ইউরোপে করোনা সংক্রমণ বেড়ে চলায় দুশ্চিন্তা | বিশ্ব | DW | 22.09.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইউরোপ

ইউরোপে করোনা সংক্রমণ বেড়ে চলায় দুশ্চিন্তা

স্পেনসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে করোনা ভাইরাস আরো দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় কর্তৃপক্ষ কড়া পদক্ষেপ নিচ্ছে৷ শীতের মাসগুলিতে জার্মানিতে সংক্রমণের হার নিয়ন্ত্রণে রাখতে সরকার উদ্যোগ নিচ্ছে৷

মাদ্রিদের কিছু অঞ্চলে করোনা মারাত্মক আকার ধারণ করায় কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে

মাদ্রিদের কিছু অঞ্চলে করোনা মারাত্মক আকার ধারণ করায় কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে

ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের হার দ্রুত বেড়ে চলেছে৷ শরৎ ও শীতকালে সেই সংখ্যা আরো বাড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে৷ গ্রীষ্মে মানুষ খোলা আকাশের নীচে বেশি সময় কাটানোর পর তাপমাত্রা কমতে শুরু করলে বদ্ধ ঘরে জমায়েত বাড়বে৷ তখন সংক্রমণ আরো ছড়িয়ে পড়বে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন৷ সার্বিক লকডাউন ছাড়াই সেই পরিস্থিতি সামলানো ইউরোপের বিভিন্ন দেশের কাছে চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াচ্ছে৷

ইউরোপীয় রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ দপ্তর গত ১৪ দিনে প্রতি এক লাখ মানুষের মধ্যে ১২০ জনের সংক্রমণ নথিভুক্ত করেছে৷ সোমবার প্রকাশিত তথ্য পরিসংখ্যান অনুযায়ী, পাঁচটি দেশ সেই মাত্রা অতিক্রম করেছে৷ তালিকার শীর্ষে রয়েছে স্পেন৷ ফ্রান্সের দক্ষিণের কিছু অংশ, চেক প্রজাতন্ত্র, ক্রোয়েশিয়া ও রোমানিয়ায়ও সংক্রমণের হার দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদ এ সংলগ্ন অঞ্চলে করোনা মহামারি মারাত্মক আকার ধারণ করছে৷ পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপকে কেন্দ্র করে ফেডারেল ও স্থানীয় সরকারের মধ্যে সংঘাতের ফলে সমস্যা আরও বাড়ছে৷

ব্রিটেনে করোনা পরিস্থিতির অবনতিও অব্যাহত রয়েছে৷ শীতের মাসগুলিতে সে দেশে সংক্রমণের হার মারাত্মক আকার ধারণ করবে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা৷ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ও তাঁর মন্ত্রীরা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকারের পদক্ষেপ প্রস্তুত করতে সপ্তাহান্তে মিলিত হয়েছিলেন৷ সংক্রমণের গতি কমাতে সরকার সাময়িক বিধিনিয়ম ঘোষণা করবে বলে অনুমান করা হচ্ছে৷

জার্মানির ফেডারেল ও রাজ্য সরকারগুলিও শীতের মাসগুলিতে করোনা সংক্রমণের হার নিয়ন্ত্রণে রাখতে নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে৷ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইয়েন্স স্পান বলেছেন, প্রতিবেশী দেশগুলিতে করোনা সংক্রমণ বাড়ার ফলে জার্মানিতেও তার প্রভাব দেখা যাবে বলে তার আশঙ্কা৷ তিনি আরো দ্রুত গতিতে করোনা পরীক্ষা ও দেশজুড়ে জ্বর মাপার জন্য আলাদা স্বাস্থ্যকেন্দ্র চালু করার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন৷ এভাবে ডাক্তারের চেম্বারে ভিড় কমিয়ে করোনা পরীক্ষার বিচ্ছিন্ন ব্যবস্থা করা হবে৷ বদ্ধ ঘরে বেশি মানুষের সমাবেশের কারণে সংক্রমণ বেশি ছড়াচ্ছে, বলেন স্পান৷

‘দ্বিতীয় ঢেউ’ প্রতিরোধ করতে জার্মানির দক্ষিণের বাভেরিয়া রাজ্য সরকার কড়া বিধিনিয়ম চালু করছে৷ মিউনিখ শহরে বৃহস্পতিবার থেকেই নতুন নিয়ম চালু হচ্ছে৷ এর আওতায় ব্যস্ত এলাকায় প্রকাশ্যেও মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে৷ মানুষের মধ্যে সাক্ষাৎ যোগাযোগ কমাতে সর্বোচ্চ দুই পরিবার ও পাঁচ জন মানুষের বেশি জমায়েতের অনুমতি দেওয়া হবে না৷

এসবি/এসিবি (এপি, এএফপি)

১৫ সেপ্টেম্বরের ছবিঘরটি দেখুন...

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন