উত্তর ভারতে জাঠ আন্দোলন অব্যাহত | বিশ্ব | DW | 24.03.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

উত্তর ভারতে জাঠ আন্দোলন অব্যাহত

উত্তর ভারতে জাঠ সম্প্রদায়ের আন্দোলনের জের ধরে রেল ও সড়কপথ অবরোধের কারণে দিল্লি ও সংলগ্ন এলাকায় অত্যাবশ্যক পণ্যের সরবরাহ ব্যাহত৷ রেল ও সড়কপথ অবিলম্বে মুক্ত করতে সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারগুলিকে নির্দেশ দেন সুপ্রিম কোর্ট৷

default

জাঠ আন্দোলন চলছে

গত তিন সপ্তাহ ধরে উত্তর ভারতে, বিশেষ করে হরিয়ানায় রেল ও সড়ক অবরোধ করে জাঠ সম্প্রদায়ের লাগাতার আন্দোলনে রাজধানী দিল্লি ও তার লাগোয়া রাজ্যে জল, দুধ, পেট্রোপণ্যসহ অত্যাবশ্যক জিনিসপত্রের সরবরাহ বিপর্যস্ত৷ গত তিন সপ্তাহে প্রায় এক হাজার ট্রেন বাতিল করতে হয়, প্রায় ৪০০ ট্রেনের যাত্রাপথ ঘুরিয়ে দেয়া হয় বা সংক্ষিপ্ত করতে হয়৷ এতে রেলের লোকসান ২০০ কোটি টাকার মত৷ কয়লার অভাবে বন্ধ করে দেয়া হয় হরিয়ানার তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র৷ মথুরা ও পানিপথ তেল শোধনাগার থেকে পেট্রোপণ্য বাইরে পাঠানো সম্ভব হচ্ছেনা৷

এর প্রেক্ষিতে দিল্লি জলবোর্ড এবং ইন্ডিয়ান অয়েল কোম্পানি সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হলে অবিলম্বে রেল ও সড়ক অবরোধ মুক্ত করার জন্য সুপ্রিম কোর্টের দুই বিচারকের ডিভিশন বেঞ্চ আজ হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ ও রাজস্থান সরকার প্রয়োজনীয় পুলিশি ব্যবস্থা নেবার আদেশ দেন, যাতে দিল্লি ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় অত্যাবশ্যক জিনিসপত্রের সরবরাহ অবাধ থাকে৷ অনুরূপ রায় দেন পাঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্ট৷ আদালতের রায়ে বলা হয়, আন্দোলনের অন্য পথ আছে, জনসাধারণের জীবনযাত্রা বিপর্যস্ত করে নয়৷ জাঠ আন্দোলনের প্রতি প্রচ্ছন্ন সমর্থন থাকায় আদালত হরিয়ানা ও উত্তরপ্রদেশ সরকারকে তিরস্কার করতে ছাড়েননি৷

কেন এই আন্দোলন? জাঠ সম্প্রদায়ের দাবি অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণীর অন্তর্ভুক্ত করে সরকারি চাকরিতে তাদের জন্য সংরক্ষণ৷ তাদের দাবি পূরণ না হওয়া অবধি এই আন্দোলন চলবে বলে হুমকি দিয়েছেন হরিয়ানার নিখিল ভারত জাঠ আরক্ষণ সংঘর্ষ সমিতির রাজ্য সভাপতি হাওয়া সিং সাঙ্গওয়ান৷ তাঁর মতে, তাদের দাবি ন্যায্য৷ কাজেই তা মেনে নিতে সরকারের অসুবিধা হবার কথা নয়৷ দাবি মানার জন্য সংগঠন সরকারকে ২৮শে মার্চ পর্যন্ত চূড়ান্ত সময় দিয়েছে৷ এই সংগঠনই আন্দোলনের নেতৃত্ব দিচ্ছে৷

চন্ডিগড়ের কাছে আমরণ অনশনে ৬২ বছর বয়সী একজন আন্দোলনকারীর মৃত্যু হয় আজ৷ এর ফলে আন্দোলন আরো তীব্র হতে পারে বলে প্রশাসনের আশঙ্কা৷ উল্লেখ্য, উত্তর ভারতে জাঠ জনজাতির লোকসংখ্যা প্রায় তিন কোটি৷ এরা কৃষিজীবী হলেও যোদ্ধা জাতি হিসেবে এদের খ্যাতি রয়েছে৷

প্রতিবেদন: অনিল চট্টোপাধ্যায়, নতুনদিল্লি

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

বিজ্ঞাপন