উড়ন্ত রাশিয়াকে মাটিতে নামালো উরুগুয়ে | খেলাধুলা | DW | 25.06.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ফুটবল

উড়ন্ত রাশিয়াকে মাটিতে নামালো উরুগুয়ে

৩-০ গোলে স্বাগতিক রাশিয়াকে হারালো উরুগুয়ে৷ গ্রুপ এ-র শীর্ষস্থান নির্ধারণী ম্যাচে জয়ে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিলেন দলের তারকা খেলোয়াড় লুইজ সুয়ারেজ৷ এই জয়ে গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হলো উরুগুয়ে, রানার আপ রাশিয়া৷

ফিফা ব়্যাংকিংয়ে ১৪ নম্বরে উরুগুয়ে, ৭০ নম্বরে স্থান রাশিয়ার৷ কিন্তু খেলার মাঠের ইতিহাস বিবেচনায় এগিয়ে রাশিয়াই৷ আন্তর্জাতিক ম্যাচে ৮ বারের দেখায় ৬ বারই জয় পেয়েছে রাশিয়া৷ এর মধ্যে বিশ্বকাপে দু'বারের দেখায় একবার করে জয় পেয়েছে দুই দলই৷

তাতে অবশ্য সোমবারের খেলায় কোন প্রভাব পড়েনি৷ রীতিমতো আধিপত্য দেখিয়ে জয় তুলে নিয়েছে উরুগুয়ে৷

খেলার প্রথমার্ধ ছিল ঘটনাবহুল৷ ৯ মিনিটের মাথায় উরুগুয়ের আক্রমণ ঠেকাতে গিয়ে ডিবক্সের ঠিক বাইরে বেন্টাঙ্কুরকে ফাউল করে বসেন ইউরি গাজিনস্কি৷ এ জন্য গাজিনস্কিকে দেখতে হয় হলুদ কার্ড৷

এই ফাউল থেকে পাওয়া ফ্রি কিক থেকে দারুণ বাঁকানও শটে গোল করেন লুইজ সুয়ারেজ৷ রুশ ডিফেন্ডারদের দেয়াল, গোলকিপারকে কাটিয়ে বারের গা ঘেঁষে বল চলে যায় জালে৷

২৩ মিনিটে আবার গোল৷ এবার লাক্সাল্টের শট রুশ ডিফেন্ডার ডেনিস চেনিশেভের পায়ে লেগে বল ঢোকে রাশিয়ারই জালে৷ স্কোর দাঁড়ায় ২-০তে৷

উরুগুয়ের একের পর এক আক্রমণ ঠেকাতে আরো মারমুখি হয়ে ওঠে রাশিয়া৷ ১০ মিনিটের মধ্যে দুইবার হলুদ কার্ড পাওয়ায় লাল কার্ড দেখেমাঠের বাইরে চলে যেতে হয় রুশ ডিফেন্ডার ইগোর স্মোলনিকোভকে৷

দ্বিতীয়ার্ধে ১০ জনের রাশিয়াই অবশ্য ঠেকিয়ে রেখেছিল উরুগুয়ের একের পর এক আক্রমণকে৷ তবে ৯০ মিনিটে কর্নার থেকে আসা বলে গোডিনের জোরালো হেড গোলকিপার ঠেকিয়ে দিলেও ফিরতি শটে আর লক্ষ্যভ্রষ্ট হননি কাভানি৷ স্কোর থামে ৩-০ তে৷

গ্রুপ এ চ্যাম্পিয়ন উরুগুয়েকে শেষ ষোলতে খেলতে হবে গ্রুপ বির রানার আপ দলের সঙ্গে৷

সৌদি আরব-মিশর

গ্রুপ এ-র আনুষ্ঠানিকতার ম্যাচে মিশরের বিপক্ষে জয় পেয়েছে সৌদি আরব৷

তবে মিশরের হয়ে শুরুটা করেছিলেন সালাহ৷ ২২ মিনিটে দুই সেন্টার ব্যাককে পাশ কাটিয়ে ডি বক্সে ঢুকে পড়েছিলেন সালাহ৷ সৌদি গোলকিপার সামনে এগিয়ে এলে নিখুঁতভাবে তাঁর ওপর দিয়ে জালে বল পাঠাতে কোনো অসুবিধা হয়নি লিভারপুল তারকার৷

এই গোলের মাধ্যমে নিজেদের বিশ্বকাপ ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোনো ম্যাচে লিড নেয় মিশর৷

তবে দ্রুতই ম্যাচে ফিরে আসে সৌদি আরব৷ ফাহাদ আল-মুওয়ালাদ পেনাল্টি মিস না করলে সমতা আসতে পারতো ৪১ মিনিটেই৷

কিন্তু প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে (৫০ মিনিট) ডি বক্সে আবার বিপজ্জনক ফাউল করায় হলুদ কার্ড দেখেন মিশরের আলী গাবর, আবার পেনাল্টি পায় সৌদি আরব৷ আগের ভুলের পুনরাবৃত্তি করেননি সালমান আল-ফারাজ৷ ম্যাচে আসে ১-১ সমতা৷

জয় পেতে অবশ্য একেবারে শেষ মিনিট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয় সৌদি আরবকে৷ ৯৫ মিনিটে সৌদি আরবকে জয় এনে দেন সালেম আল-দাওসারি৷
 

নির্বাচিত প্রতিবেদন