ইইউ-ব্রিটেন আলোচনার উপর করোনার কালো ছায়া | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 20.11.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইউরোপ

ইইউ-ব্রিটেন আলোচনার উপর করোনার কালো ছায়া

সোমবারের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য চুক্তি সম্পর্কে বোঝাপড়ার উদ্যোগ নিচ্ছে ইইউ ও ব্রিটেন৷ এদিকে এক ইইউ প্রতিনিধির করোনা সংক্রমণের কারণে মুখোমুখি আলোচনা বন্ধ রাখতে হয়েছে৷

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

আগামী ১লা জানুয়ারি ব্রিটেন পুরোপুরি ইউরোপীয় ইউনিয়ন ত্যাগ করার পর দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য চুক্তির পথে একের পর এক বাধা সৃষ্টি হচ্ছে৷ এবার আলোচনার মেয়াদ শেষ হবার ঠিক আগে ইইউ মধ্যস্থতাকারীদের দলের এক সদস্যের করোনা সংক্রমণের কারণে আলোচনা বন্ধ রাখতে হলো৷ ফলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত মুখোমুখি আলোচনা শুরু হচ্ছে না৷ তার বদলে অনলাইন প্রক্রিয়ায় সংলাপ চালানো হবে৷ এখনো পর্যন্ত দুই প্রতিনিধিদলের মধ্যে কোনো ব্যক্তির কোভিড-১৯ সংক্রমণের খবর পাওয়া যায় নি৷

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ইইউ কর্মকর্তার বক্তব্য অনুযায়ী আগামী সোমবারের মধ্যে বাণিজ্য চুক্তির খসড়া প্রস্তুত না হলে চুক্তিহীন ব্রেক্সিট অনিবার্য হয়ে পড়বে৷ তাঁর মতে, শীর্ষ স্তরে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত না বদলালে বোঝাপড়ার সম্ভাবনা কম৷ তবে ফিনল্যান্ডের ইউরোপ বিষয়ক মন্ত্রী টুটি টুপুরাইনেন চুক্তি সম্পর্কে আশা প্রকাশ করেন৷ সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে তিনি বলেন, হাতে সময় এত কম থাকায় চাপ আরও বেড়ে গেছে৷

শেষ পর্যন্ত বোঝাপড়া সম্ভব না হলে চুক্তিহীন ব্রেক্সিটের প্রস্তুতির জন্য চাপ দিচ্ছে কিছু দেশ৷

নেদারল্যান্ডস, ফ্রান্স, বেলজিয়াম ও স্পেন ইউরোপীয় কমিশনের উদ্দেশ্যে আপদকালীন পরিকল্পনা সময়োপযোগী করে তোলার ডাক দিয়েছে৷ ১লা জানুয়ারি থেকে বাণিজ্যের পথে যে সব বাধা সৃষ্টি হতে পারে, সে বিষয়ে আগেভাগে প্রস্তুত থাকার উপর জোর দিচ্ছে এই দেশগুলি৷ ইইউ কমিশন অবশ্য আলোচনার সময়সীমা শেষ হবার আগে আপদকালীন পরিকল্পনা প্রকাশ করতে চাইছে না৷

দুই পক্ষের মুখরক্ষা হয়, এমন সমাধানসূত্র কীভাবে সম্ভব হতে পারে সে বিষয়ে এখনো কোনো স্পষ্ট চিত্র পাওয়া যাচ্ছে না৷ ইইউ-র অভ্যন্তরীণ বাজারের দায়িত্বপ্রাপ্ত কমিশনার টিয়েরি ব্রেতোঁ বলেন, ইইউ ত্যাগ করার পরেও ব্রিটেন অভ্যন্তরীণ বাজারের সুবিধা ভোগ করতে চায় বলে তিনি মনে করেন৷ সে ক্ষেত্রে ব্রিটেনকে প্রতিযোগিতার ন্যায্য নিয়ম মেনে নিতে হবে৷ তা না হলে বাণিজ্য চুক্তি সম্ভব হবে না, বলেন ব্রেতোঁ৷ মাছ ধরার অধিকারসহ সংঘাতের বাকি কারণগুলির ক্ষেত্রে ইইউ নমনীয়তা দেখাতে প্রস্তুত কিনা, তা এখনো স্পষ্ট নয়৷ ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, ব্রিটেন এখনো ইইউ-র সঙ্গে শুল্ক ও অন্যান্য বাধা ছাড়া বাণিজ্য চালিয়ে যেতে আগ্রহী৷

ইইউ কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন আগামী বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় এক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ইইউ শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করবেন৷ ব্রেক্সিটসহ একাধিক বিষয়ে তিনি বক্তব্য রাখবেন৷

সোমবারের মধ্যে সাফল্য সম্ভব না হলে আলোচনার মেয়াদ বাড়ানোর কোনো সম্ভাবনা রয়েছে কিনা, সে বিষয়ে এখনো স্পষ্ট কোনো ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে না৷ তবে আপোশের স্পষ্ট সম্ভাবনা দেখা দিলে ‘টেকনিকাল এক্সটেনশন' বা প্রক্রিয়াগত কারণে মেয়াদ সামান্য বাড়ানোর সম্ভাবনা উড়িয়ে দিচ্ছেন না বিশেষজ্ঞরা৷

এসবি/জেডএইচ (রয়টার্স, এপি)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন