর এক মুখপাত্র জানান, সে সময়ে উইয়েন হাঁটতে পারতো না, বেশি কথাও বলতে পারতো না৷ এখন সে আর পাঁচটা হাসিখুসি চনমনে শিশুর মতোই হয়ে উঠেছে৷ তাঁর মতে, প্রতিবন্ধী শিশুরা শিক্ষার সুযোগ পেলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এমনটাই ঘটে৷

উন্নয়নশীল দেশগুলির বেশিরভাগ শিশুরই উইয়েন-এর মতো সৌভাগ্য হয় না৷ এমনকি তাদের মধ্যে মাত্র ১৫ শতাংশ হুইলচেয়ারের মতো প্রয়োজনীয় সাহায্য পায়৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমান, মৃগী রোগীদের প্রায় তিন-চতুর্থাংশ ওষুধপত্র থেকে বঞ্চিত৷ তবে ইউনেস্কো-র প্রধান সমস্যা হলো, এ বিষয়ে নির্ভরযোগ্য তথ্য-পরিসংখ্যান পাওয়া কঠিন৷ বিশ্বের সব দেশ শিশুদের অধিকারকে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দিলেও কার্যক্ষেত্রে চিত্রটা সব দেশে সমান নয়৷ বিশেষ করে রাজনীতির ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধী শিশু ও তাদের পরিবারের তেমন গুরুত্ব না থাকায় অবহেলার ছাপ দেখা যায়৷

UNICEF-Engagement für behinderte Kinder in Vietnam Foto: UNICEF Vietnam/Dominic Blewett Eingestellt: 28.5.2013

ইউনেস্কো-র বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে প্রমাণ করা গেছে, প্রতিবন্ধী শিশুদের সমাজের মূল স্রোতে সম্পৃক্ত করা সম্ভব

শিল্পোন্নত দেশগুলির পরিস্থিতি অবশ্য একেবারে আলাদা৷ প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য সেখানে নানা রকমের সহায়তার ব্যবস্থা রয়েছে৷ বিশ্বের অন্যত্র এই ধরনের শিশুদের বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অবহেলা ও বৈষম্যের শিকার হতে হয়, এদের কথা কেউ মনেও করে না৷ তাদের নথিভুক্ত করতেও চায় না কর্তৃপক্ষ৷ পূর্ব ইউরোপের অনেক দেশে এখনো প্রতিবন্ধী শিশুদের পরিবারের সঙ্গে না রেখে বিশেষ ‘হোম'এ পাঠানোর জন্য উৎসাহ দেওয়া হয়৷ ইউনেস্কোর দাবি, সাধারণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই প্রতিবন্ধীদের আরও বেশি শামিল করতে হবে৷

এমন দাবির পেছনে নানা যুক্তি রয়েছে৷ ইউনেস্কো-র বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে প্রমাণ করা গেছে, প্রতিবন্ধী শিশুদের সমাজের মূল স্রোতে সম্পৃক্ত করা সম্ভব৷ যেমন আর্মেনিয়ায় শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দিয়ে সাফল্য এসেছে৷ সে দেশের স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রশিক্ষণ কর্মসূচির ফলেও প্রতিবন্ধী শিশুদের সহায়তার কাজ অনেক সহজ হয়ে গেছে৷

শুধু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নয়, প্রতিবন্ধী শিশুদের সহায়তার ক্ষেত্রে পরিবারের সদস্যদেরও সহায়তার প্রয়োজন পড়ে৷ জার্মানির ক্যাথলিক সম্প্রদায়ের সমাজকল্যাণমূলক প্রতিষ্ঠান ‘কারিটাস' অনেক দেশে এই উদ্যোগ নিচ্ছে৷ যেমন ভিয়েতনামে বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত স্বাস্থ্যকর্মীরা পরিবারের সদস্যদের শেখাচ্ছেন, কীভাবে তারা এমন শিশুদের দেখাশোনা করতে পারেন৷ প্রতিবন্ধীদের প্রতি সমাজের নেতিবাচক মনোভাবেরও পরিবর্তনের ক্ষেত্রে কাজ করছে এই প্রতিষ্ঠান৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন