আরিয়ান মামলা, তদন্তকারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ সাক্ষীর | বিশ্ব | DW | 25.10.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

আরিয়ান মামলা, তদন্তকারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ সাক্ষীর

শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খানের মাদক মামলায় নতুন মোড়। তদন্তকারী অফিসারের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ।

বাবা শাহরুখ, মা গৌরীর সঙ্গে আরিয়ান।

বাবা শাহরুখ, মা গৌরীর সঙ্গে আরিয়ান।

আরিয়ান খানের বিরুদ্ধে মাদক-মামলার তদন্ত করছেন নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো(এনসিবি)-র অফিসার সমীর ওয়াংখেড়ে। তার বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ করেছেন ঘটনার সাক্ষী প্রভাকর সেইল। প্রভাকর জানিয়েছেন, তিনি কিরণ সি গোসাভির দেহরক্ষী। গোসাভি এখন পলাতক। প্রভাকরের অভিযোগ, এনসিবি তাকে সাদা পঞ্চনামায় সই করিয়েছে। আরিয়ানের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেয়ার জন্য গোসাভিকে ১৮ কোটি টাকা দেয়ার প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল বলেও তার অভিযোগ।

রোববার টুইট করে বলিউডের পরিচালক হনসল মেহতা দাবি করেছেন, ''সমীর ওয়াংখেড়ে পদত্যাগ করুন। অন্তত যতদিন তার বিরুদ্ধে ওঠা এই সব অভিযোগ মিথ্যা প্রমণিত না হচ্ছে। নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করার দায় এখন তার।'' শিবসেনা নেতা সাংসদ সঞ্জয় রউতও টুইট করে বলেছেন, ''সমীর ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ রীতিমতো গুরুতর। পুলিশের উচিত, নিজে থেকে বিষয়টির তদন্ত করে দেখা।''

প্রভাকর হলফনামায় বলেছেন, গোসাভির সঙ্গে স্যাম ডিসুজার ফোনে কথা হচ্ছিল। সেখানেই ১৮ কোটি টাকার ডিলের কথা তিনি শোনেন। গোসাভির নির্দেশে তিনি টাকা ভর্তি দুইটি ব্যাগ নিয়ে স্যাম ডিসুজার হাতে তুলে দেন। সেই ব্যাগে ৩৮ লাখ টাকা ছিল। তাছাড়া ঘটনার দিন গোসাভি, স্যাম ডিসুজা ও শাহরুখের ম্যানেজার পূজা দাদলানির একটি গাড়িতে ১৫ মিনিটের বৈঠক হয়েছিল। প্রভাকরকে এদিন ক্রাইম ব্রাঞ্চ ডেকে পাঠিয়ে জেরা করেছে। 

কিরণ গোসাভিই আরিয়ানের সেলফি তুলে বিতর্কের ঝড় তুলেছিলেন। বিতর্কের পরই পলাতক তিনি। কিন্তু রোববার একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে, সেখানে দেখা গেছে, এনসিবির হেফাজতে আরিয়ানকে কারো সঙ্গে ফোনে কথা বলাচ্ছেন গোসাভি।

এনসিবি দাবি করছে, সব অভিযোগ মিথ্যা। তাদের ভাবমূর্তি নষ্ট করার চেষ্টা চলছে।

পুলিশকে চিঠি ওয়াংখেড়ের

সমীর ওয়াংখেড়ে মুম্বই পুলিশকে চিঠি দিয়ে বলেছেন, তিনি পুলিশি নিরাপত্তা চান। কারণ, তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ আনা হচ্ছে। তাকে জেলে পাঠানোর ও চাকরি থেকে বরখাস্তের হুমকিও দেয়া হচ্ছে। সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে, মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী ও এনসিপি নেতা নবাব মালিক বলেছেন, ''এক বছরের মধ্যে এনসিবি অফিসার চাকরি হারাবেন। তিনি মিথ্যা মামলা সাজিয়েছেন। আমাদের হাতে তথ্যপ্রমাণ আছে।''

তবে পুলিশের কাছে চিঠিতে সমীর কারো নাম নেননি। তিনি শুধু বলেছেন, তিনি তার আইনি দায়িত্ব পালন করছেন। আর কিছু মানুষ তাকে হুমকি দিচ্ছে। ওয়াংখেড়ে সোমবার আদালতে গিয়েও বলেছেন, তিনি যে কোনো তদন্তের মুখোমুখি হতে রজি। 

জিএইচ/এসজি (পিটিআই, এএনআই, এনডিটিভি)