ইউরোপে আইটি পেশাজীবীদের চাহিদা রয়েছে | অন্বেষণ | DW | 08.02.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

ইউরোপে আইটি পেশাজীবীদের চাহিদা রয়েছে

ইউরোপে তথ্যপ্রযুক্তিতে দক্ষ কর্মীর বেশ চাহিদা রয়েছে৷ ফলে এসব বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে৷ সম্প্রতি বার্লিনে একটি পুরো বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে উঠেছে৷

সারা বিশ্ব থেকে আসা তরুণদের ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে গড়ে তুলছেন রাফায়েলা রাইন৷ তাঁর প্রতিষ্ঠানের নাম ক্যারিয়ার ফাউন্ড্রি৷ এমন পেশার চাহিদা সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘‘চাহিদা প্রচুর৷ আপনি যদি বড় গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান, গণমাধ্যম ও অন্যান্য কোম্পানিগুলোর দিকে তাকান, দেখবেন সবাই ডিজিটাল হতে চায়, অনলাইনে উপস্থিত থাকতে চায়৷ সেটা করতে হলে তাদের এমন কর্মী চাই, যাঁরা জানেন কীভাবে ডিজিটাল হতে হয়, কীভাবে দারুণ একটি ওয়েবসাইট ডেভেলপ করা যায়৷''

ক্যারিয়ার ফাউন্ড্রিতে ৪০ জন কর্মী কাজ করেন৷ আরেকজনের সঙ্গে মিলে বছর চারেক আগে প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলেন রাইন৷ তাঁরা শুধু অনলাইনে প্রশিক্ষণ দেন৷ বছরে কয়েক হাজার কোর্স করানো হয়৷ অ্যাপল ও ব্যাংক অফ অ্যামেরিকার মতো প্রতিষ্ঠান তাদের কর্মীদের জন্য ক্যারিয়ার ফাউন্ড্রিতে কোর্সের ব্যবস্থা করে৷ রাফায়েলা রাইন বলেন, ‘‘আমার মনে হয়, জার্মানরা নতুন কোনো আইডিয়াকে প্রথমে অদ্ভুতভাবে নেন৷ শুরুতে কিছুটা নেতিবাচক ভাব দেখায়৷ তাঁরা মনে করেন, এটা সফল হবে না৷ তিনি পুরুষ কিংবা নারী যে-ই হোন না কেন, আপনি এরকম প্রতিক্রিয়া পাবেন৷ আমরাও এমন প্রতিক্রিয়া পেয়েছি৷ ফলে যারা ২০১৩ কিংবা ২০১৪ সালে আমাদের এখানে বিনিয়োগ করেনি, তারা এখন তাদের ভুল বুঝতে পারছে৷''

আইটির উপর প্রশিক্ষণ দিতে বার্লিনে সম্প্রতি একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় যাত্রা শুরু করেছে৷ প্রতিষ্ঠাতা টম বাখেম নিজে একজন সফল স্টার্টআপ উদ্যোক্তা ছিলেন৷

শিক্ষার্থীদের জন্য ভবিষ্যতে চাকরি পাওয়া প্রায় নিশ্চিত, কেননা, ইউরোপজুড়ে আইটি পেশাজীবীদের চাহিদা রয়েছে৷ টম বাখেম বলেন, ‘‘বিভিন্ন কোম্পানির সঙ্গে মিলে আমরা লেখাপড়ার বিষয় ঠিক করি৷ ফলে বাস্তব জীবনের বিষয়গুলো এখানে অন্তর্ভুক্ত থাকে৷''

বিশ্ববিদ্যালয়টির নাম কোড৷ অনেক স্টার্টআপ ও ইন্টারনেট উদ্যোক্তার সঙ্গে কাজ করছে তারা৷ বিশ্ববিদ্যালয়টি ডিজিটাল পাইওনিয়ারদের একটি কমিউনিটি গড়ে তুলতে চায়৷ টিউশন ফি প্রতিমাসে সাড়ে সাতশ' ইউরো৷

সেখানে পাঠদানের ভাষা ইংরেজি৷ তিন বছর পড়ার পর শিক্ষার্থীরা ব্যাচেলর ডিগ্রি পান৷ ১২টি কোম্পানি কোডের সঙ্গে যুক্ত৷ ফলে অনেক প্র্যাকটিক্যালের সুযোগ আছে৷

প্রায় দুই হাজার শিক্ষার্থী এখানে ভর্তি হওয়ার জন্য আবেদন করেছিল৷ কিন্তু মাত্র ৮৮ জনকে নেয়া হয়েছে৷ ভবিষ্যতের ইঞ্জিনিয়ার, ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে তাদের অ্যাপ আর ওয়েবসাইট সম্পর্কে সবকিছু জানতে হবে৷

প্রতিষ্ঠাতা টম বাখেম স্টার্টআপ উদ্যোক্তা হিসেবে নিজে কয়েক মিলিয়ন ডলার আয় করেছেন৷ তবে এই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লাভের আশা করছেন না তিনি৷

আইটি ট্রেনিংয়ের গুরুত্ব প্রতিদিনই টের পান রাফায়েলা রাইন৷ বিভিন্ন কোম্পানি রাইনের কাছে ওয়েব ডিজাইনারের খোঁজ করে৷ নিজের প্রকল্প নিয়ে তিনি এতটাই আশাবাদী যে, প্রশিক্ষণ শেষে যাঁরা চাকরি পাবেন না তাঁদের ফি ফেরত দেয়ার অঙ্গীকার করেছেন রাইন৷

ক্রিস্টিয়ান প্রিসেলিউস/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

বিজ্ঞাপন