উতরে গেলেন ব্যারলুস্কোনি, তবে রোমে ব্যাপক দাঙ্গা | বিশ্ব | DW | 15.12.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

উতরে গেলেন ব্যারলুস্কোনি, তবে রোমে ব্যাপক দাঙ্গা

ভোটে জিতে গেছেন ইটালির প্রধানমন্ত্রী সিলভিও ব্যারলুস্কোনি৷ কিন্তু পুরো রোম জুড়ে চলেছে দাঙ্গা৷ রোমের মেয়র বলছেন সত্তর দশকের পর এমন দাঙ্গা ইটালি আর দেখেনি৷

default

পুলিশের গাড়িতে আগুন

কেন দাঙ্গা?

মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত নো-কনফিডেন্স নির্বাচনে ব্যারলুস্কোনি মাত্র তিনভোটে জেতেন৷ কিন্তু তাঁর এই জয় মেনে নিতে পারেনি অনেকে৷ তাই তারা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেছেন৷ আগুন লাগিয়েছেন টায়ারে, পুলিশের গাড়িতে৷ যেতে চেয়েছেন সংসদ ভবনে, যেখানে ভোটাভুটি হয়েছে৷ মাথায় মোটরসাইকেলের হেলমেট পরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছেন৷ ফলে আহত হয়েছেন ৫০ জন পুলিশ সহ ৯০ জন৷ আর গ্রেপ্তার করা হয় প্রায় ৪১ জনকে৷ রোমের মেয়র জিয়ানি আলেমানো বলছেন, সত্তর দশকের পর রোমে এমন বিক্ষোভ আর হয়নি৷ উল্লেখ্য, ঐ সময়টায় সামাজিক ও রাজনৈতিক কারণে ইটালিতে বেশ আন্দোলন হয়েছিল৷

দাঙ্গার আগে ব্যারলুস্কোনি-বিরোধী একটি বড় মিছিল বের হয়েছিল৷ আয়োজকদের মতে, ঐ মিছিলে প্রায় এক লক্ষ মানুষের সমাগম ঘটেছিল৷

Misstrauensvotum Silvio Berlusconi Dezember 2010

নির্বাচনের সময় ইটালির সংসদ

ব্যারলুস্কোনির বিরুদ্ধে গত বেশ কয়েকদিন ধরেই বিক্ষোভ হচ্ছিল৷ বিশেষ করে শিক্ষার্থী, বেকার আর হতাশাগ্রস্ত মানুষরাই এসব বিক্ষোভে অংশ নিচ্ছিলেন৷ ইটালির বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবস্থায় পরিবর্তন আনতে সরকার যে উদ্যোগ নিয়েছে সেটা পছন্দ না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা তার প্রতিবাদে বিক্ষোভ শুরু করে৷

কেন ব্যারলুস্কোনি এই পরিস্থিতিতে?

কারণ তাঁর জোট সরকারের অন্যতম শরিক দলের প্রধান জ্যানফ্রাংকো ফিনি ৪০ জন সাংসদ নিয়ে হঠাৎ করে জোট ছেড়ে বেরিয়ে যান৷ মূলত দুটি কারণে ফিনি এই সিদ্ধান্ত নেন৷ এক. ব্যারলুস্কোনির দুর্নীতি আর দুই তাঁর ব্যক্তিগত স্ক্যান্ডাল৷ বিক্ষোভে অংশ নেয়া আন্দ্রেয়া নামের একজন বলেছেন, ব্যারলুস্কোনির ব্যক্তিগত জীবন তাঁকে দেশের জন্য ভাল কিছু করা থেকে দুরে সরিয়ে রেখেছে৷ আর স্কুল শিক্ষক সিলভিয়া বলছেন যে, ইটালিতে তরুণ সমাজের কোনো ভবিষ্যত নেই৷

নির্বাচনের ফল

ব্যারলুস্কোনি তাঁর ১৬ বছরের রাজনৈতিক জীবনে এতবড় পরীক্ষার সামনে আর পড়েননি৷ অবস্থা এমন হয়েছিল যে, অনেকেই মনে করেছিলেন মঙ্গলবারই বুঝি তার ক্ষমতার শেষদিন৷ কিন্তু দেখা গেল তিনি সেটা উতরে গেলেন৷ মাত্র তিন ভোটের ব্যবধান ছিল৷

সংসদের উচ্চকক্ষে ব্যারলুস্কোনি যে জিতবেন সেটা ধরেই নেয়া হয়েছিল৷ কিন্তু নিম্মকক্ষে একটা অঘটনের আশা করছিলেন সবাই৷ সেখানেই দেখা গেল ৬৩০ সাংসদের মধ্যে ৩১৪ জন ভোট দিয়েছে তাঁর পক্ষে৷ আর বিপক্ষে ভোটের সংখ্যা ৩১১টি৷ তিনজন সাংসদ ভোট দানে বিরত থাকেন৷

প্রতিবেদন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: ফাহমিদা সুলতানা

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন