ইচ্ছে করে হারতে ইরানি জুডো খেলোয়াড়কে নির্দেশ | বিশ্ব | DW | 13.09.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইরান

ইচ্ছে করে হারতে ইরানি জুডো খেলোয়াড়কে নির্দেশ

জুডোতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হওয়া ইসরায়েলের সাগি মুকির বিরুদ্ধে ফাইনালে যেন লড়তে না হয় সেজন্য সেমিফাইনালে হেরে যেতে ইরানের জুডো খেলোয়াড় সাঈদ মোল্লাইকে নির্দেশ দিয়েছিল দেশটির কর্তৃপক্ষ৷

বৃহস্পতিবার ডয়চে ভেলেকে এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে সেই ঘটনার আন্দোপান্ত তুলে ধরেছেন এই অ্যাথলেট৷

মোল্লাই অভিযোগ করেন, গত মাসে অনুষ্ঠেয় টোকিওর বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে তাকে ইসরায়েলের সাগি মুকির সঙ্গে যেন ফাইনালে খেলতে না হয় সেজন্য সেমিফাইনালে হেরে যাওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়৷ এই নির্দেশ মান্য না করলে আমি আমার দেশে ফিরতে পারার এমন কোনো গ্যারান্টি ছিল না৷''

ইসরায়েলের প্রতিপক্ষদের সঙ্গে ইচ্ছাকৃতভাবে হেরে যেতে দীর্ঘদিন ধরে ইরানের অ্যাথলেটদের অলিখিতভাবে আদেশ দেয়া হচ্ছে জানিয়ে মোল্লাই বলেন, এটি লিখিত কোনো আইন না হলেও কর্তৃপক্ষ আমাদের এটা করতে বলে এবং আমরা তা পালন করি৷

মোল্লাই জানান, তিনি সেমিফাইনালে হেরেছিলেন, কারণ তিনি বেশ চাপে ছিলেন৷ ‘‘বিভিন্ন কর্তৃপক্ষ আমাকে, আমার কোচকে ডেকেছিল এবং বলেছিল যে আমার কাছে তারা... আমাকে কি করতে হবে সেই সিদ্ধান্ত নিতে বলা হয়েছিল..কিন্তু তার আগে আমি দেখিয়েছিলাম আমি যে কাউকেই মারতে পারি৷ কিন্তু ওই পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়ে আমি আমার পরিবার ও ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে নিজেকে হারিয়ে ফেরি, আমি ঠিকমত লড়াই করতে পারিনি এবং হেরে যাই৷''

সেমিফাইনালে হেরে গিয়ে আর ইরানে ফিরে যাননি মোল্লাই৷ দীর্ঘমেয়াদী ভিসা নিয়ে জার্মানি এসেছেন তিনি এবং দেশটির এসলিংগেন ১৯৮৪ ক্লাবের হয়ে জার্মানির বুন্দেসলিগা প্রতিযোগিতায় অংশ নেবেন৷

নতুন জুডো বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইসরায়েলের সাগি মুকি সম্পর্কে মোল্লাই বলেন, সে আমার বন্ধু এবং আমি আশা করি একদিন আমরা এই বন্ধুত্বের মধ্য দিয়ে এটিকে ভাগ করে নিতে সক্ষম হব, কে জয়ী হলো সেটা বড় কথা নয়, গুরুত্বপূর্ণ হলো বন্ধুত্ব৷

পরবর্তী অলিম্পিকে জুডোতে স্বর্ণপদক জেতাই তাঁর মূল লক্ষ্য বলে জানিয়েছেন মোল্লাই৷ আগামী বছর টোকিও অলিম্পিকে অংশ নেওয়ার ব্যাপারে আন্তর্জাতিক জুডো ফেডারেশন (আইজেএফ) তাকে সহায়তা করার আশ্বাস দিয়েছে বলেও জানান তিনি৷

ফরিদ আশরাফিয়ান, চাক পেনফোল্ড/এসআই

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন