ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তি রক্ষায় জার্মানির উদ্যোগ | বিশ্ব | DW | 10.06.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তি রক্ষায় জার্মানির উদ্যোগ

পরমাণু চুক্তি রক্ষার উদ্যোগ হিসেবে ইরান সফর করেছেন জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো মাস৷ ইরানের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের হওয়া চুক্তি রক্ষার ‘কার্যকর পথ' খুঁজে বের করতে চান তিনি৷

সোমবার তেহরানে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ এবং ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে দেখা করেন হাইকো মাস৷ দু'টি আলোচনাতেই মূল বিষয় ছিল ২০১৫ সালের পরমাণু চুক্তি৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র চুক্তি থেকে সরে ইরানের ওপর আবার অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপ শুরু করায় এ নিয়ে সংকট দেখা দিয়েছে৷

চুক্তি রক্ষার উদ্যোগ হিসেবে জার্মানির উদ্যোগের প্রশংসা করলেও ইরান আগেই বলেছে, শুধু কথা বা আশ্বাসে কাজ হবে না, চুক্তি রক্ষা করতে হলে এর চেয়ে বেশি কিছু করতে হবে৷

‘কার্যকর পথ' খুঁজে বের করার চেষ্টার পাশাপাশি হাইকো মাস-ও বলেছেন, ‘‘ ইরানকেও নিশ্চয়ই ভবিষ্যতেও এ চুক্তি বজায় থাকবে এমন রাজনৈতিক দাবি পূরণের আশ্বাস পেতে হবে৷''

এর আগে ইরান জানিয়ে দেয়, যুক্তরাষ্ট্র যে অবরোধ আরোপ শুরু করেছে তা পুষিয়ে দেয়ার উপযুক্ত পথ ইউরোপীয় ইউনিয়ন বের করতে না পারলে আগামী ৭ জুলাইয়ের পর তারা আর চুক্তির শর্ত মানবে না৷

গত সপ্তাহে বার্লিনে এসেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও৷ তখন তাঁর সঙ্গেও ইরানের সঙ্গের পরমাণু চুক্তি নিয়ে কথা বলেছেন হাইকো মাস৷ তবে সেই আলোচনায় জটিলতা কাটেনি৷

গত ১২ই মে সংযুক্ত আরব আমিরাতে তিনটি পেট্রোলিয়ামবাহী ট্যাংকার জাহাজে হামলা হয়৷ ঘটনা তদন্তের পর সংযুক্ত আরব আমিরাত, সৌদি আরব ও নরওয়ের রাষ্ট্রদূতরা জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে তাঁদের মতামত জানান৷ তদন্তকারীদের উদ্ধৃত করে তাঁরা বলেছেন, সম্ভবত কোনো বিদেশি রাষ্ট্র ডুবুরি পাঠিয়ে জাহাজগুলোতে মাইন বসিয়ে বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে৷ ইরানের দিকে ইঙ্গিত করলেও অবশ্য সরাসরি নাম উল্লেখ করেননি তাঁরা৷ তবে সৌদি আরবের রাষ্ট্রদূত আগেই হামলার জন্য ইরানকে দায়ী করেছেন৷

অন্যদিকে ইরান যুক্তরাষ্ট্রের স্থাপনাতেও হামলা চালাতে পারে এমন আশঙ্কায় ঐ অঞ্চলে অতিরিক্ত দেড় হাজার সৈন্য পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র৷ এর আগে এয়ারক্রাফট ক্যারিয়ার ও কয়েকটি বি-৫২ বোমারু বিমানও মোতায়েন করেছে তারা৷

হাইকো মাস-এর পর জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে চুক্তি রক্ষার উদ্যোগ হিসেবে তেহরান সফরে যাবেন৷

মাটিয়াস ফন হাইন/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন