ইউক্রেনে জার্মানির বিরোধী নেতা | বিশ্ব | DW | 04.05.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

ইউক্রেনে জার্মানির বিরোধী নেতা

ইউক্রেন গিয়ে প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির সঙ্গে দেখা করলেন জার্মানির বিরোধী নেতা ফ্রিডরিক মার্জ। যুদ্ধবিধ্বস্ত ইরপিনেও গেলেন তিনি।

ইরপিন ঘুরে দেখছেন সিডিইউ নেতা।

ইরপিন ঘুরে দেখছেন সিডিইউ নেতা।

রাশিয়ার হামলার পর জার্মানির চ্যান্সেলার শলৎস এখনো ইউক্রেনে যাননি। তবে জার্মানির রক্ষণশীল বিরোধী দল সিডিইউ নেতা ফ্রিডরিক মার্জ মঙ্গলবার ইউক্রেন সফরে যান।

মার্জ কিয়েভের কাছের শহর ইরপিন ঘুরে দেখেন। একসময় এই শহর রাশিয়া দখল করে নিয়েছিল। এখন তা আবার ইউক্রেনের অধিকারে এসেছে। তিনি সেখানকার মেয়রের সঙ্গে দেখা করার পর জানিয়েছেন, ''এখানে যা হয়েছে তা নিজের চোখে দেখলাম। যারা এই ঘটনায় ভুক্তভোগী, তাদের অসাধারণ প্রয়াসের সাক্ষী থাকলাম।''

মার্জ বলেছেন, তিনি মনে করেন, ইউক্রেনে আবার নতুন করে সবকিছু গড়ে তোলার কাজে জার্মানির সাহায্য করা উচিত। 

সিডিইউ নেতা পরে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কির সঙ্গে দেখা করেন। প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র জানিয়েছেন, বৈঠক খুবই ভালো হয়েছে। বৈঠকের পরিবেশ ও আলোচনার বিষয়বস্তু দুইই খুব ভালো ছিল। পরে মার্জ ইউক্রেনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গেও দেখা করেন।

বিতর্কিত সফর

মার্জ হলেন সাবেক চ্যান্সেলর ম্যার্কেলের দলের নেতা। গত জানুয়ারিতে তিনি সিডিইউ-র নেতা নির্বাচিত হন। সিডিইউ ১৬ বছর পর সম্প্রতি ফেডারেল নির্বাচনে হেরে গেছে এবং শলৎস চ্যান্সেলর হয়েছেন।

ইউক্রেন-নীতি নিয়ে শলৎস সম্প্রতি সমালোচনার মুখে পড়েছেন। অভিযোগ উঠেছে, তিনি ইউক্রেনে ভারী অস্ত্র পাঠানো নিয়ে দ্বিধায় ছিলেন এবং তিনি ইউক্রেন সফরেও যাননি। শলৎস জানিয়েছেন, জার্মানির প্রেসিডেন্টকে কিয়েভে যাওয়ার অনুমতি দেয়নি ইউক্রেন। ইউক্রেন তার সঙ্গে অতীতে রাশিয়ার সম্পর্কের কথা তুলে আপত্তি জানিয়েছিল। এটাই তার সিদ্ধান্তকে প্রভাবিত করেছে। ইউক্রেন অবশ্য জানিয়েছে, শলৎস যে কোনো সময়ে কিয়েভ যেতে পারেন। তাকে ইউক্রেনে স্বাগত জানানো হবে।

জিএইচ/এসজি (এপি, ডিপিএ)