1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
(ফাইল ফটো)ছবি: Kazi Salahuddin Razu/NurPhoto/picture alliance

উখিয়ায় দুই রোহিঙ্গা মাঝিকে গুলি করে হত্যা

১০ আগস্ট ২০২২

কক্সবাজারের উখিয়ায় শরণার্থী শিবিরে দুই রোহিঙ্গা মাঝিকে (কমিউনিটি নেতা) গুলি করে হত্যা করা হয়েছে৷ এ হত্যাকাণ্ডটি ঘটে মঙ্গলবার মধ্যরাতে পালংখালী ইউনিয়নের ১৫ নম্বর জামতলী ক্যাম্পের সি-ব্লকে৷

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%89%E0%A6%96%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A6%BE%E0%A7%9F-%E0%A6%A6%E0%A7%81%E0%A6%87-%E0%A6%B0%E0%A7%8B%E0%A6%B9%E0%A6%BF%E0%A6%99%E0%A7%8D%E0%A6%97%E0%A6%BE-%E0%A6%AE%E0%A6%BE%E0%A6%9D%E0%A6%BF%E0%A6%95%E0%A7%87-%E0%A6%97%E0%A7%81%E0%A6%B2%E0%A6%BF-%E0%A6%95%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%B9%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE/a-62763204

ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে এ তথ্য জানান ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শিহাব কায়সার খান৷

নিহতরা হলেন- ওই ক্যাম্পের সি-ব্লকের আব্দুর রহিমের ছেলে আবু তালেব এবং সি/৯ সাব-ব্লকের ইমান হোসেনের ছেলে সৈয়দ হোসেন হোসেন (৩৫) ৷ তালেব সি ব্লকের হেড মাঝি (কমিউনিটি নেতা) এবং হোসেন তার সাব-ব্লকের মাঝি ছিলেন৷ স্থানীয়দের বরাতে পুলিশ কর্মকর্তা শিহাব কায়সার বলেন, মঙ্গলবার মধ্যরাতে সি-ব্লকের পাহাড়ি ঢালে এক ঘরের সামনে ৮-১০ জন অস্ত্রধারী এসে গুলি ছুড়তে শুরু করে৷

‘‘এ সময় সেখানে থাকা তালেব ও হোসেন গুলিবিদ্ধ হন৷ স্থানীয়রা তাদের জামতলী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এমএসএফ হাসপাতালে নিয়ে যায়৷ কর্তব্যরত চিকিৎসক সেখানে হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন৷’’  তালেবকে সেখান থেকে কুতুপালংয়ের এমএসএফ হাসপাতালে পাঠানো হয়৷ সেখানে পৌঁছানোর পর তাকেও মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক৷

এপিবিএন অধিনায়ক বলেন, ‘‘স্থানীয় কয়েকজন রোহিঙ্গা দুষ্কৃতকারীর সঙ্গে তালেব ও হোসেনের বিরোধ ছিল৷ প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, সেই শত্রুতার জেরে তাদের হত্যা করা হয়েছে৷’’ 

পুলিশ সুপার শিহাব কায়সার জানান দুই রোহিঙ্গা মাঝির হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ৷

এনএস/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম) 

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

Bangladesch |  Chaos am Flughafen Dhaka

বিমানবন্দরে চুরির ঘটনা থামছে না কেন?

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

প্রথম পাতায় যান