আলো ও শব্দের সমন্বয়ে ইনস্টলেশন শিল্প | অন্বেষণ | DW | 13.09.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অন্বেষণ

আলো ও শব্দের সমন্বয়ে ইনস্টলেশন শিল্প

এক ডিজিটাল কাঠামোর মধ্যে আলো ও শব্দের অসাধারণ ভাস্কর্য সৃষ্টি করে দর্শকদের মুগ্ধ করছেন জার্মানির দুই শিল্পী৷ প্রদর্শনীর স্থানটিও পরিবেশকে আরও মোহময় করে তুলছে৷ ঐতিহাসিক ঘটনাও এভাবে ফুটিয়ে তুলছেন তাঁরা৷

ইন্টারনেটকে চাক্ষুষ করে তুললে তার রূপ কেমন এমন হবে? ‘ডিপ ওয়েব' নামের চমকপ্রদ আলোর ইনস্টলেশনের মধ্যে লেজার রশ্মি বিভিন্ন নোড বা গ্রন্থির দিকে নির্দেশ করছে৷ শিল্পী ক্রিস্টোফর বাউডার ও সুরকার রোব্যার্ট হেনকে এই ইনস্টলেশন সৃষ্টি করেছেন৷ হেনকে বলেন, ‘‘বৈজ্ঞানিক জটিলতার মধ্যে না গিয়ে একেবারে মুক্ত মনে বিশাল তথ্যের স্রোত দৃশ্যমান করে তোলাই ছিল আমাদের আইডিয়া৷''

বার্লিনে প্রায় ৬০০ বর্গমিটার জুড়ে ১০ মিটার উঁচু এই ইনস্টলেশন শোভা পাচ্ছে৷ শিল্পীরা এই সৃষ্টিকর্ম তুলে ধরতে ইচ্ছা করে গত শতাব্দীর ষাটের দশকের বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রকেই বেছে নিয়েছেন৷ ক্রিস্টোফর বাউডার বলেন, ‘‘এই বিদ্যুৎ কেন্দ্র অনেকটা শিল্পক্ষেত্রের ক্যাথিড্রাল গির্জার মতো৷ একেবারেই সাধারণ, কালো প্রদর্শনীস্থলের মতো নয়৷ সে ক্ষেত্রে সবার মনোযোগ শুধু ইনস্টলেশনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকে৷ কিন্তু এখানে দেওয়ালেও আলোর প্রতিফলন ঘটছে৷''

ক্রিস্টোফর বাউডার আলো দেখে মুগ্ধ হয়ে যান৷ তিনি তাইওয়ান, প্যারিস, মেক্সিকো ও চীনের রাজধানী বেইজিং-এ অসাধারণ কিছু ‘ডিজিটাল স্পেস' ও ‘ড্রিম স্কেপ' সৃষ্টি করেছেন৷

ভিডিও দেখুন 03:30

আলো ও শব্দের শিল্প

২০১৪ সালে তাঁর ‘ইলিউমিনেটেড বর্ডার' বা আলোকিত সীমানা নামের ইনস্টলেশন বার্লিন প্রাচীর পতনের ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে সংবাদ মাধ্যমের নজর কেড়েছিল৷ ভাই মার্ক-এর সঙ্গে মিলে ক্রিস্টোফর লুপ্ত বার্লিন প্রাচীরের জায়গায় ৮,০০০ উজ্জ্বল বেলুন বসিয়েছিলেন৷

ক্রিস্টোফর বাউডার এক ডিজাইন স্টুডিও প্রতিষ্ঠা করেছেন৷ সেখানে তিনি ৩০ জন সহকর্মীর সঙ্গে আলাপ আলোচনা করে আলোর নতুন ইনস্টলেশনের আইডিয়া সৃষ্টি করেন৷ তিনি বলেন, ‘‘সবাই আলোর বাল্ব চেনে৷ এলইডি ফিতের আলো, আলোর রশ্মি৷ সেগুলির সমন্বয়ে জটিল, ত্রিমাত্রিক ভাস্কর্য সৃষ্টি করা যায়, সবকিছু গতিশীল করে তোলা যায়৷ ধরাছোঁয়ার বাইরে কোনো কিছুকে রূপ দিতে পেরে আমি সত্যি অভিভূত৷''

২০১৬ সালে তৈরি ‘ডিপ ওয়েব' ইনস্টলেশনের জন্য ক্রিস্টোফর বাউডার ও রোব্যার্ট হেনকে ১৭৫টি মোটরচালিত গোলকের এক প্রণালী সৃষ্টি করেছিলেন৷ সেগুলি ১২টি উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন লেজারের সঙ্গে যুক্ত ছিল৷ প্রদর্শনীর জায়গার সিলিং-এ সেগুলি লাগানো হয়েছিল৷

তাঁর ভাগ্য ভালো বটে৷ কারণ দর্শকরা যতক্ষণ খুশি সময় কাটাতে পারেন৷ এই ইনস্টলেশন ৩০ মিনিট পর পর নতুন করে শুরু হয়৷

মিরইয়া ফিভেগার/এসবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন