আল জাজিরার প্রতিবেদন সরাতে ফেসবুক, ইউটিউবকে চিঠি, দেশ থেকে বন্ধ হচ্ছে না | বিশ্ব | DW | 18.02.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

আল জাজিরার প্রতিবেদন সরাতে ফেসবুক, ইউটিউবকে চিঠি, দেশ থেকে বন্ধ হচ্ছে না

আদালত আল জাজিরায় প্রচারিত ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টারস মেন’ এর সব ধরনের লিংক বন্ধ করার নির্দেশ দিলেও তা করা হচ্ছে না৷ কারণ এটি করার চেষ্টা করলে ইউটিউবসহ অন্য সব ধরনের লিংক বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা আছে৷

তবে, ফেসবুক ও ইউটিউবকে লিংক বন্ধ করার অনুরোধ জানিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)৷

এক রিটের প্রেক্ষিতে হাইকোর্ট বুধবার ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার্স মেন’ ফেসবুক, টুইটার ও ইউটিউবসহ সব ধরনের প্লাটফর্ম থেকে সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দেয়৷ কিন্তু এই নির্দেশ বাংলাদেশ থেকে কার্যকর সম্ভব নয় বলে ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন বিটিআরসির চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদার৷ তার মতে, ‘‘এটা এখান থেকে করা অসম্ভব৷ করলে বিপর্যয় হবে৷’’

তিনি বলেন, ‘‘আমরা এখান থেকে  লিংক বন্ধ করতে পারি৷ সেই প্রযুক্তি আমাদের কাছে আছে৷ কিন্তু এটা করতে গেলে সব ধরনের লিংকই বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা আছে৷ অতীতে ফেসবুকের একটি লিংক বন্ধ করতে গিয়ে এই অভিজ্ঞতা আমাদের হয়েছে৷ তাই আমরা বুধবার রাতেই ফেসবুক, ইউটিউবকে প্রতিবেদনটির লিংক বন্ধ করার অনুরোধ জানিয়েছি৷’’

তবে, মেইলে পাঠানো এই অনুরোধের জবাব বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বিটিআরসি পায়নি৷ জবাব পেতে সময় লাগবে বলে বিটিআরসির চেয়ারম্যান জানান৷ তিনি বলেন, ‘‘তারাও তো একটা প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন৷’’

ভিডিও দেখুন 38:56

‘হারিস ও আনিসের সাজা মাফ আইনের অপপ্রয়োগের উদাহরণ’

তিনি জানান, হাইকোর্ট যে আদেশ দিয়েছেন তার সার্টিফায়েড কপি পাওয়া গেছে৷ তারা ফেসবুক, টুইটার ও ইউটিউবসহ সব ধরনের প্লাটফর্ম থেকে সরিয়ে ফেলার নির্দেশ দিয়েছেন৷

তার মতে, আর বাংলাদেশ থেকে বন্ধ করা হলেও তো সারাবিশ্বের মানুষ দেখতে পাবেন৷ তাতে তো কোনো লাভ হবে না৷ তাই এটা ফেসবুক এবং ইউটিউবের মাধ্যমেই বন্ধ করতে হবে৷ বিষয়টি সরকারও জানে৷ আর হাইকোর্টকেও পুরো পদ্ধতি জানানো হবে বলে তিনি জানান৷

এ প্রসঙ্গে তথ্য প্রযুক্তিবিদ তানভির হাসান জোহা বলেন, ‘‘গেটওয়ে থেকে বন্ধ করে দিলে পুরো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমই বাংলাদেশে সংকটে পড়বে৷ আর সিঙ্গেল লিংক বন্ধ করতে হলে হাজার হাজার লিংক বন্ধ করতে হবে৷ কারণ বহু মানুষ বিভিন্ন মাধ্যমে শেয়ার করেছেন৷ সেইসব লিংক আলাদা আলাদাভাবে বন্ধ করা একটা অসম্ভব কাজ৷’’

এদিকে বাংলাদেশে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম মনিটরিং করার জন্য বিটিআরসিকে দায়িত্ব দেয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে৷ মন্ত্রিপরিষদের আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত কমিটির বৈঠকের পর মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, ‘‘আমরা নিয়ন্ত্রণ করতে চাই না৷ কিন্তু আইনের আওতায় থাকা দরকার৷ অবাধ তথ্য প্রবাহের কারণে জাতীয়ভাবে সমাজ বিভ্রান্তিতে পড়ে৷ মানবতাবিরোধী, সমাজবিরোধী বক্তব্য নিয়ন্ত্রণ করা জরুরি৷’’

কিন্তু বিটিআরসির চেয়ারম্যন জানান, তারা নিয়ন্ত্রণ এবং মনিটরিং-এর দুটি কাজই করেন৷ নতুন করে দায়িত্ব দেয়ার কথা কেন তারা বলছেন তা তারাই বলতে পারেন৷

বাংলাদেশে এর বাইরে ন্যাশনাল টেলিকম্যুনিকেশন মনিটরিং সেন্টার (এনটিএমসি) বিশেষভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম মনিটরিং-এর কাজ করে, এর সঙ্গে আছে পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইউনিট৷ তারপরও কেন মনিটরিং-এর প্রশ্ন উঠছে? তানভীর জোহা মনে করেন, ‘‘আল জাজিরার ঘটনার পর এক ধরনের অস্বস্তি তৈরি হয়েছে৷ আর সেখান থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীদের চাপে রাখতে বা ভয় দেখাতে এটা বলা হচ্ছে৷ আর আমি যতদূর জানি অনেক যন্ত্রপাতি কেনা হলেও সেগুলো কাজে আসছে না৷’’

বিটিআরসির চেয়ারম্যান জানান, সরকারের অনেক সংস্থা এটা মনিটরিং করে৷ তাদের কাছ থেকে তারা নিয়মিত বিভিন্ন ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ পান৷

বাংলাদেশ থেকে ফেসবুকের কাছেও তথ্য চাওয়া হয়৷ ২০২০ সালের প্রথম ছয় মাসে বাংলাদেশ ফেসবুকের কাছে ৩৭১ টি অ্যাকাউন্টের তথ্য চেয়েছে৷ শতকরা ৪৪ ভাগ ক্ষেত্রে ফেসবুক সাড়া দিয়েছে৷

দ্রষ্টব্য: প্রতিবেদনটির শিরোনাম এবং অংশবিশেষ প্রকাশের পর হালনাগাদ করা হয়েছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়