আরো বেশি তথ্য ফাঁস হওয়ার কথা স্বীকার করল ফেসবুক | বিশ্ব | DW | 05.04.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আরো বেশি তথ্য ফাঁস হওয়ার কথা স্বীকার করল ফেসবুক

৮ কোটি ৭০ লক্ষ ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার সঙ্গে শেয়ার করার কথা জানিয়েছে ফেসবুক৷ অর্থাৎ, আগে যা বলা হয়েছিল, তার চেয়ে অনেক বেশি৷ এবং সেই সঙ্গে নতুন প্রাইভেসি আইনের কথা জানিয়েছে৷

দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস ও দ্য অবজারভার পত্রিকা দু'টি কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা সম্বন্ধে তাদের তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা থেকেই কেলেঙ্কারির শুরু৷ কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা একটি ডাটা মাইনিং ফার্ম বা তথ্য সংগ্রহ কোম্পানি; তারা নাকি যুক্তরাষ্ট্রে ও যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন নির্বাচন প্রভাবিত করার চেষ্টা করেছিল৷

গতমাসে খবর বেরোনোর পর ফেসবুক পাঁচ কোটি ইউজারের ডাটা লিক হওয়ার কথা স্বীকার করে; এবার বলেছে ৮ কোটি ৭০ লক্ষ ব্যবহারকারীর ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস হওয়ার কথা৷ ফেসবুকের মুখ্য প্রযুক্তি কর্মকর্তা মাইক শ্রোপফার বুধবার নতুন পরিসংখ্যানের সঙ্গে ফেসবুক ইউজারদের জন্য এক পর্যায় নতুন সেফটি টুলস বা নিরাপত্তা ব্যবস্থার কথাও জানান৷ ‘‘প্রধানত যুক্তরাষ্ট্রের ৮ কোটি ৭০ লক্ষ মানুষের ফেসবুক তথ্য অনুচিতভাবে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার সঙ্গে শেয়ার করা হয়ে থাকতে পারে,'' বলেন শ্রোপফার৷

যুক্তরাজ্যভিত্তিক কনসাল্টেন্সি সংস্থাটি কোনো ধরণের ভুলের কথা অস্বীকার করেছে এবং বলেছে যে, সংস্থার তরফ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অধ্যাপককে ‘সরল বিশ্বাসে' ফেসবুক তথ্য সংগ্রহ করতে বলা হয়েছিল – অন্যান্য অ্যাপ ডেভেলপাররা যেভাবে ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করে থাকে৷

সাকারবার্গ মার্কিন কংগ্রেসে বিবৃতি দেবেন

ফেসবুকের প্রধান কার্যনির্বাহী মার্ক সাকারবার্গ জানিয়েছেন যে, তিনি আগামী ১১ এপ্রিল একটি হাউস কমিটির সামনে তাঁর বিবৃতি দেবেন৷ মার্কিন ফেডারাল ট্রেড কমিশন ও ইউরোপের বিভিন্ন কর্তৃপক্ষও কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার ঘটনাটি নিয়ে অনুসন্ধান করছেন৷

সাকারবার্গের শুনানি ‘‘গ্রাহক তথ্যের গোপনীয়তা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রসঙ্গগুলির উপর আলো ফেলবে ও অনলাইনে তাদের ব্যক্তিগত তথ্য নিয়ে কি করা হচ্ছে, সব মার্কিনিকে তা বুঝতে সাহায্য করবে,'' কমিটির রিপাবলিকান চেয়ারম্যান গ্রেগ ওয়াল্ডেন ও একজন উচ্চপদস্থ ডেমোক্র্যাট ফ্র্যাঙ্ক ফ্যালোন একটি বিবৃতিতে বলেছেন৷ ‘‘আমরা মিস্টার সাকারবার্গের কমিটির সামনে বিবৃতি দেবার প্রস্তুতির প্রশংসা করি এবং তিনি আমাদের প্রশ্নের যেসব জবাব দেবেন, আমরা তার প্রতীক্ষায় রয়েছি৷''

ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা মার্ক সাকারবার্গকে ১০ই এপ্রিল সেনেটের জুডিসিয়াল কমিটির সামনেও আবির্ভূত হওয়ার আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে – যেমন জানানো হয়েছে গুগল প্রধান সুন্দর পিচাই ও টুইটার প্রধান জ্যাক ডর্সি-কে৷

চোর পালালে...

সাকারবার্গ বলেছেন যে, তিনি ‘‘বিশ্বে ফেসবুকের দায়িত্ব সম্পর্কে যথেষ্ট ব্যাপক মনোভাব না নিয়ে একটি বিশাল ভুল'' করেছেন৷

এ সপ্তাহের সূচনায় তাঁকে বলতে শোনা যায় যে, তথ্যের অপব্যবহার সংক্রান্ত অনুসন্ধানে যে সমস্যাবলী আবিষ্কৃত হয়েছে, তা ঠিক করতে কয়েক বছর সময় লেগে যাবে৷

বড় বেশি ‘আদর্শবাদী'  হওয়াটাই ফেসবুকের সমস্যা, বলেছেন সাকারবার্গ৷ মানুষ আর মানুষের মধ্যে যোগাযোগকে গুরুত্ব দিতে গিয়ে ‘‘আমরা কিছু কিছু ‘টুল'-এর খারাপ দিকটা পুরোপুরি ভেবে দেখিনি বা পর্যাপ্ত সময় দিইনি৷''

নতুন ‘প্রাইভেসি' নীতি

আগামী সোমবার সব ফেসবুক ইউজার তাদের ফেসবুক ফিডে একটি লিংক পাবেন, যার মাধ্যমে ইউজাররা দেখতে পারবেন, তারা কোন কোন অ্যাপ ব্যবহার করছেন এবং তারা এইসব অ্যাপের সঙ্গে কোন কোন তথ্য শেয়ার করেছেন৷ তারা যেসব অ্যাপ আর চান না, সেগুলি ডিলিট করার সুযোগ থাকবে৷ এছাড়া ফোন নাম্বার বা ইমেল ঠিকানা দিয়ে কোনো ইউজারের খোঁজ করার অপশনটিও রিমুভ করা হচ্ছে৷

কয়েক সপ্তাহ আগে ফেসবুক জানায় যে, ইউজার যদি কোনো অ্যাপ তিন মাস ব্যবহার করে না থাকেন, তাহলে ফেসবুক অ্যাপ ডেভেলপারের সেই ইউজারের ডাটা অ্যাকসেস করার সুযোগ বন্ধ করে দেবে৷ অ্যাপ ডেভেলপাররা নিয়ম মেনে চলে বললেই ফেসবুকের পক্ষে তাদের বিশ্বাস করাটা পর্যাপ্ত নয়, বলেন সাকারবার্গ৷

এসি/এসিবি (এপি, এএফপি, রয়টার্স, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন