ইউরোপের কয়েকটি দেশে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসার ঘোষণা | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 14.04.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইউরোপ

ইউরোপের কয়েকটি দেশে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসার ঘোষণা

জার্মানির তিনটি প্রতিবেশি দেশ অস্ট্রিয়া এবং চেক প্রজাতন্ত্রের পর ধীরে ধীরে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসার ঘোষণা দিয়েছে ডেনমার্কও৷

প্রধানমন্ত্রী মেটে ফ্রেডেরিকসেন ১৫ এপ্রিল থেকে ডেনমার্কে কিন্ডারগার্টেন এবং প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলা হবে বলে ঘোষণা দিয়ে রেখেছেন৷ এতে যেসব মা-বাবা ‘হোম অফিস' করছেন তারা নিশ্চিন্তে বাসায় অফিসের কাজ করতে পারবেন৷ মে মাসের মাঝামাঝি সময়ে মিডল ও হাই স্কুলের শিক্ষার্থীরা আবার ক্লাস শুরু করতে পারেবে৷

কোপেনহেগেন সরকার প্রধান বলেছেন, এই পদক্ষেপটি হচ্ছে শুরুর দিকের প্রাথমিক সতর্কতা এবং আগামী কয়েক মাস নানা বিধিনিষেধ মেনে চলার জন্য ডেনিসদেরকে প্রস্তুত থাকতে হবে৷

তবে ডেনমার্কের রেস্তোঁরা, বার, চুল কাটার সেলুন এবং শপিং সেন্টার আপাতত বন্ধ থাকবে৷ দশ জনের বেশি মানুষের সমাবেশও আপাতত নিষিদ্ধ৷ জার্মানি যাওয়ার সীমান্ত বন্ধ থাকবে কমপক্ষে ১০ মে পর্যন্ত৷

সোমবার সকালে অস্ট্রিয়ার চ্যান্সেলর সেবাস্তিয়ান কুর্ৎস রাজধানী ভিয়েনায় ঘোষণা করেন ১৪  এপ্রিল থেকে কঠোর শর্ত মেনে ছোট ছোট দোকান এবং গার্ডেন সেন্টারগুলি আবার খুলতে পারবে৷ পয়লা মে থেকে শপিং সেন্টার এবং পার্লারগুলো খোলা রাখার অনুমতি পেলেও হোটেল, রেস্তোরাঁ খুলবে মে মাসের মাঝামাঝি থেকে৷ স্কুল বন্ধ থাকবে মে মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত এবং কোনো ধরনের সমাবেশ নিষিদ্ধ আগামী জুন মাস পর্যন্ত৷

এদিকে প্রাগের মন্ত্রিসভা সিদ্ধান্ত নিয়েছে চেক প্রজাতন্ত্রও নিষিদ্ধ ঘোষিত করোনা ব্যবস্থা কিছুটা শিথিল করবে৷ টেনিস এবং গল্ফ খেলা আবার অনুমতি দেওয়া হবে৷ এছাড়াও বিভিন্ন হবি স্টোর এবং সাইকেল মেরামতের দোকান খোলা রাখা যাবে৷

চেক সরকার তার নাগরিকদেরও প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল যে, ১৪ ই এপ্রিল থেকে ব্যবসায়িক ভ্রমন, চিকিত্সা এবং পারিবারিক দেখাসাক্ষাতের মতো জরুরি ভ্রমণে তারা আবার দেশের বাইরে যেতে পারবে৷ শিল্পমন্ত্রী কারেল হাভলিচেক একথা বলেন৷ তিনি আরো বলেন, এসব ভ্রমণ থেকে ফিরে আসার পরে তাদের ১৪ দিন কোয়ারান্টিন বাধ্যতামূলক ৷

এনএস/কেএম (ডিপিএ, এএফপি)

সংশ্লিষ্ট বিষয়