ইরানের পক্ষে গোয়েন্দাবৃত্তির অভিযোগে ইসরায়েলি মন্ত্রীর কারাদণ্ড | বিশ্ব | DW | 10.01.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ইসরায়েল

ইরানের পক্ষে গোয়েন্দাবৃত্তির অভিযোগে ইসরায়েলি মন্ত্রীর কারাদণ্ড

ইরানের পক্ষে গোয়েন্দাবৃত্তির দায়ে নিজেদের এক সাবেক মন্ত্রীকে ১১ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে ইসরায়েলের আদালত৷ জ্বালানি, নিরাপত্তা, রাজনৈতিক ও নিরাপত্তা বাহিনীর নানা স্থাপনার বিষয়ে তথ্য পাচারের দায়ে তাকে এ সাজা দেয়া হয়৷

ইসরায়েলের আইন মন্ত্রণালয় জানায়, ‘‘রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে মারাত্মক ধরনের গোয়েন্দাবৃত্তি ও অন্য দেশের কাছে তথ্য পাচারের দায়ে'' ইসরায়েলের সাবেক জ্বালানি ও অবকাঠামো মন্ত্রী  গোনেন সেগেভকে ১১ বছরের সাজা দিয়েছে আদালত৷

গোনেন সেগেভ ১৯৯৫-৯৬ সালে ইসরায়েলের জ্বালানি ও অবকাঠামো মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন৷ এ সময়কালে ইসরায়েল-ফিলিস্তিন বিষয়ক অসলো শান্তি চুক্তি বিষয়ে সরকারের সাথে তার মতনৈক্য হলে তাকে দলচ্যুত করা হয়৷ পরে ইসরায়েল সরকার ডাক্তার হিসেবে তার সব ধরনের লাইসেন্স বাতিল করে দিলে গত দশ বছর ধরে তিনি নাইজেরিয়াতে ডাক্তারি পেশায় নিয়োজিত ছিলেন৷  

ইসরায়েলের নিরাপত্তা দপ্তর থেকে জানানো হয়, ইরানের নিরাপত্তা সংস্থা ২০১২ সালে নাইজেরিয়াতে অবস্থিত তাদের দূতাবাসের মাধ্যমে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে গোয়েন্দাবৃত্তির জন্য তার সাথে চুক্তিবদ্ধ হয়৷ এ সময় সেগেভ দু'বার ইরান ভ্রমণ করেছেন বলেও ধারণা করা হচ্ছে৷

তার বিরুদ্ধে গোন্দাবৃত্তির অভিযোগ আনা হলে তাকে ইসরায়েলে ফেরত আনে সরকার৷

এদিকে সেগেভকে উদ্ধৃত করে ইসরায়েলি সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার না করলেও ইরানের গোযেন্দা সংস্থাকে ধোঁকা দেওয়ার জন্য এ কাজ করেন বলে দাবি করেছেন তিনি৷

২০১৮ সালের জুলাই থেকে সেগেভের বিরুদ্ধে আনা অভিযেগের বিচার শুরু হয়৷ তবে বিচার প্রক্রিয়াটি উন্মুক্ত ছিল না৷

সেগেভের বিরুদ্ধে এর আগেও মাদকদ্রব্য পাচার, ভুয়া কূটনৈতিক পাসপোর্ট ব্যবহার ও ক্রেডিট কার্ড জালিয়াতিসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া গেছে৷

আরআর/এসিবি (রয়টার্স, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন