ইউরোপের সবচেয়ে বড় বিদ্যুৎ সংরক্ষণ কেন্দ্র | বিজ্ঞান পরিবেশ | DW | 18.09.2014

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞান পরিবেশ

ইউরোপের সবচেয়ে বড় বিদ্যুৎ সংরক্ষণ কেন্দ্র

ইউরোপের সবচেয়ে বড় বিদ্যুৎ সংরক্ষণ কেন্দ্রটি এখন জার্মানিতে৷ জার্মানির অর্থমন্ত্রী জিগমার গাব্রিয়েল এটির উদ্বোধন করেন৷ ৬০ লক্ষ ইউরো ব্যয়ে তৈরি করা এই বিদ্যুৎ সংরক্ষণ কেন্দ্র বিদ্যুতের অপচয় রোধে বড় ভূমিকা রাখবে৷

Symbolbild Verbraucher Strom Preis Stecker und Steckdose

প্রতীকী ছবি

মেকলেনবুর্গ-ফোরপমার্ন রাজ্যের শোয়েরিন শহরে সদ্য তৈরি করা বিদ্যুৎ সংরক্ষণ কেন্দ্রটি চলবে ২৫ হাজার লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারির সহায়তায়৷ প্রচুর অর্থ ব্যয় করা হলেও কেন্দ্রটি খুব বেশি বড় নয়, ছোটখাট একটা স্কুল ঘরের আকারের৷

জার্মানিতে বাতাস আর সূর্যের আলোকে কাজে লাগিয়ে প্রচুর বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হয়৷ কিন্তু সংরক্ষণের ব্যবস্থা না থাকায় উৎপাদিত বিদ্যুৎ সবসময় যথাযথভাবে ব্যবহার করা যায়না৷ জার্মানির উত্তরের রাজ্য মেকলেনবুর্গ-ফোরপমার্নে এই সমস্যা দূর করতেই শোয়েরিনে গড়ে তোলা হয়েছে ইউরোপের সবচেয়ে বড় বিদ্যুৎ সংরক্ষণ কেন্দ্র৷

দেশের মোট চাহিদার শতকরা অন্তত ২৫ ভাগ নবায়নযোগ্য জ্বালানি থেকে উৎপাদনের লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে জার্মানি৷ এর মাত্রা ক্রমান্বয়ে বাড়িয়ে ২০৩৫ সাল নাগাদ শতকরা ৫৫ থেকে ৬০ ভাগ করতে চায় দেশটি৷ বিদ্যুৎ সংরক্ষণের সুব্যবস্থার অভাব এ লক্ষ্য পূরণের পথে বড় এক বাধা৷ শোয়েরিনের কেন্দ্রটি মেকলেনবুর্গ-ফোরপমার্ন রাজ্যে এ সমস্যা সমাধানে ভূমিকা রাখবে৷

২০১৩ সালে এ রাজ্যে বাতাস থেকে ( মূলত উইন্ড পার্কের মাধ্যমে) তৈরি বিদ্যুতের শতকরা মোট ৮০ ভাগ কাজে লাগানো সম্ভব হয়েছিল৷ নবনির্মিত সংরক্ষণ কেন্দ্রটির কারণে এ বছর উৎপাদিত বিদ্যুতের পুরোটাই কাজে লাগানো যাবে বলে আশা করা হচ্ছে৷

এসিবি/এসি (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়