ইউরোপে আইটি পেশাজীবীদের চাহিদা রয়েছে | অন্বেষণ | DW | 08.02.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অন্বেষণ

ইউরোপে আইটি পেশাজীবীদের চাহিদা রয়েছে

ইউরোপে তথ্যপ্রযুক্তিতে দক্ষ কর্মীর বেশ চাহিদা রয়েছে৷ ফলে এসব বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে৷ সম্প্রতি বার্লিনে একটি পুরো বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে উঠেছে৷

সারা বিশ্ব থেকে আসা তরুণদের ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে গড়ে তুলছেন রাফায়েলা রাইন৷ তাঁর প্রতিষ্ঠানের নাম ক্যারিয়ার ফাউন্ড্রি৷ এমন পেশার চাহিদা সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘‘চাহিদা প্রচুর৷ আপনি যদি বড় গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান, গণমাধ্যম ও অন্যান্য কোম্পানিগুলোর দিকে তাকান, দেখবেন সবাই ডিজিটাল হতে চায়, অনলাইনে উপস্থিত থাকতে চায়৷ সেটা করতে হলে তাদের এমন কর্মী চাই, যাঁরা জানেন কীভাবে ডিজিটাল হতে হয়, কীভাবে দারুণ একটি ওয়েবসাইট ডেভেলপ করা যায়৷''

ক্যারিয়ার ফাউন্ড্রিতে ৪০ জন কর্মী কাজ করেন৷ আরেকজনের সঙ্গে মিলে বছর চারেক আগে প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলেন রাইন৷ তাঁরা শুধু অনলাইনে প্রশিক্ষণ দেন৷ বছরে কয়েক হাজার কোর্স করানো হয়৷ অ্যাপল ও ব্যাংক অফ অ্যামেরিকার মতো প্রতিষ্ঠান তাদের কর্মীদের জন্য ক্যারিয়ার ফাউন্ড্রিতে কোর্সের ব্যবস্থা করে৷ রাফায়েলা রাইন বলেন, ‘‘আমার মনে হয়, জার্মানরা নতুন কোনো আইডিয়াকে প্রথমে অদ্ভুতভাবে নেন৷ শুরুতে কিছুটা নেতিবাচক ভাব দেখায়৷ তাঁরা মনে করেন, এটা সফল হবে না৷ তিনি পুরুষ কিংবা নারী যে-ই হোন না কেন, আপনি এরকম প্রতিক্রিয়া পাবেন৷ আমরাও এমন প্রতিক্রিয়া পেয়েছি৷ ফলে যারা ২০১৩ কিংবা ২০১৪ সালে আমাদের এখানে বিনিয়োগ করেনি, তারা এখন তাদের ভুল বুঝতে পারছে৷''

আইটির উপর প্রশিক্ষণ দিতে বার্লিনে সম্প্রতি একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় যাত্রা শুরু করেছে৷ প্রতিষ্ঠাতা টম বাখেম নিজে একজন সফল স্টার্টআপ উদ্যোক্তা ছিলেন৷

শিক্ষার্থীদের জন্য ভবিষ্যতে চাকরি পাওয়া প্রায় নিশ্চিত, কেননা, ইউরোপজুড়ে আইটি পেশাজীবীদের চাহিদা রয়েছে৷ টম বাখেম বলেন, ‘‘বিভিন্ন কোম্পানির সঙ্গে মিলে আমরা লেখাপড়ার বিষয় ঠিক করি৷ ফলে বাস্তব জীবনের বিষয়গুলো এখানে অন্তর্ভুক্ত থাকে৷''

বিশ্ববিদ্যালয়টির নাম কোড৷ অনেক স্টার্টআপ ও ইন্টারনেট উদ্যোক্তার সঙ্গে কাজ করছে তারা৷ বিশ্ববিদ্যালয়টি ডিজিটাল পাইওনিয়ারদের একটি কমিউনিটি গড়ে তুলতে চায়৷ টিউশন ফি প্রতিমাসে সাড়ে সাতশ' ইউরো৷

সেখানে পাঠদানের ভাষা ইংরেজি৷ তিন বছর পড়ার পর শিক্ষার্থীরা ব্যাচেলর ডিগ্রি পান৷ ১২টি কোম্পানি কোডের সঙ্গে যুক্ত৷ ফলে অনেক প্র্যাকটিক্যালের সুযোগ আছে৷

প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থী এখানে ভর্তি হওয়ার জন্য আবেদন করেছিল৷ কিন্তু মাত্র ৮৮ জনকে নেয়া হয়েছে৷ ভবিষ্যতের ইঞ্জিনিয়ার, ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে তাদের অ্যাপ আর ওয়েবসাইট সম্পর্কে সবকিছু জানতে হবে৷

প্রতিষ্ঠাতা টম বাখেম স্টার্টআপ উদ্যোক্তা হিসেবে নিজে কয়েক মিলিয়ন ডলার আয় করেছেন৷ তবে এই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লাভের আশা করছেন না তিনি৷

আইটি ট্রেনিংয়ের গুরুত্ব প্রতিদিনই টের পান রাফায়েলা রাইন৷ বিভিন্ন কোম্পানি রাইনের কাছে ওয়েব ডিজাইনারের খোঁজ করে৷ নিজের প্রকল্প নিয়ে তিনি এতটাই আশাবাদী যে, প্রশিক্ষণ শেষে যাঁরা চাকরি পাবেন না তাঁদের ফি ফেরত দেয়ার অঙ্গীকার করেছেন রাইন৷

ক্রিস্টিয়ান প্রিসেলিউস/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

বিজ্ঞাপন