ইরানকে ‘বার্তা′ দিতে মার্কিন রণতরী মোতায়েন | বিশ্ব | DW | 06.05.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইরান

ইরানকে ‘বার্তা' দিতে মার্কিন রণতরী মোতায়েন

মধ্যপ্রাচ্যে বিমানবাহী রণতরী ও বোম্বার টাস্কফোর্স মোতায়েনের ঘোষণা দিয়েছে হোয়াইট হাউস৷ বলা হচ্ছে, এর লক্ষ্য ইরানকে এই বার্তা দেয়া যে, নিজেদের স্বার্থ রক্ষায় যে-কোনো কিছু করতে প্রস্তুত রয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র৷

ওয়াশিংটন ও তেহরানের মধ্যে উত্তেজনা বেড়েই চলেছে৷ এর মধ্যেই এলো মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনের এ ঘোষণা৷

গত বছর ইরানের সঙ্গে পশ্চিমা পরাশক্তিগুলোর পরমাণু চুক্তি থেকে একতরফা যুক্তরাষ্ট্রের নাম প্রত্যাহার করার পর থেকে দেশটির ওপর নানা ধরনের নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে আসছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প৷

সম্প্রতি ইরানের রেভোল্যুশনারি গার্ড বাহিনীকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা দেয় ট্রাম্প প্রশাসন৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে এই প্রথম অন্য কোনো দেশের সরকারি সংস্থাকে এই তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার ঘোষণা দেয়া হলো৷

‘স্পষ্ট ও সন্দেহাতীত' বার্তা

বোল্টন জানিয়েছেন, ‘বেশ কিছু ক্রমবর্ধমান উত্তেজনাকর পরিস্থিতির' পরিপ্রেক্ষিতে ইউএসএস আব্রাহাম লিংকন ক্যারিয়ার স্ট্রাইক গ্রুপের ও একটি বোম্বার টাস্ক ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে৷

ভিডিও দেখুন 00:50

অ্যামেরিকার মৃত্যু কামনা করলেন ইরানের সাংসদরা

মধ্যপ্রাচ্যে সেন্ট্রাল কমান্ড এরিয়ার দিকে এরই মধ্যে রওয়ানা হয়েছে ইউএসএস লিংকন৷ লোহিত সাগর, আরব সাগর বা  পারস্য উপসাগরে অবস্থান করতে পারে এটি৷ এই মুহূর্তে অঞ্চলটিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আর কোনো যুদ্ধজাহাজ অবস্থান করছে না৷

রণতরী মোতায়েনের বিষয়ে বিস্তারিত কোনো তথ্য জানানো হয়নি৷ তবে মার্কিন স্বার্থ রক্ষায় ‘সর্বশক্তির নির্মম' প্রয়োগ করতেও পিছপা হবে না যুক্তরাষ্ট্র, একথা স্পষ্ট জানিয়েছেন বোল্টন৷

তিনি বলেন, ‘‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইরানের সঙ্গে যুদ্ধে জড়াতে চায় না৷ কিন্তু যে-কোনো হামলা মোকাবিলায় আমরা প্রস্তুত থাকতে চাই, সেটা ছায়া যুদ্ধই হোক, ইসলামিক রেভোল্যুশনারি গার্ড বা ইরানের নিয়মিত সেনাবাহিনীই হোক৷''

রণতরী ঠিক কখন থেকে মোতায়েন থাকবে, সে বিষয়েও সুনির্দিষ্ট কিছু জানায়নি হোয়াইট হাউস৷

একটি যুদ্ধ-মহড়ায় অংশ নেয়ার জন্য এই মার্কিন রণতরী গত এপ্রিল থেকেই ইউরোপে ছিল৷

এডিকে/এসিবি (এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন