আরো কিছু ধর্ষণের ঘটনা এবং আরো প্রতিবাদ | বিশ্ব | DW | 06.10.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

আরো কিছু ধর্ষণের ঘটনা এবং আরো প্রতিবাদ

বাংলাদেশে একের পর এক ধর্ষণ ঘটেই চলেছে৷ হচ্ছে মামলা, চলছে প্রতিবাদও৷ তবে রাজনৈতিক দলগুলো এই ইস্যু নিয়ে দিচ্ছে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য৷

সোমবার গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় নবম শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া এক ছাত্রের বিরুদ্ধে৷ বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম এই তথ্য জানিয়েছে৷ কোটালীপাড়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. জাকারিয়া সংবাদমাধ্যমটিকে বলেছেন, জড়িতদের গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ৷

মামলার মূল আসামি আলী হোসাইন৷ তিনি একই উপজেলার পূর্ণবর্তী গ্রামের মহসিন হাওলাদারের ছেলে৷ তার সহযোগী হিসেবে মাসুদ হাওলাদার নামে আরেকজনকেও আসামি করা হয়েছে৷

মেয়েটির বড় বোন সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘‘আলী হোসাইন আমার বোনকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল৷ আমার বোন তাতে রাজি হয়নি৷ আমাকে সে অনেকবার বলেছে৷ আমি যখন ওর স্কুলে পড়তাম, তখন দেখতাম মাসুদ স্কুলের মেয়েদের উত্ত্যক্ত করতো৷’’

মেয়েটির ভাষ্য অনুযায়ী, বাজার থেকে কেনাকাটা করে ফেরার পথে আলী হোসাইন ও মাসুদ হাওলাদার তার পথ আটকায় এবং মোটরসাইকেলে তুলে স্থানীয় একটি মাছের ঘেরে নিয়ে যায়৷ পরবর্তীতে তাকে মারধর এবং ধর্ষণ করে৷

কুষ্টিয়ায় ছাত্রী ধর্ষণ, মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার

কুষ্টিয়ার মিরপুরে অষ্টম শ্রেণির এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে৷ ছাত্রীর বাবার দায়ের করা মামলায় সিরাজুল উলুম মরিয়ম নেসা মাদ্রাসার সুপার (প্রধান শিক্ষক) আব্দুল কাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে৷ মিরপুর থানার ওসি আবুল কালাম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে এই তথ্য জানিয়েছেন৷

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে তিনি বলেন, ‘‘গত শনিবার ভোরে ফজরের নামাজের সময় মাদ্রাসার সুপার আব্দুল কাদের মেয়েটিকে নিজ কক্ষে ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন৷ এরপর রাত ৮টার দিকে মেয়েটিকে আবার দ্বিতীয় দফায় ধর্ষণ করেন৷ পরে কাদের বিষয়টি কাউকে না জানানোর জন্য মেয়েটিকে শাসনও করেন৷’’

এই ঘটনা জানাজানির পর স্থানীয়রা মাদ্রাসায় হামলা ও ভাঙচুর চালায় বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তা৷

বান্দরবানে কিশোরীকে ধর্ষণের চেষ্টা

কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলা ডুলহাজরায় বান্দরবানের লামা উপজেলার এক কিশোরীকে ধর্ষণ চেষ্টা অভিযোগ উঠেছে৷ রোববার এ ঘটনা ঘটে বলে মেয়েটির স্বজনের অভিযোগ করেছেন৷

মেয়েটির ফুপু বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, রোববার দুপুরে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ডুলহাজরা থেকে একা ফিরছিলেন তার ভাইঝি৷ জঙ্গলে একা পেয়ে শওকত তাকে প্রথমে বিয়ের প্রস্তাব দেয়৷ পরে তার মুখে কামড় দেয়৷ চিৎকার শুনে আশেপাশের মানুষ আসার পর ছেলেটি পালিয়ে যায়৷ হামলায় আহত মেয়েটি কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন৷

এই ঘটনায় মেয়েটির স্বজনদের থানায় একটা লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে বলে জানান ওসি শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের৷

প্রতিবাদ চলছে

একের পর এক ধর্ষণের ঘটনায় দেশের বিভিন্ন জেলায় প্রতিবাদ হচ্ছে৷ মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে ঢাকায় শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরের সামনে জড়ো হয়ে ‘ধর্ষণ ও নিপীড়নবিরোধী ছাত্র-জনতা’র ব্যানারে বিক্ষোভ করেছেন প্রগতিশীল বিভিন্ন সংগঠনের নেতা-কর্মী, লেখক, কবি, শিল্পী, অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট ও নারী অধিকারকর্মীরা৷

পরবর্তীতে তারা কালো পতাকা মিছিল নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দিকে রওনা হলে হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল মোড়ে পুলিশ বাধা দেয়৷ পুলিশের সাথে মিছিলকারীদের হাতাহাতিও হয়৷ এক পর্যায়ে পুলিশের লাঠিপেটায় ছাত্র ইউনিয়নের বেশ কয়েকজন নেতা-কর্মী আহত হন৷

এর আগে সোমবারও ধর্ষণের প্রতিবাদে শাহবাগে বিক্ষোভ করেছেন অনেকে৷ বিক্ষোভ হয়েছে রাজশাহী ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়েও৷

আওয়ামী লীগ-বিএনপি পালটাপালটি

এদিকে ধর্ষণের ঘটনাগুলো নিয়ে দেশের দুই প্রধান রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মীরা একে অন্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ-পালটা অভিযোগ শুরু করেছেন৷

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী  ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘‘প্রতিবাদ করার দরকার নেই, বিচার সরকার করছে৷ ঘটনার সাথে জড়িত কাউকেই সরকার রেহাই দিচ্ছে না৷ সরকার দলে থেকে অপরাধ যারা করেছে তাদেরও বিচারের আওতায় আনছে৷’’ মঙ্গলবার দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক৷

অন্যদিকে সোমবার আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সচিবালয়ে সাংবাদিকদের বলেছেন, বিবস্ত্র করার পর ভিডিও ধারণ করে তা ইন্টারনেটে আপলোড করার পেছনে ষড়যন্ত্র থাকতে পারে৷

এই কথার প্রেক্ষিতে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকারের মন্ত্রীদের বক্তব্যেই ধর্ষক-দুষ্কৃতকারীরা উৎসাহিত হচ্ছে৷ ‘‘আজকে তিনি (আইনমন্ত্রী) যদি এই টাইপের কথা বলেন যে, এটা (নোয়াখালীর ঘটনা) একটা ষড়যন্ত্র৷ মর্মমূলে না গিয়ে তিনি আগেই বলে দিলেন৷’’

অন্যদিকে চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, বিএনপি ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনের মতো ঘটনাগুলোকে নিয়ে ‘মাঠ গরম করতে চাইছে’৷

এফএস/এসিবি (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

২০১৯ সালের ছবিঘরটি দেখুন...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন