ইন্দোনেশিয়ায় চলছে মাদক ব্যবসায়ী হত্যা | বিশ্ব | DW | 19.08.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ইন্দোনেশিয়া

ইন্দোনেশিয়ায় চলছে মাদক ব্যবসায়ী হত্যা

দেশটিতে গুণোত্তর হারে বেড়েছে সন্দেহভাজন মাদক ব্যবসায়ী হত্যা৷ অনেকেই বলছেন, মাদক রোধে দেশটি প্রতিবেশী ফিলিপাইন্সের পথে হাটছে, যা আশঙ্কাজনক৷

জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত কমপক্ষে ৬০ জন সন্দেহভাজন মাদক ব্যবসায়ীকে হত্যা করেছে পুলিশ৷ গত বছর অবশ্য সংখ্যাটি আরো কম ছিল৷ পুরো ২০১৬-তে ১৮ জন এমন হত্যার শিকার হন৷

অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল উদ্বেগ জানিয়ে বলেছে, ফিলিপাইন্সের মতো ইন্দোনেশিয়াও ‘মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ'-এর নামে নির্বিচারে এদের হত্যা করছে৷ সংস্থাটির ইন্দোনেশিয়া অংশের পরিচালক উসমান হামিদ বলেছেন, ‘‘এটি খুবই উদ্বেগজনক৷ অবশ্যই মাদকের ব্যবহার রোধে সরকারকে উদ্যোগ নিতে হবে৷ কিন্তু দেখা মাত্রই গুলি করে হত্যা করা কোন সমাধান নয়৷ এটা শুধু মানবাধিকার লঙ্ঘনই নয়, এই উদ্যোগ মাদক বিস্তারের মূল সমস্যার সমাধান করবে না৷''

মাদক পাচারের হাব হিসেবে পরিচিত রাজধানী জাকার্তা ও সুমাত্রার আশেপাশের অঞ্চলেই সবচেয়ে বেশি হত্যার ঘটনা ঘটেছে৷

শুধু আগস্টেই ছয় জন নিহত হয়েছেন৷ সর্বশেষ এক পঞ্চাশ বছরের প্রৌঢ়কে গ্রেফতার করার পর হত্যা করা হয়৷ পুলিশ দাবি করেছে, গ্রেফতারের পর সেই ব্যক্তি পুলিশের বন্দুক ছিনিয়ে নেবার চেষ্টা করেছিল৷

পুলিশের বক্তব্য অনুযায়ী, সবগুলো হত্যাই ‘আত্মরক্ষার্থে' অথবা সন্দেহভাজনরা ‘পালিয়ে যাবার সময়' করতে হয়েছে৷ অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলছে, এসব হত্যার কোনটিরই নিরপেক্ষ তদন্ত করা হয়নি৷

এ বছর বেশ কয়েকবার ইন্দোনেশিয়ার উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা মাদক সম্পর্কিত অপরাধ বন্ধে কঠোর হবার কথা বলেন৷ এরপরই হত্যাকাণ্ড বেড়ে যায়৷

জুলাইয়ের শেষ দিকে, প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো বলেন, ‘‘কঠোর হতে হবে৷ বিশেষ করে বিদেশি মাদক ব্যবসায়ীরা এদেশে ঢুকে মাদক ব্যবসা করছে, তাদের গ্রেফতার করুন৷ কোন ছাড় নয়৷''

২০১৭ সালে যাদের হত্যা করা হয়েছে তাদের মধ্যে তিন চীনা নাগরিক সহ অন্তত আট জন বিদেশি৷

‘‘বিদেশিদের টার্গেট করা হচ্ছে, যা অত্যন্ত উদ্বেগজনক৷ এতে করে দেশি হোতারা পার পেয়ে যাচ্ছেন,'' বলেন অ্যামনেস্টি ইন্দোনেশিয়ার পরিচালক উসমান৷

এ মাসেই যেসব মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার হবার সময় বাধা দেবে তাদের গুলি করার আদেশ দিয়েছেন পুলিশ প্রধান জেনারেল টিটো কার্নাভিয়ান৷ তিনি ফিলিপাইন্সের প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতার্তের ‘ওয়ার অন ড্রাগস'-এর উদাহরণ দিয়ে বলেন, এভাবেই মাদক নির্মূল করতে হবে৷

ফিলিপাইন্সে এ যাবৎ কয়েক হাজার সন্দেহভাজন মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীকে গুলি করে হত্যা করেছে পুলিশ৷ নির্বাচিত হবার পর প্রেসিডেন্ট দুতার্তে ২০১৬ সালের জুনে তাঁর ‘ওয়ার অন ড্রাগস' ঘোষণা করেন৷

এরপর থেকেই বেড়ে যায় বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড৷ দেশটির পত্রপত্রিকায় ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনার মুখেও থামেননি দুতার্তে৷

মাদক ব্যবসায়ী দেখলেই হত্যা করা হবে – এমন আইন কি আপনি সমর্থন করেন? জানান নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন