আসামের নিরাপত্তা জোরদার | বিশ্ব | DW | 30.08.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

আসামের নিরাপত্তা জোরদার

সংশোধিত নাগরিকপঞ্জি প্রকাশের আগের দিন শুক্রবার আসামের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে, মোতায়নে করা হয়েছে অতিরিক্ত ১৭ হাজার পুলিশ৷

ভারতের খসড়া নাগরিকপঞ্জির (ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেন্স-এনআরসি) তালিকা থেকে উত্তর-পূর্ব আসাম রাজ্যের প্রায় ৪০ লাখ বাসিন্দা বাদ পড়েন৷ শনিবার সংশোধিত তালিকা প্রকাশ করা হবে৷

করিমগঞ্জের আইনজীবী শিশির দে ডয়চে ভেলেকে জানান, ৩১ আগস্টের তালিকা থেকে যারা বাদ পড়বেন তাদের স্থানীয় এনআরসি অফিস থেকে প্রত্যাখ্যান সংক্রান্ত আদেশের অনুলিপি দেওয়া হবে৷ এটি নিয়ে তারা ১২০ দিনের মধ্যে বিদেশি ট্রাইব্যুনালে আপিল করতে পারবেন৷ আপিলের রায় যারা পক্ষে পাবেন তাদের নাম এনআরসিতে অন্তর্ভুক্ত করা হবে৷ যারা আপিলে হেরে যাবেন তাদের ভাগ্যে কি আছে তা এখনো পরিষ্কার না৷

সীমান্ত লাগোয়া ভারতীয় রাজ্য আসামের নাগরিকপঞ্জি নিয়ে বাংলাদেশে উদ্বেগ রয়েছে৷ সম্প্রতি বাংলাদেশ সফরে এসে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর আসামের নাগরিকপঞ্জিকে ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় হিসেবে বর্ণনা করেন৷ তিনি বলেন, "এটা একান্তই ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়।”

এএফপি বলছে, নাগরিকদের এই তালিকা প্রকাশের আগে আসাম কর্তৃপক্ষ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অতিরিক্ত ১৭ হাজার সদস্য সেখানে মোতায়েন করেছে৷

আসমের কয়েকটি অঞ্চলে জনগণের একসঙ্গে অবস্থান নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং আসাম পুলিশ তাদের টহলরত কর্মকর্তাদের ছবিও টুইটারে প্রকাশ করেছে৷ এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কেউ যাতে গুজব ছাড়াতে না এবং বিদ্বেষমূলক বক্তব্য না দিতে পারে তা পরোখ করতে একটি সাইবার সেলও খোলা হয়েছে৷

ভারতের খসড়া নাগরিকপঞ্জির সংশোধিত তালিকা থেকে উত্তর-পূর্ব আসাম রাজ্যের প্রায় ৪০ লাখ বাসিন্দা বাদ পড়েন৷ ১৯৭১ সালের ২৪ মার্চের আগে রাজ্যে আবাস গেড়েছেন এমন প্রমাণ না পাওয়ায় সংশোধিত তালিকায় ৪০ লাখ আবেদনকারীর নাম রাখা হয়নি৷

অবৈধ বাংলাদেশিদের চিহ্নিত করে তাদের ফেরত পাঠানোর লক্ষ্যেই এএনআরসির এ নাগরিকপঞ্জি চূড়ান্ত করা হচ্ছে বলে এর আগে জানিয়েছিল আসাম সরকার৷

তালিকায় নাম না থাকাদের এখনই বের করে দেওয়া হবে না বলে কর্মকর্তারা বারবার আশ্বস্ত করলেও এর মাধ্যমে আসামের সংখ্যালঘু বাঙালি বিশেষত মুসলমানদের ‘উইচ হান্টিং'য়ের শিকার হতে হবে বলে আশঙ্কা করছেন পর্যবেক্ষকেরা৷

সংশোধিত তালিকা থেক বাদ পড়া আবেদনকারীরা পর্যন্ত তালিকায় নাম ওঠাতে ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আপিল করতে পারবেন বলে আগেই জানিয়েছেন রেজিস্টার জেনারেল অব ইন্ডিয়া শৈলেশ। তিনি বলেছেন, "আপত্তি করার জন্য জনগণকে পর্যাপ্ত এবং যথেষ্ট সুযোগ দেওয়া হবে। কোন প্রকৃত ভারতীয় নাগরিকের ভয় পাওয়ার কারণ নেই৷''

এসআই/কেএম (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন