ইইউ-র মর্যাদা কমিয়ে দিলো যুক্তরাষ্ট্র | বিশ্ব | DW | 08.01.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ইইউ-র মর্যাদা কমিয়ে দিলো যুক্তরাষ্ট্র

যুক্তরাষ্ট্রে ২০১৬ সাল থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউ'র রাষ্ট্রদূত একটি সদস্য রাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের মতো মর্যাদা পেতেন৷ কিন্তু এখন আর সেটি পাচ্ছেন না৷ এই পরিবর্তনের খবরও ইইউকে জানানো হয়নি৷

ইইউর এক কর্মকর্তা ডয়চে ভেলেকে এ সব তথ্য নিশ্চিত করেছেন৷ তিনি বলেন, ‘‘ঠিক কখন তাঁরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন আমরা জানি না, কারণ, তাঁরা আমাদের জানাতে ভুলে গেছেন৷'' ইইউ মিশনের মর্যাদা কমিয়ে এখন আন্তর্জাতিক সংগঠন পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷

 ওয়াশিংটনে নিযুক্ত ইইউর এক সদস্য দেশের একজন কূটনীতিকও ইইউ মিশনের মর্যাদা কমানোর বিষয়টি ডয়চে ভেলেকে নিশ্চিত করেছেন৷ বিষয়টি নিয়ে ইইউ কূটনীতিকরা মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করেছেন বলেও জানান তিনি৷ ‘‘তাঁরা আমাদের বলেছেন যে, তাঁরা আমাদের জানাতে ভুলে গেছেন৷ এবং তাঁরা এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, কারণ চিফ অফ প্রটোকল মনে করেন, এটাই ঠিক সিদ্ধান্ত,'' বলেন ঐ কূটনীতিক৷

গত বছরের শেষ দিকে কয়েকটি অনুষ্ঠানে ওয়াশিংটনে ইইউর রাষ্ট্রদূত ডেভিড ও'সুলিভানকে আমন্ত্রণ না জানানোয় বিষয়টি প্রথম ইইউর নজরে আসে৷ এরপর ৫ ডিসেম্বর সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ এইচ.ডাব্লিউ বুশের শেষকৃত্যানুষ্ঠানের আয়োজকরা ইইউর মর্যাদা কমানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেন৷

নিয়ম অনুযায়ী, সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্টকে সম্মান জানাতে ওয়াশিংটনে সবচেয়ে বেশি সময় ধরে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতদের প্রথমে ডাকা হয়৷ এভাবে ক্রমান্বয়ে সবচেয়ে নতুন রাষ্ট্রদূত পর্যন্ত যাওয়া হয়৷ সে হিসেবে, প্রায় দেড়শ' রাষ্ট্রদূতের মধ্যে ইইউ রাষ্ট্রদূতকে ২০ কিংবা ৩০-এর মধ্যে ডাকার কথা৷ কিন্তু তাঁকে ডাকা হয় একেবারে শেষে৷

ইইউর কূটনীতিক জানান, মর্যাদা কমানোর বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে একটি প্রতিক্রিয়া জানানোর প্রস্তুতি চলছে৷ তিনি বলেন, নতুন সরকার আসার পর প্রটোকলের বিষয়টি পুনরায় বিবেচনা করে দেখা নতুন নয়৷ কিন্তু এক্ষেত্রে সিদ্ধান্তটি নেয়া হয়েছে প্রায় দুই বছর পর৷ এছাড়া মর্যাদা কমানোর সিদ্ধান্তটি সংশ্লিষ্ট মিশনকে লিখিতভাবে না জানানোর ঘটনাও বিরল, বলে জানান ইইউর ঐ কূটনীতিক৷

বিষয়টি নিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যোগাযোগ করা হলে তাঁরা এই বিষয়ে উত্তর দেননি৷ এক্ষেত্রে সরকারে ‘শাটডাউন' চলার কারণে সীমিত কাজকর্মের যুক্তি দিয়েছেন তাঁরা৷

মিশায়েল ক্নিগে/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন