ইনফ্লুয়েঞ্জার ভাইরাস থেকে সতর্কতা | বিজ্ঞান পরিবেশ | DW | 18.02.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞান পরিবেশ

ইনফ্লুয়েঞ্জার ভাইরাস থেকে সতর্কতা

দেখতে বেশ সুন্দর হলেও কম মারাত্মক নয় এই ভাইরাসগুলি৷ খালি চোখে দেখা যায় না তাদের৷ তবে জ্বর, কাঁপুনি, মাথাব্যথা, সর্দিকাশি হলে তাদের উপস্থিতি টের পাওয়া যায়৷

জ্বর জ্বর লাগলেই যে তা ইনফ্লুয়েঞ্জা, সেটা কিন্তু সবসময় বলা যায় না৷ ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাসের টাইপ এ ও বি ভাইরাসের সংক্রমণ হলেই তাকে ইনফ্লুয়েঞ্জা বলা যায়৷ সাধারণ সর্দিকাশির জন্য রাইনোভাইরাস দায়ী৷ এগুলি তেমন ক্ষতিকর নয়৷

পছন্দ ঠাণ্ডা

ইনফ্লুয়েঞ্জার ভাইরাসরা ঠাণ্ডা পছন্দ করে, তাই শীতকাল হলেই তারা মাথা চাড়া দিয়ে ওঠে৷ জানুয়ারি মাসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জ্বরের প্রকোপ বেড়ে গিয়েছিল৷ রবার্ট কখ ইন্সটিটিউটের বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, জার্মানিতে এবছর ইনফ্লুয়েঞ্জার প্রাবল্য গত বছরের তুলনায় বৃদ্ধি পাবে৷ এখন এই প্রচণ্ড শীতে ডাক্তারের কাছে রোগীদের ভিড় দেখলে আঁচ করা যায় অবস্থাটা৷ হাঁচি কাশিরত রোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে৷

তথাকথিত স্প্যানিশ জ্বরের সময় ১৯১৮ থেকে ১৯২০ সাল পর্যন্ত ২৫ মিলিয়ন মানুষ মারা যায়৷ তাদের মধ্যে ২০ থেকে ৪০ বছর বয়সি মানুষের সংখ্যাও কম ছিল না৷

Grippeviren Tröpfcheninfektion

জ্বর জ্বর লাগলেই যে তা ইনফ্লুয়েঞ্জা, সেটা কিন্তু সবসময় বলা যায় না

সাধারণত শিশু ও বৃদ্ধরাই এই রোগে মারা যায় বেশি৷ অনেকেই ফুসফুসের সংক্রমণে মৃত্যু বরণ করে৷ তার ওপর আবার মারাত্মক ব্যাকটেরিয়া মস্তিষ্ক ও হার্টের পেশিও আক্রমণ করে রোগীদের৷

শুধু লক্ষণ দূর করা হয়

ভাইরাস বাহিত ইনফ্লুয়েঞ্জায় চিকিত্সকরা লক্ষণগুলি দূর করার চেষ্টা করেন৷ কাশির সিরাপ বা ব্যথা নিরোধক ওষুধের প্রেসক্রিপশন দেন৷ রোগটা কঠিন হলে ভাইরাস প্রতিরোধী ওষুধ দেয়া হয়৷ এরকমই এক ওষুধ ট্যামিফ্লু৷ জার্মানির বিভিন্ন রাজ্য এই দামি ওষুধ মজুত করে রাখে৷ যাতে জ্বর মহামারির আকার ধারণ করলে চিকিত্সা করা যায়৷ কিন্তু বেশি দিন জমিয়ে রাখার ফলে অনেক ওষুধেরই মেয়াদ উত্তীর্ণ যায়৷

প্রতিরোধী টিকা

ইনফ্লুয়েঞ্জা প্রতিরোধে এখন টিকাও দেয়া যায়৷ তবে ভাইরাসরা দ্রুত তাদের রূপ পরিবর্তন করতে পারে৷ তাই অতি সতর্কতার সাথে প্রতি বছর নতুন নতুন টিকা বের করা হয়৷

Bildergalerie Grippe

বার্ড ফ্লু আক্রান্ত মুরগী

কোনো কোনো টিকা প্রস্তুতকারী মুরগির ডিমে ভাইরাসের বিস্তার ঘটান৷ এই সব ভাইরাস থেকে টিকার উপাদান সংগ্রহ করা হয়৷

বার্ড ফ্লু

ইনফ্লুয়েঞ্জার ভাইরাস পাখিদেরও আক্রমণ করে৷ দেখা দেয় বার্ড ফ্লু মহামারি আকারে৷ এই জন্য দায়ী এইচফাইভএনওয়ান ভাইরাস৷ এর ফলে বহু হাঁস মুরগিকে মেরে ফেলতে হয়৷ ব্যবসায়ীরা হন ক্ষতিগ্রস্ত৷ সাধারণত পাখি থেকে পাখিতে সংক্রমিত হয় এই রোগ৷ কোনো কোনো ক্ষেত্রে হাঁস মুরগি থেকে মানুষও সংক্রমিত হয় এই ফ্লুতে৷

সোয়াইন ফ্লু

ইনফ্লুয়েঞ্জার ভাইরাস আক্রান্ত করে পশুদেরও৷ দেখা দেয় সোয়াইন ফ্লু৷ পশুগুলি শ্বাসনালীর রোগে আক্রান্ত হয়৷ এ জন্য এইচওয়ানএনওয়ান জাতীয় ভাইরাস দায়ী৷ এই ভাইরাস বিভিন্ন প্রাণীকে আক্রমণ করে, মানুষও বাদ যায় না৷ মনে করা হয় স্প্যানিশ ইনফ্লুয়েঞ্জার ক্ষেত্রেও এই ভাইরাসের ভূমিকা ছিল৷

Bildergalerie Grippe

ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাস প্রতিরোধী ওষুধ ট্যামিফ্লু

সোয়াইন ফ্লু ২০০৯ সালে মেক্সিকো ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র হয়ে ছড়িয়ে পড়ে ২০০ এরও বেশি দেশে৷ বিশেষ করে দক্ষিণ এশিয়া, পূর্ব আফ্রিকা, দক্ষিণ অ্যামেরিকার অনেক মানুষ আক্রান্ত হয় এই রোগে৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ডাব্লিউএইচও-এর তথ্য অনুযায়ী সেই মহামারিতে ১৮,০০০ মানুষ মারা যায়৷

প্রতিরোধের উপায়

ইনফ্লুয়েঞ্জা, জ্বরজ্বারি কিংবা সর্দিকাশিকে প্রতিহত করতে হলে সাবান দিয়ে হাত ধোয়াটা খুব গুরুত্বপূর্ণ৷ বিশেষ করে হাত না ধুয়ে চোখ বা নাক স্পর্শ করা একবারেই ঠিক নয়৷ এতে করে জীবাণুগুলি সহজেই ছড়িয়ে যেতে পারে৷ এছাড়া অসুস্থ ব্যক্তির সংস্পর্শ পরিহার করা উচিত৷ মানুষের ভিড়ে বেশি সময় কাটানো ঠিক নয়৷ সেই সাথে পর্যাপ্ত ঘুম ও পুষ্টিকর খাদ্য খাওয়া প্রয়োজন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন