ইরানকে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ও বিদ্রোহীদের হত্যার পরিকল্পনা বন্ধ করতে বলল ইইউ | বিশ্ব | DW | 05.02.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইরান

ইরানকে ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা ও বিদ্রোহীদের হত্যার পরিকল্পনা বন্ধ করতে বলল ইইউ

ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও মধ্যপ্রাচ্যের বিরুদ্ধে অনাকাঙ্খিত আচরণ বন্ধ করতে বলেছে ইইউ৷ তবে এসব অভিযোগকে ‘ভিত্তিহীন' বলেছে তেহরান৷

ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের বক্তব্য

ইরানের ব্যালাস্টিক মিসাইল কর্মসূচি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ইরানের প্রতি আর কোনো ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা না করার আহ্বান জানিয়েছে৷ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করা হলে তা জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের নির্দেশের লঙ্ঘন হবে বলেও উল্লেখ করেছে তারা৷ ইরানের সামরিক কর্মকাণ্ড এবং সিরিয়ায় তাদের সেনা উপস্থিতি নিয়ে ব্রাসেলসের গভীর উদ্বেগ রয়েছে বলে জানিয়েছে ইইউ৷

ইরানের প্রতিক্রিয়া

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, এ ধরনের অভিযোগ ভিত্তিহীন৷ ইউরোপে সন্ত্রাসী এবং অপরাধ গ্রুপগুলো অবাধে বিচরণ করছে বলে দাবি করা হয় ঐ বিবৃতিতে৷ এতে আরো বলা হয়েছে, এই ধরনের অভিযোগের মাধ্যমে ইরানের বিরোধী দলগুলোকে উস্কে দেয়া হচ্ছে৷

যুক্তরাষ্ট্রের চাপ

 ওয়াশিংটন এরই মধ্যে ইরানের সঙ্গে ইউরোপীয় দেশগুলোকে সব ধরনের রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার আহ্বান জানিয়েছে৷ গত মাসে জার্মানিতে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রিচার্ড গ্রেনেল বলেছিলেন, ইরানের মাহান বিমান ঘাঁটি বন্ধে যুক্তরাষ্ট্র জার্মানিকে প্ররোচিত করেছিল, যদিও জার্মান সরকার যুক্তরাষ্ট্রের এমন কোনো চাপ থাকার কথা অস্বীকার করেছে৷

ইরান নতুন একটি ক্রুজ মিসাইল উন্মোচন করার পরই ইউরোপীয় ইউনিয়ন এই উদ্বেগ প্রকাশ করেছে৷ তেহরানের দাবি, এই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষায় জাতিসংঘের নির্দেশের লঙ্ঘন হবে না৷ কেননা, ক্ষেপণাস্ত্রটি পারমাণবিক ওয়ারহেড বহন করছে না৷

ইউরোপীয় ইউনিয়নের অভিযোগ, ফ্রান্স, ডেনমার্ক এবং নেদারল্যান্ডসে ইরানের যেসব বিদ্রোহী রয়েছে, তাদের গুপ্তহত্যার পরিকল্পনায় যুক্ত রয়েছে তেহরান৷ এ কারণে ইইউ ইরানের গোয়েন্দা এবং নিরাপত্তা বিভাগের উপর জানুয়ারি থেকে অবরোধ জারি করেছে৷

এপিবি/এসিবি (এফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন