ইয়েমেনে যুদ্ধ করছে শিশুরা! | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 17.07.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইয়েমেন

ইয়েমেনে যুদ্ধ করছে শিশুরা!

প্রায় এক হাজারেরও বেশি শিশুকে ইয়েমেন যুদ্ধে জোর করে অংশগ্রহন করানো হয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটির একটি বেসরকারি মানবাধিকার সংস্থা৷

সংস্থাটির দাবি, যুদ্ধে লিপ্ত দু'পক্ষই, অর্থাৎ হুতি বিদ্রোহী ও সেনাবাহিনী,  শিশুদের যুদ্ধে অংশগ্রহন করতে বাধ্য করছে৷

ইয়েমেনের বেসরকারি সংস্থা মোতানা ফর হিউম্যান রাইটস  বুধবার প্যারিসে তাদের বার্ষিক প্রতিবেদনে প্রকাশ করে৷ প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৭ বছরের কম বয়সী  এক হাজার একশ'  ১৭ জন শিশুকে যুদ্ধে জোর করে অংশগ্রহন করানো হয়েছে৷ প্রতিবেদনটিতে জানানো হয়,  যুদ্ধে অংশগ্রহনকারী শিশুদের শতকরা ৭২ ভাগ বিদ্রোহিগোষ্ঠী হুতির পক্ষ হয়ে কাজ করছে৷ আর বাকিরা কাজ করছে সেনাবাহিনীর পক্ষ হয়ে৷

 যুদ্ধে লিপ্ত দলগুলো শিশুদেরকে দিয়ে চেকপোস্টের নিরাপত্তা, যোদ্ধাদের জন্য রসদ সরবরাহ ও সরাসরি যুদ্ধ অংশগ্রহনের মতো কাজ করাচ্ছে বলে প্রতিবেদনটিতে দাবি করা হয়৷ বিধ্বস্ত জনজীবন: ইয়েমেন মানবাধিকার ২০১৮ নামে এ প্রতিবেদনটি প্রায় দুই হাজার ইয়েমেনবাসীর সাক্ষ্য প্রমানের ভিত্তিতে তৈরি করা হয়৷ 

বিপর্যস্ত জনজীবন

প্রায় ছয় বছর ধরে চলা এ যুদ্ধে লিপ্ত আছে সৌদি আরব সমর্থিত ইয়েমেন সরকারের বাহিনী আর ইরান ও হিজবুল্লাহ সমর্থিত হুতি বিদ্রোহিগোষ্ঠী৷ ২০১২ সালে শুরু হওয়া এ যুদ্ধে এখন পর্যন্ত ৭০ হাজারেরও অধিক লোকের প্রাণহানী হয়েছে বলে দাবি করেছে আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলো৷ যুদ্ধে জনজীবনের উপর প্রভাবের বিষয়ে বলতে গিয়ে মোতানা ফর হিউম্যান রাইটস এর প্রধান রাধেয়া আল মোতাওয়াকেল  বলেন, প্রতিদিনের এ যুদ্ধ সাধারণ মানুষকে আতঙ্কিত করে তুলেছে, তাঁদের জীবনযাপনকে শঙ্কার মধ্যে ফেলছে৷ ‘‘দেশের সাধারণ মানুষ আতঙ্কের মধ্যে জীবন যাপন করছে৷ সরকারের পক্ষ থেকেও জনগনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না'', দাবি করেন তিনি৷

আরআর/কেএম (এপি, এএফপি)

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন