‘উত্তর কোরিয়া পরিদর্শকদের প্রবেশের অনুমতি দিয়েছে′ | বিশ্ব | DW | 08.10.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

‘উত্তর কোরিয়া পরিদর্শকদের প্রবেশের অনুমতি দিয়েছে'

পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের লক্ষ্যে কিম জং উন আন্তর্জাতিক পরিদর্শকদের প্রবেশের অনুমতি দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী৷ কিম রাশিয়া ও চীনের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গেও বৈঠক করতে চলেছেন৷

পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের ক্ষেত্রে উত্তর কোরিয়া সত্যি কতটা আন্তরিক, তা নিয়ে বার বার প্রশ্ন উঠছে৷ গত জুন মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন সিঙ্গাপুরে সরাসরি এ বিষয়ে আলোচনা করলেও কার্যক্ষেত্রে তেমন অগ্রগতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে না৷ দুই পক্ষের মধ্যে এতকাল উচ্চ পর্যায়ে আলোচনাও বার বার স্থগিত রাখা হয়েছে৷

এমন প্রেক্ষাপটে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও সোমবার জানালেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা সে দেশের পরমাণু ও ক্ষেপণাস্ত্র স্থাপনায় আন্তর্জাতিক পরিদর্শকদের প্রবেশের অনুমতি দিতে প্রস্তুত৷ রবিবার তিনি পিয়ং ইয়ং সফর করে কিম-এর সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা করেছেন৷ তাঁদের মধ্যে বোঝাপড়া অনুযায়ী, দুই পক্ষের মধ্যে খুঁটিনাটি বিষয়গুলি নিয়ে বোঝাপড়া হলেই পরিদর্শকরা সে দেশের একমাত্র সরকারি পরমাণু স্থাপনায় প্রবেশ করতে পারবেন৷

পম্পেও আরও জানিয়েছেন, কিম ও ট্রাম্পের মধ্যে প্রস্তাবিত দ্বিতীয় শীর্ষ বৈঠকের দিনক্ষণ নিয়েও অগ্রগতি হচ্ছে৷ উল্লেখ্য, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প উত্তর কোরিয়ার নেতাকে হোয়াইট হাউসে আলোচনার জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন৷ এক টুইট বার্তায় পম্পেও জানিয়েছেন যে, তিনি বেইজিং সফর করে উত্তর কোরিয়ার ‘চূড়ান্ত ও সম্পূর্ণ যাচাইযোগ্য' পরমাণু নিরস্ত্রীকরণের লক্ষ্যে কাজ করতে চান৷

আন্তর্জাতিক মঞ্চে আরো সক্রিয় হয়ে উঠছেন কিম জং উন৷ শুধু অ্যামেরিকা নয়, চীন ও রাশিয়ার সঙ্গেও উচ্চ পর্যায়ে যোগাযোগ বাড়াচ্ছেন তিনি৷ দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জে ইন বলেন, কোরীয় উপদ্বীপে উত্তেজনা কমাতে কূটনৈতিক উদ্যোগের আওতায় কিম অদূর ভবিষ্যতেই চীন ও রাশিয়ার শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন৷ উল্লেখ্য, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিন এর আগেই কিমকে মস্কো সফরের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন৷ এমন কূটনৈতিক তৎপরতার আওতায় উত্তর কোরিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী চো সোন হুই শনিবার বেইজিং সফর করেছেন৷ এরপর তিনি মস্কো সফর করে রাশিয়ার সরকারের প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করবেন৷ অবশেষে এক ত্রিপাক্ষিক আলোচনারও পরিকল্পনা রয়েছে৷

এমনকি জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে-র সঙ্গেও উত্তর কোরিয়ার নেতার আলোচনার সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করেন দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট৷ উল্লেখ্য, তিনি এই নিয়ে তিন বার কিম জং উনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন৷ কিম জং উন চলতি বছরে তিন বার বেইজিং সফর করে চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং-এর সঙ্গে বৈঠক করেছেন৷ এবার শি পিয়ং ইয়ং সফর করবেন বলে ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে৷

এসবি/এসিবি (রয়টার্স, এএফপি)

 

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন