ইরানে তৈরি ভুয়া অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলছে ফেসবুক, টুইটার | বিশ্ব | DW | 29.05.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইরান

ইরানে তৈরি ভুয়া অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলছে ফেসবুক, টুইটার

ইরান সরকারের পক্ষে প্রচারণা চালানো বেশকিছু ভুয়া অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলেছে ফেসবুক এবং টুইটার৷ ইন্টারনেট নিরাপত্তা বিষয়ক প্রতিষ্ঠান ফায়ারআই-এর এক অনুসন্ধানের ভিত্তিতে এই উদ্যোগ নিয়েছে প্রতিষ্ঠানগুলো৷

ফেসবুক এবং টুইটার মঙ্গলবার জানিয়েছে, রাজনৈতিক নেতা এবং সাংবাদিকদের ছদ্মবেশ ধারণ করে ইরান সরকারের পক্ষে প্রচারণা চালানো কিছু ভুয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলেছে প্রতিষ্ঠান দু'টি৷ গণমাধ্যমে প্রকাশিত হিসেব অনুযায়ী, নতুন এই উদ্যোগের আওতায় ইরানের মোট ৫১টি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট, ৩৬টি পাতা এবং তিনটি ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলা হয়েছে৷

ফেসবুকের সাইবার নিরাপত্তা বিভাগের প্রধান নেথানিয়েল গ্লাইসার স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে যে, যেসব অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলা হয়েছে সেগুলো ব্যবহার করে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করা হচ্ছিল৷ আর সেসব অ্যাকাউন্ট ইরান থেকে চালু করা হয়েছিল বলেও নিশ্চিত করেছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি৷

এদিকে, টুইটার জানিয়েছে, মে মাসের শুরুতে ইরান থেকে চালু করা ২,৮০০ ভুয়া অ্যাকাউন্টের একটি নেটওয়ার্ক মুছে ফেলেছে মাইক্রোব্লগিং সাইটটি৷ প্রতিষ্ঠানটির তদন্ত এখনো অব্যাহত রয়েছে৷

ইন্টারনেট সিকিউরিটি প্রতিষ্ঠান ফায়ারআই-এর দেয়া তথ্য অনুযায়ী তদন্ত করে এসব অ্যাকাউন্টের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে ফেসবুক৷ প্রতিষ্ঠানটি এক ব্লগপোস্টে মঙ্গলবার জানিয়েছে, ২০১৮ সালের ‘কংগ্রেশনাল ইলেকশন'-এর সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের একটি নেটওয়ার্ক বিভিন্ন মার্কিন ব্যক্তিত্বের ছদ্মবেশে ইরান সরকারের পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছিল এবং মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমালোচনা করেছিল৷

মুছে ফেলা অ্যাকাউন্টগুলোর কয়েকটি গত বছরের মার্কিন মধ্যবর্তী নির্বাচনে অংশ নেয়া বিভিন্ন রিপাবলিকান রাজনীতিবিদের নামে খোলা হয়েছিল বলেও জানিয়েছে ক্যালিফোর্নিয়াভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটি৷

ফায়ারআই-এর গবেষক লি ফস্টার এই বিষয়ে বলেন, ‘‘আমি অনুসন্ধান করে দেখেছি, মার্কিন কয়েকজন সাংবাদিকের নামে ভুয়া অ্যাকাউন্ট তৈরি করে কিছু ব্যক্তি বিভিন্ন মার্কিন সংবাদপত্রে সম্পাদকের কাছে লেখা চিঠি থেকে শুরু করে সংবাদভাষ্য এবং ব্লগ প্রকাশেও সক্ষম হয়েছে৷ সেসব লেখায় প্রগতিশীল এবং রক্ষণশীল– দু'ধরনের অভিমতই ফুটে উঠেছে৷''

তবে অনলাইনে অ্যাকাউন্টগুলো মুছে ফেললেও অফলাইনে ঠিক কারা সেগুলোর সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিল তা নিশ্চিত করে জানায়নি প্রতিষ্ঠানগুলো৷

এআই/এসিবি (এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন