উদ্ধবকে গরিষ্ঠতা প্রমাণের নির্দেশ, আদালতে শিবসেনা | বিশ্ব | DW | 29.06.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

উদ্ধবকে গরিষ্ঠতা প্রমাণের নির্দেশ, আদালতে শিবসেনা

মহারাষ্ট্রে বৃহস্পতিবারই সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের জন্য উদ্ধব ঠাকরেকে নির্দেশ দিলেন রাজ্যপাল। সুপ্রিম কোর্টে গেল শিবসেনা।

উদ্ধব ঠাকরেকে বিধানসভায় আস্থাভোট নিতে বললেন রাজ্যপাল কোশিয়ারি।

উদ্ধব ঠাকরেকে বিধানসভায় আস্থাভোট নিতে বললেন রাজ্যপাল কোশিয়ারি।

মহারাষ্ট্রের রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে নয়া মোড়। মঙ্গলবার রাজ্যপাল ভগত সিং কোশিয়ারির কাছে গিয়ে বিজেপি পরিষদীয় দলের নেতা দেবেন্দ্র ফড়নবিস দাবি করেছিলেন, উদ্ধব ঠাকরে সরকার সংখ্যালঘু। তাই বিধানসভায় শক্তিপরীক্ষার ব্যবস্থা করান রাজ্যপাল।

তারপরই রাজ্যপাল আর দেরি করেননি। তিনি বৃহস্পতিবার সকাল এগারোটায় উদ্ধব ঠাকরেকে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করার নির্দেশ দিয়েছেন। সুপ্রিম কোর্ট আগে একাধিকবার জানিয়েছে, কোনো সরকার সংখ্যাগরিষ্ঠ না সংখ্যালঘু তা বিচারের জায়গা হলো বিধানসভা। সেখানে ভোটাভুটিতে এর ফয়সালা করতে হবে।

সংখ্যার খেলা

শিবসেনার সাবেক মন্ত্রী একনাথ শিন্ডের বিদ্রোহে শিবসেনার আরো অন্তত ৩৮ জন যোগ দিয়েছেন। শিন্ডের দাবি, তার সঙ্গে ৩৯ জন শিবসেনা বিধায়ক আছেন। তাদের নিয়ে তিনি এতদিন আসামে ছিলেন। ওই বিধায়কদের ছবি ও ভিডিও তিনি শেয়ার করেছেন। ফলে উদ্ধবের সঙ্গে ১৬ জন বিধায়কই আছেন। ফলে উদ্ধবের নেতৃত্বাধীন শিবসেনা, এনসিপি ও কংগ্রেস জোটের কাছে সবমিলিয়ে খুব বেশি হলে ১১৩ জন মতো বিধায়ক আছেন। দুইজন এনসিপি বিধায়ক আবার করোনায় আক্রান্ত। জোটের দুই বিধায়ক জেলে আছেন। তারা ভোট দেয়ার জন্য আবেদন জানিয়েছেন।

আর বিজেপি ও শিন্ডে জোটের কাছে আছেন ১৫২ জন বিধায়ক। তার মধ্যে বিজেপি-র ১০৬, জেএসএসের এক এবং ছয়জন নির্দলও আছেন। এর সঙ্গে শিন্ডের ৩৯ জন বিধায়ক যোগ হলে সংখ্যাটা দাঁড়ায় ১৫২।

তর্কের খাতিয়ে যদি ধরে নেয়া হয়, ডেপুটি স্পিকার ১৬ জন বিধায়কের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলেন, তাহলেও বিজেপি ও বিক্ষুব্ধরা এগিয়ে থাকছেন।

এছাড়া এআইএমআইএমের দুইজন, সিপিএমের একজন, এমএনএসের একজন ও এসডাব্লিউপি-র একজন বিধায়ক আছেন। এমআইএম নেতা ওয়েইসি জানিয়েছেন, তার দল কাকে সমর্থন করবে, সেই সিদ্ধান্ত এখনো হয়নি।

তা সত্ত্বেও শিবসেনা যে সুপ্রিম কোর্টে গেছে তার কারণ হলো, মঙ্গলবারই সর্বোচ্চ আদালত জানিয়েছিল, ১১ জুলাইয়ের মধ্যে ১৬ জন বিক্ষুব্ধ বিধায়কের সদস্যপদ খারিজ করা নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না ডেপুটি স্পিকার। শিবসেনার প্রশ্ন, তাহলে রাজ্যপাল কী করে বৃহস্পতিবার উদ্ধবকে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের নির্দেশ দিতে পারেন? সুপ্রিম কোর্টে বুধবারই বিষয়টি নিয়ে শুনানি হবে।

শিন্ডেরা গোয়ায়

একনাথ শিন্ডের নেতৃত্বে শিবসেনার বিক্ষুব্ধ বিধায়করা গুয়াহাটি থেকে গোয়া যাচ্ছেন। তাদের বিশেষ বিমানে করে গোয়া নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। গুয়াহাটি ছাড়ার আগে শিন্ডে বলেছেন, তাদের সঙ্গে সংখ্যাগরিষ্ঠতা আছে। ফলে তারাই জিতবেন।

জিএইচ/এসজি (পিটিআই, এএনআই)