ইউরোপে বাংলাদেশের পণ্য রপ্তানি বাড়ছে | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 05.04.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

ইউরোপে বাংলাদেশের পণ্য রপ্তানি বাড়ছে

ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশে বাংলাদেশের পণ্য রপ্তানি বাড়ছে৷ গতবছর রপ্তানি আয় বেড়েছে ৬ ভাগ৷ ইইউ মিশন প্রধান স্টিফেন ফ্রয়েন বলেছেন, বাংলাদশ এখন নিজের পায়ে দাঁড়াচ্ছে৷ কমিয়ে ফেলছে বিদেশি সাহায্যের ওপর নির্ভরতা৷

default

একটি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরির নারী শ্রমিক

বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি পণ্য রপ্তানি করে ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোতে৷ মোট রপ্তানি আয়ের ৬০ ভাগ আসে ওইসব দেশ থেকে৷ আর এই রপ্তানি ক্রমেই বাড়ছে৷ গতবছর রপ্তানি বেড়েছে ৬.৩ ভাগ৷ ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোতে বাংলাদেশের প্রধান রপ্তানি পণ্য তৈরি পোশাক৷ এর পরিমাণ মোট রপ্তানি পণ্যের ৯০ ভাগ৷ তারপর হিমায়িত খাদ্য, চামড়া, পাট ও চায়ের অবস্থান৷

ইউরোপীয় ইউনিয়নের মিশন প্রধান স্টিফেন ফ্রয়েন সোমবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে ইউরোপের বাজারে রপ্তানি বাড়ানো বাংলাদেশের একটি অর্জন৷ তিনি বলেন, যেসব ফ্যাক্টর বাংলাদেশের অর্থনীতিতে ভূমিকা পালন করে তারমধ্যে প্রধান হল তৈরি পোষাক৷ এরপর জনশক্তি রপ্তানি৷

স্টিফেন ফ্রয়েন বলেন, বর্তমান অবস্থায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন নিজেকে বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক অংশীদার হিসেবে বিবেচনা করছে৷ বাংলাদেশেও ইউরোপীয় দেশের যন্ত্রপাতি ও রাসায়নিকের বড় বাজার রয়েছে৷ তিনি বলেন, বাংলাদেশ বিদেশি সাহায্যের ওপর নির্ভরতা কমিয়ে নিজের পায়ে দাঁড়াচ্ছে৷ বাংলাদেশ বছরে বৈদেশিক সহায়তা নেয় ২ বিলিয়ন ইউরো৷ বিপরীতে বাণিজ্য এবং জনশক্তি রপ্তানি থেকে আয় করে ২০ বিলিয়ন ইউরো৷ এতেই এর অর্থনৈতিক শক্তি বোঝা যায়৷

স্টিফেন ফ্রয়েন বলেন, বিশ্ব অর্থনৈতিক মন্দা ইউরোপে বাংলাদেশের বাণিজ্য কমাতে পারেনি৷ রপ্তানিকারকদের দক্ষতা, সৃজনশীলতা এবং কাজের পরিবেশই এর অন্যতম কারণ বলে তিনি উল্লেখ করেন৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক