ইংলিশ চ্যানেলে নৌকাডুবি, ৩১ অভিবাসীর মৃত্যু | বিশ্ব | DW | 25.11.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

ইংলিশ চ্যানেলে নৌকাডুবি, ৩১ অভিবাসীর মৃত্যু

ইংলিশ চ্যানেলে একটি খালি নৌকা ও জলে ভেসে থাকা মৃতদেহ খুঁজে পান মৎসজীবীরা। অন্ততপক্ষে ৩১ জন অভিবাসীর মৃত্যু।

ইংলিশ চ্যানেলে নৌকাডুবির পর ভাসছে একটি লাইফ জ্যাকেট।

ইংলিশ চ্যানেলে নৌকাডুবির পর ভাসছে একটি লাইফ জ্যাকেট।

বুধবার এই দুর্ঘটনা ঘটে। ৩৪ জন মানুষ ওই ডিঙি নৌকায় ছিলেন বলে ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন। নৌকাটি ডুবে যায়। ৩১ জনের মৃতদেহ পাওয়া গেছে। দুই জন বেঁচে গেছেন। তাদের উদ্ধার করা হয়েছে। নৌকাটি ফ্রান্সের সমুদ্রতটের কাছে ছিল এবং যুক্তরাজ্যে যাচ্ছিল।

ফ্রান্সের মন্ত্রীর দাবি, ইংলিশ চ্যানেলে সাম্প্রতিক সময়ে অভিবাসী-নৌকার এটাই সব চেয়ে ভয়াবহ দুর্ঘটনা।

ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন জানিয়েছে, ২০১৪ সালের পর থেকে ইংলিশ চ্যানেলে অভিবাসীদের নিয়ে এত বড় নৌকাডুবি আর হয়নি।

মৃতদের মধ্যে পাঁচজন নারী ও একজন শিশু। এই নৌকাডুবির পর চারজন পাচারকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

Migranten ertrinken beim Überqueren des Kanals nach Großbritannien

এভাবেই ইংলিশ চ্যানেল পেরিয়ে যুক্তরাজ্যে যেতে চেয়েছিলেন শরণার্থীরা।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট মাক্রোঁ ইইউ মন্ত্রীদের নিয়ে একটি জরুরি বৈঠক ডাকেন। সেখানে শরণার্থী সমস্যা নিয়ে আলোচনা করা হয়। মাক্রোঁ বলেছেন, ইংলিশ চ্যানেলকে তিনি কিছুতেই সমাধিক্ষেত্র হতে দেবেন না।

জনসনের বক্তব্য

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলছেন, ‘‘আমি এই ঘটনায় শোকস্তব্ধ। মৃতের পরিবারের প্রতি আমি সহানুভূতি জানাচ্ছি। এই ঘটনা এটাও দেখিয়ে দিচ্ছে যে, এভাবে ইংলিশ চ্যানেল পার করা কতটা বিপজ্জনক।’’

জনসন জানিয়েছেন, ‘‘আমরা সর্বশক্তি দিয়ে মানব-পাচারকারী এবং গ্যাংস্টারদের নিকেশ করব। আমরা ফ্রান্সের সঙ্গে, ইউরোপের অন্য দেশের সঙ্গে একযোগে কাজ করব। পাচারকারীরা শরণার্থীদের মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিচ্ছে, তারপরেও পার পেয়ে যাচ্ছে। এটা হতে পারে না।’’

জিএইচ/এসজি(এএফপি, এপি, রয়টার্স)

সংশ্লিষ্ট বিষয়