ইন্দোনেশিয়ায় ইংরেজি গান প্রচারে বিধিনিষেধ | বিশ্ব | DW | 02.02.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইন্দোনেশিয়া

ইন্দোনেশিয়ায় ইংরেজি গান প্রচারে বিধিনিষেধ

ইন্দোনেশিয়ার সবচেয়ে জনবহুল রাজ্য পশ্চিম জাভায় অনেকগুলো ইংরেজি গানের কথাকে ‘অশ্লীল' ও ‘নেতিবাচক' হিসেবে আখ্যায়িত করে সেগুলো প্রচারের ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে৷

এসব গান টেলিভিশন ও রেডিওতে প্রচারের সময় নির্দিষ্ট করে দেয়া হয়েছে৷ পশ্চিম জাভা প্রচার কমিশন ‘শুধু প্রাপ্তবয়স্কের জন্য' ৮৫টি ইংরেজি গান চিহ্নিত করেছে৷ এসব গান রাত ১০টা থেকে ভোর তিনটা পর্যন্ত প্রচার করা যাবে৷

গানগুলোর মধ্যে এড শিরানের ‘শেপ অফ ইউ', ব্রুনো মার্সের ‘দ্যাট'স হোয়াট আই লাইক' ও আরিয়ানা গ্রান্ডে'র ‘লাভ মি হার্ডার' রয়েছে৷

বিশ্বের সবচেয়ে বড় মুসলিম জনগোষ্ঠী অধ্যুষিত দেশ ইন্দোনেশিয়া আনুষ্ঠানিকভাবে অসাম্প্রদায়িক দেশ হলেও সম্প্রতি তারা অনেক কন্টেন্ট ও আচরণকে পর্নোগ্রাফিক হিসেবে চিহ্নিত করেছে এবং স্থানীয়শরিয়া আইন অনুযায়ী তাতে বিধিনিষেধ আরোপ করেছে৷

‘‘অশ্লীলতা, যৌনতা... ও মাদক- এ বিষয়গুলো দেখানো হচ্ছে এমন গান ও ভিডিওগুলো প্রচারে নিষেধাজ্ঞা আছে,'' প্রচার কমিশনের সদস্য নেনেঙ আতিয়াতুল ফাইজিয়াহ মঙ্গলবার এ কথা বলেন৷

তিনি বলেন যে, জনগণের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়েই এমন ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে৷ এমন আরো হাজারো গান নিয়ে অভিযোগ করা হয়েছে বলে জানান তিনি৷

ফাইজিয়াহ আরো বলেন যে, শুধু ইংরেজি নয়, ইন্দোনেশিয়ার ‘অ্যাডাল্ট' গানগুলো নিয়েও একটি তালিকা তৈরি করা হচ্ছে৷

পশ্চিম জাভায় ৪ কোটি ৮০ লাখ মানুষের বাস৷ইন্দোনেশিয়ার সবচেয়ে রক্ষণশীল রাজ্যগুলোর একটি এটি৷ জাতীয় পর্যায়েও পর্নোগ্রাফির বিরুদ্ধে কড়া আইন আছে দেশটির৷ সমালোচকরা দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশটিতে সৃজনশীল কাজের ওপর এই আইনের ভুল প্রয়োগের আশঙ্কা করছেন৷

গত মাসেও দেশটির সংসদ সংগীত বিষয়ক একটি বিল পাস করতে চেয়েছিল৷ কিন্তু শিল্পী ও অধিকার কর্মীদের প্রতিবাদের কারণে পারেনি৷ স্থানীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঐ বিলটিতে বলা হয়েছিল যে, এমন কোনো গান তৈরি করা যাবে না যেখানে বিদেশি সংস্কৃতির প্রভাব রয়েছে, কিংবা এসব গানের কারণে মানুষ সহিংস হয়ে ওঠেন এবং আইন ভঙ্গ করেন৷ প্রতিবাদকারীদের বক্তব্য ছিল, এই আইন তাদের বাক স্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ৷

জেডএ/জেডএইচ (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন