ইংল্যান্ডের সব দল সুপার লিগ থেকে সরে দাঁড়িয়েছে | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 21.04.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ইংল্যান্ড

ইংল্যান্ডের সব দল সুপার লিগ থেকে সরে দাঁড়িয়েছে

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ছয়টি ক্লাবই সরে দাঁড়িয়েছে ইউরোপিয়ান সুপার লিগ থেকে৷ যার ফলে, বিতর্কিত প্রতিযোগিতা শুরুর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা আসার দুই দিনের মাথাতেই তা ভেস্তে যাওয়ার সম্ভাবনা আরও জোরালো হলো৷

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

গত রোববার রাতে এতে যোগ দেওয়া ১২টি ক্লাব উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রতিদ্বন্দ্বী ইউরোপিয়ান সুপার লিগের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়৷ এর মধ্যে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগেরই ছয়টি দল; ম্যানচেস্টার সিটি, চেলসি, আর্সেনাল, লিভারপুল, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও টটেনহ্যাম হটস্পার৷  

স্পেনের রিয়াল মাদ্রিদ, বার্সেলোনা ও আতলেতিকো মাদ্রিদ এবং ইতালির ইউভেন্তুস, ইন্টার মিলান ও এসি মিলান -এই ছয় দল এই টুর্নামেন্টের প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েছে৷

প্রতিযোগিতাটি থেকে সরে দাঁড়ানোর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয় এবারের প্রিমিয়ার লিগের পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা সিটি ও সাত নম্বর দল টটেনহ্যাম৷

বিবিসি, রয়টার্সসহ অনেকগুলো সংবাদমাধ্যমে ইংল্যান্ডের ছয় দলের সরে যাওয়ার খবর দিয়েছে৷

মঙ্গলবার রাতে ব্রাইটন অ্যান্ড হোভ অ্যালবিওনের বিপক্ষে ম্যাচের আগেই স্ট্যামফোর্ড ব্রিজের বাইরে প্রিয় দল চেলসির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানায় প্রায় হাজার খানেক সমর্থক ৷ আগের দিন লিভারপুল-লিডস ইউনাইটেড ম্যাচেও ছিলো একই রকম দৃশ্য৷

সুপার লিগের বিরোধিতা করে ম্যাচের আগে ‘ফুটবল সমর্থকদের জন্য' লেখা টি-শার্ট পরে অনুশীলন করে লিডসের খেলোয়াড়রা৷ লিভারপুল সমর্থকরা ক্লাবের সমালোচনা করে অ্যানফিল্ডের বাইরে বিভিন্ন ব্যানার টাঙায়৷

ধারণা করা হচ্ছে, মূলত বিশ্বব্যাপী প্রবল সমালোচনা ও বিরোধিতার কারণেই দলগুলো সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷

তবে মঙ্গলবার পরিস্থিতি যে অনেকটাই পাল্টে গেছে, সেটা স্পষ্ট৷ এর কারণ হতে বিশ্বব্যাপী শুরু হওয়া সমালোচনা, আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে দল ও খেলোয়াড়দের নিষিদ্ধ হওয়ার ভয়, রাজনৈতিক চাপ কিংবা দলের খেলোয়াড়দের অভিমত ৷

এনএস/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

ভিডিও দেখুন 01:50

ইউরোপিয়ান সুপার লিগ: ফুটবলের জন্য ভালো নাকি খারাপ? (২০.০৪.২০২১)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়