উত্তর অ্যামেরিকায় মুক্তি পাচ্ছে ‘স্কাইফল’ | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 05.11.2012
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সমাজ সংস্কৃতি

উত্তর অ্যামেরিকায় মুক্তি পাচ্ছে ‘স্কাইফল’

টানটান উত্তেজনা, সুন্দর লোকেশন, রহস্যময় ভিলেন, সুন্দরী নায়িকা আর শিহরণ জাগানো স্টান্ট - সব মিলিয়ে তৈরি হয় জেমস বন্ডের একেকটি ফিল্ম৷

এভাবে গত ৫০ বছর ধরে নির্মিত হয়েছে ২৩টি ছবি৷ শেষ ছবি ‘স্কাইফল' ইউরোপে মুক্তি পেয়েছে ক'দিন আগে৷ আর উত্তর অ্যামেরিকায় তার প্রদর্শনী শুরু হচ্ছে শুক্রবার৷

তবে স্কাইফলের পাশাপাশি জেমস বন্ডের ৫০তম বার্ষিকী উপলক্ষ্যে ক্যানাডার টোরোন্টোতে অনুষ্ঠিত হবে একটি বিশেষ প্রদর্শনী৷ যার নাম ‘ডিজাইনিং ০০৭ – ফিফটি ইয়ারস অফ বন্ড স্টাইল'৷ এ বছরের গোড়ার দিকে লন্ডনে প্রদর্শনীটি শুরু হয়৷ টোরোন্টোতে হবে তার দ্বিতীয় শো৷

Filmplakat James Bond Skyfall

বন্দুকের নলের মধ্য দিয়ে জেমস বন্ড: বন্ড ছবির ট্রেডমার্ক

জেমস বন্ড সিরিজের বিভিন্ন ছবিতে ব্যবহৃত বন্ডের স্টাইলিশ গাড়ি; নায়িকা, ভিলেন ও বন্ড সহ অন্যান্য চরিত্রের পরিধেয় পোশাক; ব্যবহৃত অস্ত্র ইত্যাদি দেখানো হবে প্রদর্শনীতে৷

১৯৭৪ সালে মুক্তি পাওয়া ‘দ্য ম্যান উইথ দ্য গোল্ডেন গান' এর সেই বিখ্যাত গান বা পিস্তল, ১৯৬৪ সালের ‘গোল্ডফিঙ্গার' ছবিতে দেখানো নায়িকার স্বর্ণমোড়ানো দেহ দেখা যাবে প্রদর্শনীতে৷

এছাড়া ‘দ্য স্পাই হু লাভড মি' ছবিতে বন্ডের ব্যবহার করা ‘লোটাস এসপ্রি এস১' স্পোর্টস কার সহ বিভিন্ন ছবিতে বন্ড গার্লের পরা বিকিনি, বল গাউন, ডায়মন্ড ইত্যাদি দেখতে পাবেন দর্শকরা৷

আয়োজকদের একজন জেসি ওয়েন্ট বলছেন, আধুনিক অ্যাকশনধর্মী ছবি কীভাবে বানাতে হয় তা দেখিয়ে দিয়েছে বন্ডের ছবিগুলো৷

জেডএইচ/এসবি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন